নির্বাচনের আগেই তড়িঘড়ি বীরভূম-পুরুলিয়ার SP-সহ ৪ IPS বদল, রাজনৈতিক চাপানউতোর তুঙ্গে

নির্বাচনের আগেই তড়িঘড়ি বীরভূম-পুরুলিয়ার SP-সহ ৪ IPS বদল, রাজনৈতিক চাপানউতোর তুঙ্গে
নির্বাচনের আগে চার গুরুত্বপূর্ণ আইপিএস বদল। স্বরাষ্ট্র দফতর এই রদবদলের বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। যা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

নির্বাচনের আগে চার গুরুত্বপূর্ণ আইপিএস বদল। স্বরাষ্ট্র দফতর এই রদবদলের বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। যা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

  • Share this:

    #কলকাতা: নির্বাচনের  আগে চার গুরুত্বপূর্ণ  আইপিএস বদল। স্বরাষ্ট্র দফতর এই রদবদলের বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। যা অত্যন্ত  গুরুত্বপূর্ণ ও তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বীরভূমের পুলিশ সুপার শ্যাম সিংকে সরিয়ে দিয়ে তাঁকে পাঠানো হয়েছে এসপি ট্রাফিক দুর্গাপুর পদে। বীরভূমের নতুন পুলিশ সুপার হলেন মিরাজ খালিদ। তিনি কলকাতা পুলিশের ডিসি সেন্ট্রাল  পদে ছিলেন। পুরুলিয়া পুলিশ সুপার এস সেলভামুরুগানকে সরানো হয়েছে। তাঁকে  পাঠানো হয়েছে এসএস সিআইডি পদে। পুরুলিয়া নতুন পুলিশ সুপার হলেন  বিশ্বজিৎ মাহাতো। বিশ্বজিৎ মাহাতো আসানসোল-দুর্গাপুর পুলিশ কমিশনারেটের  ডিসি, ওয়েস্ট জোনের দায়িত্বে ছিলেন।

    প্রশাসনিক শীর্ষমহল সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার ইসি বা ইলেকশন কমিশন বীরভূমের পুলিশ সুপার শ্যাম সিং এবং পুরুলিয়ার পুলিশ সুপার এস. সেলভামুরুগানকে জিজ্ঞাসা করেন, আগের নির্বাচনে তাঁদের সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল কিনা? সেই প্রশ্নের উত্তরে আইপিএসরা 'হ্যাঁ' বলেন। সেখান থেকেই ইঙ্গিত পায় রাজ্য সরকার, যে ওই আইপিএসদের পোস্টিং না হলে ইসি তাঁদের সরিয়ে দেবে। তাই তড়িঘড়ি এই রদবদল বলে মনে করছে রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক  মহল। বীরভূমের পুলিশ সুপার শ্যাম সিং, ডিসি সেন্ট্রাল মিরাজ খালিদের ডিসেম্বরই প্রমোশন হওয়ার কথা ছিল।

    সূত্রের খবর, চার বছর হয়ে গিয়েছিল ফলে প্রমোশন হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু রাজ্য সরকার ওই আইপিএসদের প্রমোশন দেয়নি। প্রশাসনিক মহলের একাংশের দাবি, প্রমোশন তখন না দেওয়ার কারণ এই আধিকারিক শাসকদলের অত্যন্ত ঘনিষ্ট। তাহলে এখন কেন এই আইপিএসদের তড়িঘড়ি রদবদল করল সরকার? প্রশাসনিক শীর্ষ কর্তাদের একাংশের দাবি, রাজ্য সরকার জানে এখন পোস্টিং না দেওয়া হলে, তাঁদের নির্বাচন কমিশন সরিয়ে দেবে অপেক্ষাকৃত কম ক্ষমতাসম্পন্ন জায়গায়। ফলে ভোটের সময় তেমনটা অসুবিধা। কিছুমাস আগে পক্ষপাতদুষ্ট ২১-২২ জন অফিসারের তালিকা দিয়েছিল রাজ্যপাল। সূত্রের খবর, এদের মধ্যে ওই  আইপিএসদের কিছুজনের নাম ছিল। আর সেকারণেই নির্বাচনের আগে এই  আইপিএসদের রদবদলে যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ ও তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে রাজনৈতিক এবং প্রশাসনিক ওয়াকিবহাল মহল। যদিও রাজ্য সরকারের দাবি, এই বদলি একেবারেই রুটিন বদলি।


    ARPITA HAZRA

    Published by:Shubhagata Dey
    First published:

    লেটেস্ট খবর