corona virus btn
corona virus btn
Loading

১৮৭৫ পদ বিলুপ্তি হতে চলেছে এবার পূর্ব রেলে   

১৮৭৫ পদ বিলুপ্তি হতে চলেছে এবার পূর্ব রেলে   

রেল আধিকারিকদের বক্তব্য, প্রতি বছরই বিভিন্ন বিভাগের কর্মীদের কাজের সাফল্য ও ক্ষমতা বিচার করা হয়। সেই ভিত্তিতেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় কত পদ থাকবে।

  • Share this:

#কলকাতা: এবার পদ বিলুপ্তি হতে চলেছে পূর্ব রেলে। হাওড়া, শিয়ালদহ, আসানসোল ও মালদা ডিভিশনের বিভিন্ন ক্ষেত্র মিলিয়ে প্রায় ১৮৭৫ পদ বিলুপ্তি হতে চলেছে। যদিও রেল ইউনিয়নের বক্তব্য এটা আসলে ছাঁটাই।

অন্যদিকে রেল আধিকারিকদের বক্তব্য, প্রতি বছরই বিভিন্ন বিভাগের কর্মীদের কাজের সাফল্য ও ক্ষমতা বিচার করা হয়। সেই ভিত্তিতেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় কত পদ থাকবে। কোনগুলি রাখা ভীষণ জরুরি। তার ভিত্তিতেই পরবর্তী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এর সাথে কর্মী ছাঁটাইয়ের কোনও সম্পর্ক নেই। পূর্ব রেলের একটি নির্দেশিকা প্রকাশ হয়েছে। সেখানে উল্লেখ করা হয়েছে, ১৮৭৫ পোস্ট সারেন্ডার করা হবে।

এক্ষেত্রে শিয়ালদহ ডিভিশনের ৩৯৬, হাওড়া  ডিভিশনের ৪৬৩, আসানসোল ডিভিশনের ৩০১ ও মালদা ডিভিশনের ১৬৮ পদ রয়েছে। এছাড়া রেল পরিচালনা করতে গিয়ে দেখা গেছে লিলুয়া ওয়ার্কশপের ১৩৫, কাঁচড়াপাড়া ওয়ার্কশপের ১৪৪, জামালপুর ওয়ার্কশপের ১৩৬ পোস্ট সারেন্ডার করতে বলা হয়েছে। এছাড়া স্টোরস, প্রিন্টিং প্রেস সহ একাধিক বিভাগের পোস্ট সারেন্ডার করতে বলা হয়েছে।

২১শে জুলাই চিফ পার্সোনেল অফিসার জে পি কুসুমাকার সই করা নির্দেশিকায় এই তথ্য দেওয়া হয়েছে। কিছুদিন আগেই ভারতীয় রেল ঘোষণা করেছিল যে সব নন সেফটি পদে দীর্ঘদিন ধরে কোনও কাজ করা হয়নি, তাদের সেই পদ বিলোপ করা হবে। বিভিন্ন রেলের জেনারেল ম্যানেজারদের এই বিষয়ে তালিকা তৈরি করে পাঠাতে বলা হয়েছিল। সেই হিসেবে ১৮৭৫ জনের তালিকা তৈরি করেছে পূর্ব রেল। রেলের এই সিদ্ধান্তে অখুশি বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনগুলি। ইস্টার্ন রেলওয়ে মেনস ইউনিয়নের তরফ থেকে সাধারণ সম্পাদক অমিত ঘোষ জানিয়েছেন, "ধীরে ধীরে রেলকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে সরকার। আমাদের আশঙ্কা ৫৫ বছরের বেশি বয়সের কর্মী বা ৩০ বছর বেশি যারা চাকরি করেছেন তাদের হয়তো আগে চাকরি যাবে।"  বি এম এস এর রাজ্য সভাপতি তরুণকান্তি ঘোষ জানান, "বেসরকারিকরণের প্রতিবাদ অবশ্যই করব আমরা। কেন এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে তা নিয়ে কেন্দ্রীয় স্তরে কথা বলব।"

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: July 24, 2020, 10:06 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर