বাবাকে খুন করে থানায় আত্মসমর্পণ পনেরো বছরের ছেলের

বাবাকে খুন করে থানায় আত্মসমর্পণ পনেরো বছরের ছেলের
  • Share this:

#কলকাতা: বাবাকে খুন করে থানায় আত্মসমর্পণ পনেরো বছরের ছেলের। প্রথমে আমল না দিলেও, পরে নাবালকের গায়ে রক্তের দাগ দেখতে পায় পুলিশ। তারপরই ওই নাবালককে গ্রেফতার করে রাজারহাট থানার পুলিশ। নবাবপুরের বাসিন্দা নিহত নুরুল আলি তরফদারের হাতেই রাজারহাট-নিউটাউনে শুরু হয় সিন্ডিকেট ব্যবসা।

অভিযোগ রোজই নেশা করে ফিরে পরিবারে অশান্তি করতেন ইমারতি ব্যবসায়ী বছর পঁয়তাল্লিশের নুরুলআলি তরফদার। কিন্তু শুক্রবার রাতে পরিণতি ভয়ঙ্কর হয়ে দাঁড়ায়। তাঁর নাবালক ছোট ছেলে প্রথমে কুড়ুল দিয়ে আক্রমণ করে। তারপর মৃত্যু সুনিশ্চিত করতে নুরুলের মাথায় পাথরের চাঙর দিয়ে আঘাত করা হয়।পুলিশের দাবি, আত্মসমপর্ণ করে থানায় ওই নাবালক জানিয়েছে, সে-ই বাবাকে খুন করেছে। যদিও, শুক্রবার রাতের ঘটনার বিন্দুবিসর্গ টের পাননি পড়শিরা। আর এখানেই প্রশ্ন উঠছে।

প্রতিবেশীদের দাবি, বরাবর ঝামেলা বড় ছেলের সঙ্গে, তা-হলে ছোট ছেলে খুন করল কেন? বাবার মৃত্যু নিশ্চিত করতে একা কী ভাবে পাথরের বড় চাঙর তুলল ওই নাবালক? প্রতিবেশীদের দাবি, শুক্রবার রাতে কোনও ঝামেলার আওয়াজ পাওয়া যায়নি। যদিও পুলিশকে ওই নাবালক জানিয়েছে, শুক্রবার রাতেও মদ খেয়ে এসে বাড়িতে অশান্তি করছিলেন নুরুল। তা-হলে এই খুনের পিছনে কি বাড়ির সবাই? কেন এই ঘটনার পর পলাতক বড় ছেলে আর স্ত্রী? রাজারহাটে সিন্ডিকেট ব্যবসা শুরু হয়েছিল এই নুরুলের হাতেই। তাঁর বনগাঁয় আরও একটি বিয়ে আছে। সেখানে আছে পাঁচ বছরের সন্তান।

First published: 04:30:15 PM Oct 14, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर