• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • 15 ELECTION PETITION FILED IN CALCUTTA HIGH COURT FROM TMC BJP BOTH IN WEST BENGAL SB

Election Petition in Bengal: নন্দীগ্রাম সহ ১৫ আসনের ফল নিয়ে মামলা! কোর্টের সিদ্ধান্তে বদলাতে পারে বহু কিছু

হাইকোর্টে লড়াই...

Election Petition in Bengal: বিধানসভার ১৫ আসনে ফলাফল নিয়ে মামলা কলকাতা হাইকোর্টে, আধাসেনা নিয়ে কী পর্যবেক্ষণ আদালতের?   

  • Share this:

#কলকাতা: বাংলার ২৯২ বিধানসভা আসনের মধ্যে ১৫ আসনে কারচুপির অভিযোগে মামলা হয়েছে কলকাতা হাইকোর্টে। নন্দীগ্রাম ভোটের ফল চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে ২১ মে প্রথম ইলেকশন পিটিশন দায়ের করেন তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। এরপর এক এক করে তৃণমূল কংগ্রেসের আরও ৪ প্রার্থী ভোটে কারচুপির অভিযোগে মামলা করেন। ভোটে কারচুপির অভিযোগ তুলেছে বিজেপিও।

বিজেপি ১০ প্রার্থী ইলেকশন পিটিশন দায়ের করেছেন কলকাতা হাইকোর্টে। তালিকায় পাণ্ডবেশ্বরের বিজেপি প্রার্থী জিতেন্দ্র তিওয়ারি, মানিকতলার কল্যাণ চৌবে সহ অন্যান্যরা রয়েছেন। জিতেন্দ্র তিওয়ারি'র মামলা প্রাথমিকভাবে গ্রহণ করে জয়ী তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী নরেন চক্রবর্তীকে নোটিশ দিতে নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি রবি কৃষাণ কাপূর।মহিষাদল, ময়না, রানীগঞ্জ,  জলপাইগুড়ি,  মানিকতলা, বৈষ্ণবনগর বিধানসভার ফলাফল চ্যালেঞ্জ করে মামলা চলছে হাইকোর্টে।

শুক্রবার মালদহের বৈষ্ণবনগর বিধানসভার ফলাফল চ্যালেঞ্জ করে দায়ের হওয়া বিজেপি প্রার্থী স্বাধীন সরকারের মামলার শুনানি হয় বিচারপতি অমৃতা সিনহা'র বেঞ্চে। ২৪৭১ ভোটের ব্যবধানে সদ্য সমাপ্ত ভোটে বিজেপি প্রার্থী পরাজিত হন তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী চন্দনা সরকারের কাছে। বিজেপি প্রার্থীর ইলেকশন পিটিশন প্রাথমিক ভাবে গ্রহণ করেছে হাইকোর্ট। বৈষ্ণবনগরের জয়ী তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থীকে নোটিশ ধরাতে এদিন নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি অমৃতা সিনহা। নোটিশ ধরাতে নির্দেশ নির্বাচন কমিশনকেও।

স্বাধীন সরকারের আইনজীবী স্যামসন কুরিয়ার এবং আইনজীবী  বিকাশকুমার সিং জানান,"ইভিএম, ভিভিপ্যাট সহ সমস্ত নথি এবং যাবতীয় ভিডিও রেকর্ডিং সংরক্ষণ করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। হাইকোর্টের পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সমস্ত নথি সংরক্ষণ করতে হবে।"২০ অগাস্ট মামলার শুনানি পরবর্তী। অন্যদিকে শুক্রবার বনগাঁ দক্ষিণ বিধানসভার ফলাফল চ্যালেঞ্জ মামলার শুনানি হয় বিচারপতি বিবেক চৌধুরীর বেঞ্চে। বনগাঁ দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রের নির্বাচনের সব নথি, তথ্য, ভিডিও রেকর্ডিং কমিশনকে সংরক্ষণ করার নির্দেশ দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। বনগাঁ দক্ষিণের তৃণমূল প্রার্থী আলোরানী সরকার মামলা করেন। তার অভিযোগ ওই কেন্দ্রের জয়ী প্রার্থী বিজেপির স্বপন মজুমদার, তার হলফনামায় মিথ্যে তথ্য দিয়েছেন। সাইলেন্ট পিরিয়ডে নির্বাচনী প্রচার চালিয়েছেন। ওই কেন্দ্রে আধাসেনা বাহিনী প্রভাব খাটিয়েছে। বিচারপতি বিবেক চৌধুরীর প্রশ্ন, "শুধু কি কেন্দ্রীয় জওয়ানরা প্রভাব খাটিয়েছে বলে কোন নির্বাচন বাতিল করে দেওয়া যায়? সেক্ষেত্রে মামলাকারীর  যুক্তি কতটা যুক্তিযুক্ত?" আগামী ৩০ জুলাই মামলাটি ফের শুনানির জন্য আসবে। সেদিন দুই প্রার্থীকেই স্বশরীরে উপস্থিত থাকার কথা।

Published by:Suman Biswas
First published: