corona virus btn
corona virus btn
Loading

ট্যাংরায় পার্কের গেট ভেঙে দুর্ঘটনা, মৃত কিশোরী আহত এক শিশু

ট্যাংরায় পার্কের গেট ভেঙে দুর্ঘটনা, মৃত কিশোরী আহত এক শিশু
representative image

পার্কের গেট ভেঙে ছিল আগে থেকে।শিশুরা ওই গেট ধরে দোল খেত।পার্কের কাজ চলছিল।কোনো সতর্কতার বার্তা থাকলে শিশুটির মৃত্যু হত না।

  • Share this:

#কলকাতা: ফের কলকাতার পার্কে দুর্ঘটনা। এবার ট্যাংরায় বন্ধ থাকা পার্কের গেট ভেঙে মৃত কিশোরী। গেটের অবস্থা ভাল ছিল না বলে স্বীকারও করেন কাউন্সিলর। মেরামতির জন্যই পার্ক বন্ধ ছিল বলে দাবি। ট্যাংরার ৫৮ নম্বর ওয়ার্ডের ডি সি দে রোডে পুরসভার এই পার্ক কয়েৈকদিন ধরেই বন্ধ ছিল। শনিবার দুপুরে পার্কের লোহার গেটের উপরে উঠে খেলছিল কয়েকজন শিশু। হঠাৎই লোহার গেট হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে। অন্য সবাই কোন ভাবে রক্ষা পেলেও রক্ষা পায়নি ১১ বছরের সুশীলা হালদার। প্রচুর রক্তক্ষরণের ফলে সুশীল ওখানেই অনেকটা মৃত্যুমুখে ঝুঁকে পড়ে। গুরুতর জখম হয় ২ জন। খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে বাড়ির সবাই তাকে নীলরতন সরকার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালে সুশীলা হালদারকে মৃত ঘোষণা করা হয়।

স্থানীয়দের দাবি, মাত্র ২ বছর আগে গেটটি বসানো হয়েছিল। মাত্র ২ বছরের মধ্যেই মরচে পড়ে বেহাল দশা গেটের। গেটটি যে দুর্বল ছিল তা জানতেন এলাকার কাউন্সিলরও। স্থানীয় কাউন্সিলর স্বপন সমাদ্দারের কথায়,'এতে করপোরেশনের কোনও দোষ নেই। নিছক একটি দুর্ঘটনা'। তিনি আরও বলেন ওই পার্কটি দীর্ঘদিন ধরে একটি আবর্জনার স্তূপ হয়ে পড়েছিল। ইদানিং কালে ওখানে একটি বাচ্চাদের স্কুল, কমিউনিটি হল ও পার্কটিকে একটি খেলার মাঠ তৈরির কাজ চলছিল। গত ১৬ ই জানুয়ারি একটি গাড়ি ঘোরাতে গিয়ে,ওই গেটে ধাক্কা মারার ফলে, গেট টি নরবড়ে হয়ে যায়।যার ফল স্বরূপ এই দুর্ঘটনা। স্বপন বাবু এও বলেন,'প্রত্যেকটা মৃত্যু দুঃখ জনক। আমি ওই দরিদ্র পরিবারের সঙ্গে আছি।' শিশুটির বাবা রঞ্জিত হালদার মেয়ে হারানোর শোকে, বাক রুদ্ধ ছিলেন। শুধু বলছিলেন,'গেটটা যদি ঠিক থাকত তাহলে আমার মেয়ে মরত না'।

SHANKU SANTRA

Published by: Ananya Chakraborty
First published: January 18, 2020, 9:12 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर