• associate partner
corona virus btn
corona virus btn
Loading

এক ম্যাচে দুটি সুপার ওভার! দ্বিতীয় সুপার ওভারে জয়ী কিংস ইলেভেন পঞ্জাব

এক ম্যাচে দুটি সুপার ওভার! দ্বিতীয় সুপার ওভারে জয়ী কিংস ইলেভেন পঞ্জাব

আইপিএল–এ এখন কোনঠাসা কিংস ইলেভেন পঞ্জাব। তালিকায় সবচেয়ে নীচে। অন্যদিকে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স রয়েছে দুরন্ত ফর্মে। সেই দুই দলই রবিবারের সন্ধ্যার ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল।

  • Share this:

মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ১৭৬/‌৬ (‌২০)‌

কিংস ইলেভেন পঞ্জাব ১৭৬/৬ (২০)

সুপার ওভারে জয়ী কিংস ইলেভেন পঞ্জাব

চূড়ান্ত টানটান খেলা বোধহয় একেই বলে। রবিবারের প্রথমার্ধের ম্যাচে সুপার ওভারে ম্যাচ জিতেছে কেকেআর। আর দ্বিতীয় ম্যাচে সেই সুপার ওভারেই জয় পেল কিংস ইলেভেন পঞ্জাব।

‌আইপিএল–এ এখন কোনঠাসা কিংস ইলেভেন পঞ্জাব। তালিকায় সবচেয়ে নীচে। অন্যদিকে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স রয়েছে দুরন্ত ফর্মে। সেই দুই দলই রবিবারের সন্ধ্যার ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল। মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের অধিনায়ক রোহিত শর্মা টসে জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু প্রথমেই ব্যাকফুটে চলে যায় মুম্বই। আকাশদীপ সিংয়ের বলে বোল্ড হয়ে ফিরে যান রোহিত শর্মা। ২৩ রানে পরে প্রথম উইকেট। তারপর থেকে নিয়মিত ব্যবধানে উইকেট পড়তে থাকে। ৩৮ রানের মাথায় তৃতীয় উইকেট পড়ে। তখন কাদায় পড়েছে মুম্বই। সেই কাদা থেকে তুলে আনেন ক্রুণাল পাণ্ডিয়া আর ডি কক। দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ডি কক এদিনও ইনিংসের হাল ধরেন। তিনি আর ক্রুণাল মিলে ৯৬ রান পর্যন্ত দলকে টেনে নিয়ে যান। সেখানে ক্রুণালের উইকেট পড়ে। আসেন হার্দিক। তিনিও ব্যক্তিগত আটরানে ফিরে যান। তখন ১৫ ওভারে মুম্বইয়ের রান ১১৬। তারপর হাত খুলে খেলতে শুরু করেন পোলার্ড আর কুলটর্নায়ার। আকাশদীপের এক ওভারে আসে ২২ রান। মুম্বই পৌঁছে যায় ১৪৪ রানে। পোলার্ড আর কুলটর্নায়ার যেন ঝড় তুললেন শেষ কয়েক ওভারে। তিন ওভারে এল ৫৪ রান। ১২ বলে ৩৪ করে অপরাজিত রইলেন পোলার্ড আর ১২ বলে ২৪ করে অপরাজিত রইলেন কুলটর্নায়ার। ২০ ওভার শেষে মুম্বই পৌঁছে গেল ১৭৬ রানে।

ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই নিজেদের চওড়া ব্যাটের আত্মবিশ্বাস স্পষ্ট করতে শুরু করেন কে এল রাহুল ও ময়াঙ্ক আগরওয়াল। প্রথম তিন ওভারে ৩৩ রান তুলে নেয় পঞ্জাব। শেষ পর্যন্ত বুমরার বলে বোল্ড হয়ে যান ময়াঙ্ক। ব্যাট করতে আসেন ক্রিস গেইল। কে এল রাহুলের সঙ্গে এসেই জাত বোঝাতে শুরু করেন তিনি। ৬ ওভারে ৫১ রানে পৌঁছে যায় পঞ্জাব। ‌‌৭৫ পর্যন্ত নিয়মিত চার ছয় হাঁকাতে থাকেন ক্রিস গেইল আর রাহুল। দলের ৭৫ রানের মাথায় ফিরে যান ক্রিস গেইল। ব্যাট করতে নামেন নিকোলাস পুরান। রান একই গতিতে আসতে থাকে পঞ্জাবের। একদিকে নিকোলাস পুরান আর কেএল রাহুল, দু’‌জনেই জয়ের জন্য খেলতে থাকেন। ১২ ওবারের মাথায় নিকোলাস পুরান ফিরে যান বুমরাহের বলে। পুল মিস টাইমিং হওয়াতে ধরা পড়েন থার্ড ম্যানে। দলের ১০৮ রানে ফিরে যান তিনি। যদিও একদিকে সমান তালে ব্যাট করে যান কেএল রাহুল। পূর্ণ করেন পঞ্চাশ রান। কিন্তু অন্যদিকে উইকেট পরতেই থাকে। আবার ব্যর্থ হন ম্যাক্সওয়েল। শূন্য রানে। রাজার মতো ব্যাট করছিলেন কে এল রাহুল। কিন্তু বুমরার মারাত্মক ইয়র্কার স্বপ্ন প্রশ্নের মুখে ফেলে দেয় পঞ্জাবকে। রাহুলকে ফেরান বুমরাহ। তবু লড়াই করতে ছাড়েনি পঞ্জাব। শেষ পর্যন্ত ম্য়াচ গড়ায় সুপার ওভারে। সেখানেও দু'দল একই রান করে। আবার দ্বিতীয় সুপার ওভার হয়। সেই সুপার ওভারেই ম্য়াচ যেতে কিংস ইলেভেন পঞ্জাব।

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: October 19, 2020, 7:41 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर