• associate partner
corona virus btn
corona virus btn
Loading

ম্যাচ জিতে আরসিবিকে ট্যুইটে খোঁচা কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের !

ম্যাচ জিতে আরসিবিকে ট্যুইটে খোঁচা কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের !
Photo Courtesy: IPL

বেঙ্গালুরু ফ্র্যাঞ্চাইজির নামে ব্যঙ্গ করে পঞ্জাব পরাজিত দলকে বুঝিয়ে দিল গতকালের সাফল্যের স্বাদ।

  • Share this:

 #আবুধাবি: এই নিয়ে দু'বার। গতকাল, বৃহস্পতিবার আবু ধাবির মাটিতেও রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্সকে ধরাশায়ী করল কিংস ইলেভেন পঞ্জাব। আর ম্যাচের হিরো সেই  কেএল রাহুল। আগের বার আরসিবির বিরুদ্ধে তিনি ৬৯ বলে ১৩২ রান করে অপরাজিত ছিলেন। গতকাল ৬১ রান করেন। ম্যান অফ দ্য ম্যাচও হন। আরসিবির বিরুদ্ধে এই মরশুমে পর পর দু'বার জেতার পর এ বার মজার ট্যুইট কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের। বেঙ্গালুরু ফ্র্যাঞ্চাইজির নামে ব্যঙ্গ করে পঞ্জাব পরাজিত দলকে বুঝিয়ে দিল গতকালের সাফল্যের স্বাদ।

বৃহস্পতিবার ম্যাচ জেতার পর নিজেদের ট্যুইট অ্যাকাউন্টে সরব হয় কিংস ইলেভেন পঞ্জাব। কে এল রাহুল ম্যান অফ দ্য ম্যাচ হন গতকালের ম্যাচে। অধিনায়কের সেই ছবি পোস্ট করে কিংস ইলেভেন যেন ব্যঙ্গ করল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুকে। কিংস ইলেভেনের বার্তা - “@klrahul11 sure loves a royal challenge, doesn’t he,”। এ নিয়ে দুই দলের ফ্যানেদের মধ্যেও চলে ট্যুইট-রিট্যুইটের খেলা। কমেন্টের ছড়াছড়ি।

প্রসঙ্গত, এ নিয়ে চলতি IPL-এ দু'বার মুখোমুখি হল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু ও কিংস ইলেভেন পঞ্জাব। আর দুটি ম্যাচই জিততে সফল পঞ্জাব। এর আগের ম্যাচে ৯৭ রানে জিতেছিল পঞ্জাব। তবে বৃহস্পতিবারের ম্যাচ অনেকটাই রোমাঞ্চকর ছিল।

টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন বিরাট কোহলি। কিন্তু রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্সের ওপেনারদের ব্যাট চলেনি গতকাল। দেবদূত পারিক্কল ও অ্যারন ফিঞ্চ দু'জনেই তাড়াতাড়ি মাঠ ছাড়েন। সাত ওভারের মধ্যেই দু'জন ওপেনার প্যাভিলিয়নে ফেরেন। দলের স্কোর তখন ৬২। এর পর ম্যাচের হাল ধরেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ৩৯ বলে ৪৮ রান করেন তিনি। কিন্ত ইনিংসে তেমন গতি ছিল না। ওয়াশিংটন সুন্দরের সঙ্গে একটা ছোট্ট পার্টনারশিপ গড়ে উঠলেও তা কাঙ্ক্ষিত রূপ পায়নি। মাত্র ১৪ রানে ফিরে যান ওয়াশিংটন । এর পর ডেভিলিয়ার্সের ব্যাটও চলেনি। জাদু দেখাতে পারেননি মিস্টার ৩৬০। একই ভাবে শিবম দুবেও খুব তাড়াতাড়ি ফিরে যান। ১৯ বলে ২৩ রান করেন তিনি। কোহলি আউট হওয়ার পর দলের মোট রান কত হতে পারে, তা নিয়েও একটা শঙ্কা ছিল বেঙ্গালুরু শিবিরে । তবে ক্রিস মরিসের ৮ বলে ২৫ আর ইসুরু উদানার ৫ বলে ১০ রানের সুবাদে ১৭০ রানের গণ্ডি পেরিয়ে যায় রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু।

রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্সের দেওয়া ১৭১ রানের লক্ষ্যমাত্রা তাড়া করতে নেমে শুরুতেই নিজেদের ইনিংস অনেকটা মজবুত করে ফেলে কিংস ইলেভেন পঞ্জাব। পাওয়ার প্লে-তে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর বোলারদের সমস্ত প্রচেষ্টা ব্যর্থ করে দেন অধিনায়ক-ওপেনার কে এল রাহুল ও ময়াঙ্ক আগরওয়াল। শুধুমাত্র পাওয়ার প্লে-তে ৫৬ রান করে ফেলেন দু'জনে। ২৫ বলে ৪৫ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলে আউট হয়ে যান ময়াঙ্ক আগরওয়াল। এর পর ক্রিজে আসেন ইউনিভার্স বস ক্রিস গেইল। স্বমহিমায় না হলেও গেলের ৪৫ বলে ৫৩ রানের ইনিংস গুরুত্বপূর্ণ। তবে ময়ঙ্ক ও গেইলের সঙ্গে দায়িত্ব নিয়ে দাঁড়িয়ে থেকে ম্যাচ বের করে দেন কে এল রাহুল। শেষের দিকে তিনি আউট হয়ে গেলেও পঞ্জাবের লক্ষ্যপূরণ আটকাতে পারেনি কোহলি ব্রিগেড। শেষ বল পর্যন্ত ম্যাচ গড়ালেও ছয় মেরে রাজকীয় কায়দায় জয় ঘোষণা করেন ফর্মে থাকা নিকোলাস পুরাণ।

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: October 16, 2020, 9:36 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर