চিনের সিচুয়ান প্রদেশের জঙ্গলে ধরা পড়ল বিরল প্রজাতির সাদা অ্যালবিনো পান্ডার ছবি

চিনের সিচুয়ান প্রদেশের জঙ্গলে ধরা পড়ল বিরল প্রজাতির সাদা অ্যালবিনো পান্ডার ছবি

অ্যালবিনো পান্ডা। পুরো পৃথিবী জুড়ে আর মাত্র ১,৮৬৪ টি প্রাণী বেঁচে। সম্প্রতি এই বিরল ও বিলুপ্তপ্রায় প্রাণীর দেখা মিলল চিনের দক্ষিণ-পশ্চিম দিকের সিচুয়ান প্রদেশের জঙ্গলে

অ্যালবিনো পান্ডা। পুরো পৃথিবী জুড়ে আর মাত্র ১,৮৬৪ টি প্রাণী বেঁচে। সম্প্রতি এই বিরল ও বিলুপ্তপ্রায় প্রাণীর দেখা মিলল চিনের দক্ষিণ-পশ্চিম দিকের সিচুয়ান প্রদেশের জঙ্গলে

  • Share this:

#সিচুয়ান প্রদেশ, চিন: অ্যালবিনো পান্ডা। পুরো পৃথিবী জুড়ে আর মাত্র ১,৮৬৪ টি প্রাণী বেঁচে। সম্প্রতি এই বিরল ও বিলুপ্তপ্রায় প্রাণীর দেখা মিলল চিনের দক্ষিণ-পশ্চিম দিকের সিচুয়ান প্রদেশের জঙ্গলে।

বেশ কয়েকটি প্রতিবেদন সূত্রে জানা গিয়েছে, গত বছর ফেব্রুয়ারি মাসে সিচুয়ান উলং ন্যাশনাল নেচার রিজার্ভ অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (Sichuan Wolong National Nature Reserve Administration) তরফে দু'টি ভিডিও রেকর্ড করা হয়েছিল। পরে জায়ান্ট পান্ডা ন্যাশনাল পার্কের WeChat অ্যাকাউন্টে পোস্ট করা হয় ভিডিওগুলি। এর মধ্যে একটি ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, একটি গাছের গোড়ায় দাঁড়িয়ে রয়েছে সাদা অ্যালবিনো পান্ডা। দিন তিনেক পরে রেকর্ড করা আর একটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, একটি ছোট্ট নদী পেরচ্ছে এক অ্যালবিনো পান্ডা। বিশেষজ্ঞদের অনুমান- পান্ডাটির বয়স বছর তিনেক হবে।

তবে এই প্রথমবার নয়। এর আগেও চিনে অ্যালবিনো পান্ডা দেখা গিয়েছিল। ২০১৯ সালের মে মাসে প্রথমবার এই বিরল প্রজাতির প্রাণীর ছবি ক্যামরাবন্দী করা হয়েছিল। বিশেষজ্ঞদের মতে, বছর দু'য়েকের ছিল ওই পান্ডাটি।

প্রসঙ্গত, বিশ্বের অত্যন্ত বিরল ও বিলুপ্তপ্রায় প্রাণী হল পান্ডা, আর এদের মধ্যে একেবারে বিরল প্রজাতি হল অ্যালবিনো পান্ডা। ২০১৪ সালের সমীক্ষা অনুযায়ী, বিশ্ব জুড়ে এই প্রজাতির মাত্র ১,৮৬৪টি প্রাণী রয়েছে। এই তথ্য দিয়েছিল ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ফান্ড ফর নেচার (WWF)। বলা বাহুল্য উল্লেখযোগ্যভাবে কমছে এই অ্যালবিনো পান্ডার সংখ্যা। এর কোনও নির্দিষ্ট কারণ জানা যায়নি। তবে গবেষকদের একাংশের মতে, এর পিছনে দায়ী এই প্রজাতির জেনেটিক মিউটেশন। এর জেরে আর বংশবিস্তার করতে পারছে না অ্যালবিনো পান্ডারা। পান্ডাদের সংরক্ষণে চিনের সরকারের তরফেও একাধিক পদক্ষেপ করা হয়েছে। নানা ধরনের কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। জঙ্গলের আশেপাশের মানুষজন, বিশেষ করে সিচুয়ান প্রদেশের বাসিন্দাদের বারবার সচেতন করা হয়েছে। তবে পরিস্থিতির খুব একটা উন্নতি হয়নি। খুবই অল্প সংখ্যায় দেখা যায় এই ধরনের প্রাণীদের।

উল্লেখ্য, বিশ্ব জুড়ে মোট পান্ডার ৮০ শতাংশই চিনের সিচুয়ান প্রদেশের জঙ্গলগুলিতে বসবাস করে। বাকি ২০ শতাংশ শাংসি (Shaanxi) ও গানসু (Gansu) প্রদেশের জঙ্গলে থাকে। সম্প্রতি ডেইলি মেল-এ প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন সূত্রে জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যেই বিষয়টি নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু হয়েছে। গবেষকদের এক স্থানীয় দল ওই পুরো এলাকায় নজরদারি চালাচ্ছেন। অ্যালবিনো পান্ডা ও তার নানা প্রজাতি নিয়ে একাধিক সমীক্ষা করা হচ্ছে।

Published by:Rukmini Mazumder
First published:

লেটেস্ট খবর