উফ! বড্ড গরম...এমারজেন্সি দরজা খুলে বিমানের পাখায় পায়চারি করলেন মহিলা, মুহূর্তে ভাইরাল

বিমান ইউক্রেনের কিয়েভ বিমানবন্দরে অবতরণের পরে তাঁর অত্যন্ত গরম বোধ হচ্ছিল। সে কথা তিনি ফ্লাইটের অ্যাটেন্ডেন্টদেরও জানান। উপায় না পেয়ে নিজেই এমারজেন্সি দরজা খুলে পাখার ওপরে নেমে পড়েন।

বিমান ইউক্রেনের কিয়েভ বিমানবন্দরে অবতরণের পরে তাঁর অত্যন্ত গরম বোধ হচ্ছিল। সে কথা তিনি ফ্লাইটের অ্যাটেন্ডেন্টদেরও জানান। উপায় না পেয়ে নিজেই এমারজেন্সি দরজা খুলে পাখার ওপরে নেমে পড়েন।

  • Share this:

    #কিয়েভ: বিমানের ভিতরটা বড্ড গরম। মুক্ত বাতাস নিতে তাই এমারজেন্সি দরজা খুলে, বিমানের পাখার উপরে পায়চারি করলেন মহিলা। ভাবছেন ভুল পড়ছেন! মোটেই না। একেবারে হুবহু এই কাণ্ডই ঘটেছে। ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে ছবি। মহিলার আজব কাণ্ড দেখে হতবাক নেটিজেনরা।

    ঘটনাটি ঘটেছে ইউক্রেনের কিয়েভ বিমানবন্দরে। জানা গিয়েছে, দুই সন্তানের মা ওই মহিলা টার্কিতে ছুটি কাটিয়ে বাণিজ্যিক বিমানে দেশে ফেরেন। বিমান ইউক্রেনের কিয়েভ বিমানবন্দরে অবতরণ করার পর তাঁর নাকি অত্যন্ত গরম বোধ হচ্ছিল। সে কথা তিনি ফ্লাইট অ্যাটেন্ডেন্টদেরও জানান। কিন্তু উপায় না পেয়ে নিজেই এমারজেন্সি দরজা খুলে পাখার ওপরে নেমে পড়েন। বেশ কিছুক্ষণ হাঁটাহাঁটি করার পর অবশ্য ফের ভিতরে প্রবেশ করেন। কিন্তু ততক্ষণে তাঁর এই কাণ্ড ক্যামেরাবন্দি করে ফেলেন বহু সহযাত্রী। ঝড়ের গতিতে সোশ্যাল মিডিয়ায় তা ভাইরাল হয়ে যায়।

    ছবিতে দেখা যাচ্ছে, অত্যন্ত সাবলীলভাবে বিমানের পাখায় হেঁটে বেড়াচ্ছেন ওই মহিলা। ভয়ের লেশমাত্র নেই তাঁর শরীরে। খানিক হাঁটাহাঁটির পর স্বস্তি পেতেই ফের নিজের কেবিনে ফেরত আসছেন।

    এ দিকে ঘটনার কথা জানাজানি হওয়ার পরেই ওই মহিলাকে ইউক্রেন ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের পক্ষ থেকে কালো তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। The Sun-র রিপোর্ট অনুযায়ী, ইউক্রেন ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্স ঘটনার কথা স্বীকার করে নিয়েছে। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, টার্মিনালে দাঁড়ানোর পর PS6212 Antalya-Kyiv বিমানের এক মহিলা যাত্রী বেআইনিভাবে এমারজেন্সি একজিট খুলে বাইরে বেরিয়েছিলেন। তিনি একেবারে পাখার উপরে চলে যান।

    বিমানের এক যাত্রী The Sun-এর প্রতিনিধিকে জানিয়েছেন, "যে মহিলা ঘটনাটি ঘটিয়েছেন তাঁর দুই সন্তান বিমানের বাইরে দাঁড়িয়েছিল। ভয়ে আতঙ্কে তাঁরা হঠাৎ মা- মা বলে চিৎকার করে ওঠে। সকলেই কম বেশি আতঙ্কিত হয়ে পড়েন।"

    এ দিকে, অভিযুক্ত মহিলাকে নামানোর জন্য পাইলট অ্যাম্বুল্যান্স-সহ দমকলের গাড়ি ডেকে পাঠান। যদিও তিনি নিজেই নেমে আসেন। পরে তাঁর শারীরিক পরীক্ষা করা হয় মাদকাসক্ত বা মানসিক ভারসাম্যহীন কিনা, তা বোঝার জন্য। যদিও তার কোনও প্রমাণ মেলেনি। উল্টে তিনি জানিয়েছেন, "বড্ড গরম লাগছিল। তাই হাওয়া খেতে বাইরে বেরিয়েছিলাম।"

    Published by:Shubhagata Dey
    First published: