• Home
  • »
  • News
  • »
  • international
  • »
  • Viral Video: TikTok ভিডিও কলে ব্যস্ত যুবতী, পিছনে উঁকি দিয়ে গেল অশরীরী, আতঙ্কে কাঁপছে নেটদুনিয়া!

Viral Video: TikTok ভিডিও কলে ব্যস্ত যুবতী, পিছনে উঁকি দিয়ে গেল অশরীরী, আতঙ্কে কাঁপছে নেটদুনিয়া!

TikTok ভিডিও কলে ব্যস্ত যুবতী, পিছনে উঁকি দিয়ে গেল অশরীরী, আতঙ্কে কাঁপছে নেটদুনিয়া!

TikTok ভিডিও কলে ব্যস্ত যুবতী, পিছনে উঁকি দিয়ে গেল অশরীরী, আতঙ্কে কাঁপছে নেটদুনিয়া!

ভিডিও করার সময় তিনি কোনও তৃতীয় ব্যক্তির উপস্থিতি টের পাননি বলেই জানান

  • Share this:

#ইংল্যান্ড: TikTok ভিডিও থেকে ছড়াল চাঞ্চল্য। লিভারপুল শহরের কাছাকাছি হেলউড শহরের এক মহিলার, নিজের বন্ধুর সঙ্গে ভাগ করে নেওয়া TikTok ভিডিওয় আচমকাই দেখা গেল রহস্যজনক এক ব্যক্তিকে। যা থেকে ছড়িয়েছে চাঞ্চল্য। কেইলি করবি (Kayleigh Corby) নামে তেত্রিশ বছরের ওই মহিলা, রাত্রে তাঁর দুই সন্তান ঘুমিয়ে পড়ার পর TikTok-এ একটি ভিডিও বানিয়ে তাঁর এক বন্ধুর সঙ্গে শেয়ার করছিলেন। জন্মদিনের শুভেচ্ছা বার্তা প্রদান করতেই ওই ভিডিও বানিয়েছিলেন বলে জানান মহিলা। ওই ভিডিও দেখে তাঁর বন্ধুই প্রথম ওই রহস্যজনক ব্যক্তির উপস্থিতি সম্পর্কে কেইলিকে জিজ্ঞাসা করেন৷ জবাবে কার্যত বাকরুদ্ধ হয়ে যান কেইলি। ভিডিও করার সময় তিনি কোনও তৃতীয় ব্যক্তির উপস্থিতি টের পাননি বলেই জানান।

কেইলির বক্তব্য অনুযায়ী, রাতে তাঁর দুই সন্তান ঘুমিয়ে পড়ার পর, নিজের রান্নাঘরে ওই ভিডিও করছিলেন। তখন কোনও তৃতীয় ব্যক্তির উপস্থিতি তাঁর চোখে পড়েনি। কিন্তু নিজের বন্ধুর কথা শুনে ওই ভিডিও রেকর্ডিং পুনরায় দেখতে গিয়ে, দরজার সামনে ওই রহস্যজনক ব্যক্তিকে দেখতে পান তিনি। নিজের ও তাঁর ছয় আর সাত বছরের দুই সন্তানের নিরাপত্তার কথা ভেবে নিজের বাবা, মা কে ডেকে পাঠান তিনি। তার বাবা-মা এই মুহূর্তে তাঁর সঙ্গেই থাকছেন। এরকম পরিস্থিতিতে মেয়ে ও তার দুই সন্তানকে ছেড়ে যেতে চাননি তাঁরা।

তবে গোটা ঘটনায় কার্যত বাকরুদ্ধ হয়ে গিয়েছেন কেইলি। Mirror Now-এর স্থানীয় একটি শাখাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, 'আমার ভয় করছিল। আমার মনে হচ্ছিল, আমাকে কেউ দেখছে। আমি বিন্দুমাত্র নিশ্চিন্ত হতে পারছি না, ভয়াবহ লাগছে৷' তবে ওই ব্যক্তি কে হতে পারে সে সম্পর্কে কোনও আলোকপাত কেইলি করতে পারেননি। তিনি বলেছেন, ভিডিও করার সময় তাঁর ঘুমন্ত দুই সন্তান ছাড়া, বাড়িতে অন্য কেউ ছিলেন না।

তবে তিনি সাহায্যের জন্য এখনও অবধি পুলিশের কাছে যাননি। Mirror Now-এর রিপোর্ট অনুযায়ী স্থানীয় পুলিশের সাহায্য নেওয়ার কথা এখনও অবধি কেইলি ভাবেননি। ঘটনাকে নিছক একটি দুর্ঘটনা ভেবেই এড়িয়ে যেতে চেয়েছেন।

Published by:Ananya Chakraborty
First published: