অনলাইনে খাবার অর্ডার করে মেসেজ এল, 'সরি ভালোবাসা, তোমার খাবার খেয়ে ফেলেছি'!

অনলাইনে খাবার অর্ডার করে মেসেজ এল, 'সরি ভালোবাসা, তোমার খাবার খেয়ে ফেলেছি'!
প্রতীকী ছবি

দরজায় কলিং বেল বাজার বদলে মোবাইলে আসা মেসেজ দেখে চমকে ওঠেন ইলি। সৎ ডেলিভারি বয় মেসেজে লিখেছেন, 'ক্ষমা করো ভালোবাসা, তোমার খাবার খেয়ে ফেলেছি।'

  • Share this:

    #লন্ডন: করোনার কালবেলায় অনলাইনে খাবার অর্ডার করাটা যেন খুবই স্বাভাবিক হয়ে পড়েছে। করোনার আগেও এই অনলাইন অ্যাপগুলির মাধ্যমে খাবার আনার প্রবণতা কম ছিল না। আপনিও হয়তো এমনই অনলাইনে কোনও দিন পছন্দের খাবার অর্ডার দিলেন এবং কিছুক্ষণ পর মেসেজ পেলেন যে, 'সরি, আপনার খাবার খেয়ে ফেলেছি', কেমন লাগবে আপনার? অথছ আপনি দেখতে পাচ্ছেন, অর্ডার ট্র্যাক করে যে, সেটি আপনার বাড়ির দিকেই আসছে। আচমকাই মাঝপথে ডেলিভারি বয়ের কাছ থেকে মেসেজ পেলেন খাবার খেয়ে নেওয়ার! অদ্ভুত মনে হলেও, এমনই কাণ্ড ঘঠেছে, লন্ডনে।

    ২১ বছরের ইলি ইলিয়াস নামের এক যুবতী অনলাইনে খাবার অর্ডার করেছিলেন। কিছুক্ষণ পর তাঁর মোবাইলে মেসেজ এসেছে, 'সরি ভালোবাসা, তোমার খাবার খেয়ে নিয়েছি'। জানা গিয়েছে, ইলি প্রায় ২০ মার্কিন ডলার মূল্যের দুটি বার্গার, চিপস ও চিকেন র‍্যাপ অর্ডার করেছিলেন। বিমস ইলফোর্ড নামের একটি রেস্তোরাঁ থেকে অর্ডার আসছিল তাঁর। তিনি মোবাইলে সেই অর্ডার ট্র্যাকও করছিলেন। আচমকাই এমন কাণ্ড। উবর ইটস অ্যাপের মাধ্যমে অর্ডার করা খাবার নিমেষে পেটপুরে খেয়ে ফেলেছেন ডেলিভারি বয়।

    খাবারের জন্য অপেক্ষা করার সময়ই ইলির মোবাইলে মেসেজ যায় যে, 'আপনার খাবার তৈরি করা হচ্ছে'। ট্র্যাক করেও তিনি দেখেছেন, ডেলিভারি বয় সেটি পিক-আপ করে তাঁর বাড়ির দিকেই আসছেন। দরজায় কলিং বেল বাজার বদলে মোবাইলে আসা মেসেজ দেখে চমকে ওঠেন ইলি। সৎ ডেলিভারি বয় মেসেজে লিখেছেন, 'ক্ষমা করো ভালোবাসা, তোমার খাবার খেয়ে ফেলেছি।'


    ইলির কাছে পরে আরেকটি মেসেজ আসে উবর ইটস অ্যাপ থেকে। সেখানে বলা হয়, 'তিনি কি ডেলিভারি বয়কে কোনও টিপস দিতে চান?' এর পর বিরক্ত ইলি উবর ইটসকে ফোন করে গোটা ঘটনার কথা জানান। পরে ফের অর্ডার দেন পছন্দের খাবারের। যদিও পরের বার আর কোনও টাকা নেওয়া হয়নি তাঁর কাছ থেকে। তবে ইলি ওই ডেলিভারি বয়ের বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ জানাননি। কারণ তাঁর মতে, তিনি হয়তো খুবই ক্ষুধার্ত ছিলেন। বরং এই গোটা ঘটনাটি তাঁর কাছে খুবই মজার ও মনে রাখার মতো। আর তাছাড়া তাঁর মতেও, ক্ষমাই পরম ধর্ম।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published:

    লেটেস্ট খবর