স্কুলের রান্নাঘর থেকে ১৩ হাজার টাকারও বেশি খাবার চুরি, ভিডিওয় কে এই রহস্যময়ী?

স্কুলের রান্নাঘর থেকে ১৩ হাজার টাকারও বেশি খাবার চুরি, ভিডিওয় কে এই রহস্যময়ী?

স্কুলের রান্নাঘর থেকে ১৩ হাজার টাকারও বেশি খাবার চুরি, ভিডিওয় কে এই রহস্যময়ী?

পুলিশ জানিয়েছে যে সম্প্রতি ইয়েশিবা আলেকজান্ডার স্কুলে সন্ধ্যার মুখে ঘটনাটি ঘটেছে।

  • Share this:

#ব্রুকলিন: কমলাকান্তের দফতর বইতে বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় সমাজে কেন চুরি হয়, সেই সমস্যার মূলে কুঠারাঘাত করেছিলেন। বিড়াল কমলাকান্তের বাটি থেকে দুধে চুমুক দিয়ে পালাচ্ছিল। হাতেনাতে ধরা পড়ে গেলে সে জানায় যে সমাজের ধনবান ব্যক্তিরা সম্পদ কুক্ষিগত করে রাখেন, এর পরিণামে গরিবেরা খেতে পায় না। ফলে তারা চুরি করে খেতে বাধ্য হয়। কিন্তু সম্প্রতি ব্রুকলিনের বরো পার্ক এলাকার ৪০ নম্বর রাস্তার ১৫ নম্বর অ্যাভেনিউয়ের ইয়েশিবা আলেকজান্ডার স্কুলে যে ঘটনা ঘটেছে, সেটাকেও এক গোত্রে ফেলা যায় কি না, তা নিয়ে বিতর্ক দেখা দিয়েছে। কেন না, স্কুলের সিসিটিভি ফুটেজে যে যুবতীকে ১৮০ ডলার, ভারতীয় মুদ্রায় ১৩ হাজার টাকার কিছু বেশি খাবার চুরি করে পালাতে দেখা গিয়েছে, আপাতদৃষ্টিতে তাঁকে স্বচ্ছল বলেই মনে হয়!

<iframe width="560" height="315" src="https://www.youtube.com/embed/pBamJb1CI94" frameborder="0" allow="accelerometer; autoplay; clipboard-write; encrypted-media; gyroscope; picture-in-picture" allowfullscreen></iframe>

পুলিশ জানিয়েছে যে সম্প্রতি ইয়েশিবা আলেকজান্ডার স্কুলে সন্ধ্যার মুখে ঘটনাটি ঘটেছে। এই স্কুলটি ইহুদি সম্প্রদায় দ্বারা পরিচালিত এবং সেখানে ইহুদি ধর্ম সংক্রান্ত নানা শিক্ষা দেওয়া হয় থাকে। সূর্য ডুবে যাওয়ার পরে তারা সাবাথ বা সান্ধ্য উপাসনা-ভোজে ব্যস্ত থাকে। সেই কারণেই রান্নাঘরে কোনও লোক ছিল না। কিন্তু সিসিটিভি ফুটেজে গোটা ঘটনাটি উঠে আসে। দেখা যায় যে লাল হুডি, সাদা লেগিংস এবং সাদা জুতো পায়ে দেওয়া এক যুবতী কিছু একটা চিবোতে চিবোতে দরজা ঠেলে রান্নাঘরের ভিতরে ঢুকে আসেন। তাঁর হাতে ছিল বেশ কয়েকটি দুধের কার্টন। ভিডিও ফুটেজে রান্নাঘরে কিছু কর্নফ্লেক্সের প্যাকেট দেখা যায়। ওই যুবতী রান্নাঘর থেকে খাবার তুলে নেওয়ার বাসনায় কোথায় কী আছে ঘুরে ঘুরে দেখতে থাকেন। অবশেষে বেশ কিছু খাবার নিয়ে পালিয়ে যান।

ঘটনায় স্বাভাবিক ভাবেই বেশ মর্মাহত হয়েছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। ইহুদিদের নিয়ে এখনও পর্যন্ত বিশ্বের নানা প্রান্তের সমাজে একটা তাচ্ছিল্যের মনোভাব রয়েছে। সেই জায়গা থেকে কেউ নিজের দরকার না থাকলেও এই ভাবে স্কুলের সম্পদের ক্ষতি করতে চেয়েছেন কি না, দেখা দিচ্ছে সেই সন্দেহ! পুলিশ অবশ্য প্রতিশ্রুতি দিয়েছে যে তারা ঘটনাটির শেষ না দেখে ছাড়বে না। আপাতত চার দিকে ওই যুবতীর খোঁজ চলছে। তাঁকে ধরার চেষ্টায় দিন-রাত এক করে তদন্ত চালাচ্ছে নিউ ইয়র্ক সিটি পুলিশ।

Published by:Raima Chakraborty
First published: