বিদেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

কাস্টমারের দরজার সামনে রাখা স্ন্যাকস বাস্কেট, ক্রিসমাস উপহার দেখে খুশিতে ফেটে পড়লেন ডেলিভারি পার্সন!

কাস্টমারের দরজার সামনে রাখা স্ন্যাকস বাস্কেট, ক্রিসমাস উপহার দেখে খুশিতে ফেটে পড়লেন ডেলিভারি পার্সন!

ডেলিভারি পার্সনদের কথা ভেবে, তাঁদের ধন্যবাদ জানাতে, সম্প্রতি তাঁরা নিজেদের বাড়ির সামনে একটি বাস্কেট রেখেছেন, যাতে প্রচুর স্ন্যাকস, জলের বোতল, চকোলেট ইত্যাদি সাজিয়েছেন।

  • Share this:

করোনার (Coronavirus) জেরে বিশ্বে সকলের পরিস্থিতিই প্রায় এক। বেশিরভাগ মানুষ আজও ঘরবন্দী। বিশ্বের সব প্রান্তেই কাজ হারিয়েছে এমন মানুষের সংখ্যা গুনে বলা মুশকিল। পাশাপাশি লকডাউনের জেরে কাজ ছিল না, এমন মানুষের সংখ্যাও কম নয়। ফলে এই বছর মোটের উপরে খারাপই গিয়েছে সবার। তবে, আর কিছুদিন পরই ক্রিসমাস। এই আনন্দ উৎসবে মানুষ চাইছে করোনা থেকে বেরিয়ে একটু আনন্দ করতে। আনন্দ দিতেও।

গিফট, আনন্দ, উদযাপনের উৎসব ক্রিসমাসে একা নয়, সকলকে নিয়ে আনন্দ উপভোগ করছেন বহু মানুষ। তাঁদের মধ্যে নাসান্দ্রা জেমস ও তার সঙ্গী অন্যতম। নিজেদের আনন্দ দেওয়ার পাশাপাশি তাঁরা আনন্দ দিচ্ছেন আশেপাশের মানুষজনকেও।

ডেলিভারি পার্সনদের কথা ভেবে, তাঁদের ধন্যবাদ জানাতে, সম্প্রতি তাঁরা নিজেদের বাড়ির সামনে একটি বাস্কেট রেখেছেন, যাতে প্রচুর স্ন্যাকস, জলের বোতল, চকোলেট ইত্যাদি সাজিয়েছেন। আর বাস্কেটে একটা চিরকুটে লেখা- আমাদের ছুটির শপিংকে সহজ করে তোলার জন্য ধন্যবাদ। আপনার রিফ্রেশমেন্টের জন্য কিছু রইল। হ্যাপি হলিডেইজ। যে ডেলিভারি পার্সনই আসছেন, ক্রিসমাস উপহার হিসেবে নিয়ে যাচ্ছেন সেই খাবার। আর তাঁদের এই উদ্যোগ দেখে রীতিমতো খুশিতে ফেটে পড়ছেন।

এমনই এক ডেলিভারি পার্সনের ভিডিও সম্প্রতি ধরা পড়ে তাঁদের ডোরবেল ক্যামেরায়। আর সেই ভিডিওই পোস্টের সঙ্গে সঙ্গে ভাইরাল হয় নেটদুনিয়ায়। যাতে দেখা যায়, এক মহিলা ডেলিভারি পার্সন কিছু একটা দিতে এসেছেন। দিয়েছেন এবং চলে যাওয়ার সময়ে তাঁর চোখে পড়েছে সেই গিফট বাস্কেট। যা দেখে প্রথমেই আনন্দে একটু নেচে নেন তিনি। পরে সেখান থেকে নিজের পছন্দ মতো দু'টো জিনিস নিয়ে নাচতে নাচতে চলে যান তিনি। যাওয়ার সময় ডোর বেল বাজিয়ে যান যাতে জিনিসটা ডেলিভারি হয়েছে, তা দেখতে পায় বাড়ির লোকজন।

ভিডিওটির শেষ পর্যন্ত দেখা যায়, জিনিসটি নিয়ে ওই ডেলিভারি পার্সন কতটা আনন্দিত। তিনি এর জন্য যাওয়ার আগে ধন্যবাদও জানিয়ে যান। ভিডিওয় দেখা যায় কতটা খুশি হয়েছেন তিনি। শেষ পর্যন্ত নাচতে নাচতে গাড়িতে ওঠেন ওই মহিলা।

তাঁদের এই উদ্যোগ দেখে শুধু খুশি ডেলিভারি পার্সনরাই নন। খুশি নেটিজেনদের একাংশও। অনেকেই লিখতে থাকে, দারুণ উদ্যোগ। অনেকেই বলতে থাকে, জেমসরা হলে রক স্টার। অনেকে আবার লেখে, এমন করেই তো সকলের জন্য ভাবা উচিৎ!

Published by: Elina Datta
First published: December 23, 2020, 11:35 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर