অভিবাসন নীতির উপর সাময়িক স্থগিতাদেশ, আমেরিকা যাওয়ার তোড়জোড় শুরু– News18 Bengali

অভিবাসন নীতির উপর সাময়িক স্থগিতাদেশ, আমেরিকা যাওয়ার তোড়জোড় শুরু

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করার জন্য তাদের মধ্যে তাড়াহুড়ো পড়ে গিয়েছে ৷

Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Feb 05, 2017 01:16 PM IST
অভিবাসন নীতির উপর সাময়িক স্থগিতাদেশ, আমেরিকা যাওয়ার তোড়জোড় শুরু
Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Feb 05, 2017 01:16 PM IST

#ওয়াশিংটন: ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই আশঙ্কা ছিল অভিবাসন নীতিতে বড়সড় পরিবর্তন হতে চলেছে ৷ সেই মতো রদবদল করাও হয় অভিবাসন নীতি ৷ মুসলিম অধ্যুষিত দেশের নাগরিকদের আমেরিকায় প্রবেশের উপর জারি করা হয় নিষেধাজ্ঞা ৷ এরপরই শুরু হয়ে যায় বির্তকের ঝড় ৷ কিন্তু শনিবার ধাক্কা খেল ট্রাম্পের বিতর্কিত অভিবাসন নীতি। দেশজুড়ে অভিবাসন নীতির উপর সাময়িক স্থগিতাদেশ জারি করল সিয়াটেলের ফেডারেল কোর্ট। নিউইয়র্ক, ক্যালিফোর্নিয়া, ভার্জিনিয়া এবং ম্যাসাচ্যুসেটস-এর পর এবার মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিতর্কিত ভিসা ও অভিবাসন নীতির তীব্র সমালোচনা করল সিয়াটেলের ফেডারেল কোর্ট। ট্রাম্প প্রশাসনের অভিবাসন আইনকে অবৈধ বলেই রায় আদালতের।

এর ফলে আপাতত সাত মুসলিম অধ্যুষিত দেশের নাগরিকদের আমেরিকায় প্রবেশে কোনও নিষেধাজ্ঞা থাকছে না। আর এই সুযোগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করার জন্য তাদের মধ্যে তাড়াহুড়ো পড়ে গিয়েছে ৷ যাদের কাছে ভিসা বা গ্রিন কার্ড রয়েছে তারা আর দেরি করতে চায় না ৷ কারণ তারা জানে যে খুব অল্প সময়ের জন্য তারা এই সুযোগ পাবেন ৷

মিশিগানের আরব-আমেরিকান সিভিল রাইটস লিগের ডিরেক্টর রুলা আউন জানিয়েছেন, যাদের কাছে ভিসা ও গ্রিন কার্ড রয়েছে তাদেরকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশ্যে রওনা দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছি ৷ কারণ যে কোনও সময় প্রেসিডেন্টের নির্দেশ ফের কার্যকর হতে পারে ৷

গতমাসের সাতাশ তারিখ বিতর্কিত ভিসা ও অভিবাসন নীতিতে সই করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এই নীতির ফলে সাত মুসলিম অধ্যুষিত দেশের নাগরিকদের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ঢোকায় নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। এই ঘোষণার পর থেকে প্রায় এক লক্ষ ভিসা বাতিল করা হয়েছে বলে দাবি মার্কিন বিদেশ দফতরের। বিতর্কিত অভিবাসন নীতির জেরে ঘরে-বাইরে প্রবল সমালোচনার মুখে পড়েন ট্রাম্প। তাতে অবশ্য দমতে রাজি নন নিউ ইয়র্কের প্রাক্তন রিয়েল এস্টেট জায়েন্ট। সিয়াটেলের ফেডারেল কোর্টের সিদ্ধান্তকে হাস্যকর বলে ট্যুইট করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। আপাতত আদালতে পালটা আইনি লড়াইয়ের প্রস্তুতি নিচ্ছে হোয়াইট হাউস। তবে একের পর এক আদালতের স্থগিতাদেশের জেরে, বিচারব্যবস্থার সঙ্গে ট্রাম্প প্রশাসনের সংঘাতের আবহ বেশ স্পষ্ট।

First published: 01:16:16 PM Feb 05, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर