Home /News /international /
Ukraine Crisis: পূর্ব ইউরোপে মুখোমুখি রাশিয়া-আমেরিকার সেনা, ইউক্রেন ঘিরেই কি তবে যুদ্ধের ইঙ্গিত?

Ukraine Crisis: পূর্ব ইউরোপে মুখোমুখি রাশিয়া-আমেরিকার সেনা, ইউক্রেন ঘিরেই কি তবে যুদ্ধের ইঙ্গিত?

ছবি : রয়টার্স। মার্কিন সেনাবাহিনীর ফাইল ছবি।

ছবি : রয়টার্স। মার্কিন সেনাবাহিনীর ফাইল ছবি।

Ukraine Crisis: ইতিমধ্যে ন্যাটোর পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, একাধিক যুদ্ধজাহাজ ও যুদ্ধবিমান পূর্ব ইউরোপে পাঠাচ্ছে ন্যাটোভুক্ত দেশগুলি।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: শীতলতার সময় কী তবে শেষ? ঠাণ্ডা যুদ্ধের ইতি? এ বার কী তবে মুখোমুখি রাশিয়া ও আমেরিকা? পূর্ব ইউরোপের ইউক্রেনকে (Ukraine Crisis) ঘিরে তৈরি হওয়া রাজনৈতিক সংকট সেই দিকেই কী ইঙ্গিত করছে না? আমেরিকার পক্ষ থেকে খবর পাওয়া গিয়েছে, পূর্ব ইউরোপে উদ্ভুত পরিস্থিতির (Ukraine Crisis) কথা মাথায় রেখে ৮ হাজার ৫০০ মার্কিন সেনাকে চরম প্রস্তুতি নিতে নির্দেশ দিয়েছে পেন্টাগন। অবশ্য কোথায় এই সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হবে, তা এখনও ঠিক হয়নি। কিন্তু উষ্মা প্রকাশ করে আমেরিকা জানিয়েছেন, রাশিয়া ইউক্রেন নিয়ে তৈরি হওয়া অস্থিরতা (Ukraine Crisis) থামাতে প্রস্তুত নয়, সেই কারণেই নিরাপত্তার স্বার্থে এই সেনাকে প্রস্তুত করতে হয়েছে।

    আমেরিকার (USA) পক্ষ থেকে স্পষ্টই বলা হয়েছে, ইউক্রেনের সীমান্তে ইতিমধ্যে লক্ষাধিক রাশিয়ার (Russia) সেনা এসে ঘাঁটি তৈরি করেছে। এ ভাবে যদি ইউক্রেনের মধ্যে সেনা প্রবেশ করে, তা হলে তা ন্যাটোভুক্ত দেশগুলি ও আমেরিকার পক্ষে খুব একটা ভাল হবে না। সেই কারণেই বাইডেন প্রশাসন আপাতত সেনা তৈরি রাখছে। তবে ন্যাটোর পক্ষ থেকে যৌথভাবে যদি সেনা মোতায়েন করার সিদ্ধান্ত না নেওয়া হয়, তা হলে সেনা কোথাও প্রবেশ করবে না।

    আরও পড়ুন: স্কুল খোলার ঝুঁকি এখনই নয়! খুদে পড়ুয়াদের জন্য শুরু হচ্ছে 'পাড়ায় শিক্ষালয়'

    ইতিমধ্যে ন্যাটোর পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, একাধিক যুদ্ধজাহাজ ও যুদ্ধবিমান পূর্ব ইউরোপে পাঠাচ্ছে ন্যাটোভুক্ত দেশগুলি। ইউক্রেনে রাশিয়ার ক্ষমতা দখলের নীতির কারণেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ন্যাটোভুক্ত দেশগুলির মধ্যে রয়েছে ডেনমার্ক, স্পেন, ফ্রান্স, নেদারল্যান্ড। এই দেশগুলি সামরিক সাহায্য পাঠাচ্ছে পূর্ব ইউরোপে। যদি কোনও কারণে নিরাপত্তার কোনও ঘাটতি দেখা যায়, তাহলে সেটিতে হস্তক্ষেপের জন্য প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে সেনাকে।

    আরও পড়ুন -লেপ-কম্বল লাগবে কাজে, সপ্তাহান্তে ফের হাড় কাঁপানো ঠাণ্ডা বাংলায়

    পেন্টাগনের পক্ষ থেকে বিবৃতি দিয়েই বলা হয়েছে, এই গোটা পরিস্থিতির জন্য দায় রাশিয়ার। রাশিয়া কোনওভাবেই উত্তেজনা কমাতে চাইছে না। তাই আমেরিকাও জানিয়েছে, তারা কঠোর অবস্থান নেবে। সাধারণ মানুষ ও বন্ধুদেশগুলিকে যাতে রাশিয়া ক্ষতি না করতে পারে, তার ব্যবস্থা করবে।

    Published by:Uddalak B
    First published:

    Tags: Russia, USA

    পরবর্তী খবর