Trump Impeachment: ইমপিচমেন্টই হল ট্রাম্পের, মার্কিন ইতিহাসে তৃতীয় 'কলঙ্কিত' প্রেসিডেন্ট

Trump Impeachment: ইমপিচমেন্টই হল ট্রাম্পের, মার্কিন ইতিহাসে তৃতীয় 'কলঙ্কিত' প্রেসিডেন্ট
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ওঠা প্রথম অভিযোগে ডেমোক্র্যাটিক সংখ্যাগরিষ্ঠ হাউস অফ রিপ্রেজেন্টেটিভস-এ ইমপিচমেন্টের পক্ষে ভোট পড়েছে ২৩০টি৷ বিপক্ষে ভোট পড়েছে ১৯৭টি৷

  • Share this:

#ওয়াশিংটন: ক্ষমতার অপব্যবহার ও মার্কিন কংগ্রেসের কাজে বাধা সৃষ্টি করার অভিযোগে ইমপিচমেন্টই হচ্ছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের৷ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে ডোনাল্ড ট্রাম্প তৃতীয় প্রেসিডেন্ট যাঁর ইমপিচমেন্ট হবে৷ প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে ইমপিচ করার জন্য যে পরিমাণ ভোট প্রয়োজন ছিল, হাউজ অফ রিপ্রেজেন্টেটিভস-এ ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ওঠা প্রথম দুই অভিযোগের ভোট গণনায় সেই পরিমাণ ভোট পড়েছে৷ ফলে ট্রাম্পের ইমপিচমেন্টে আর বাধা রইল না৷

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ওঠা প্রথম অভিযোগে ডেমোক্র্যাটিক সংখ্যাগরিষ্ঠ হাউস অফ রিপ্রেজেন্টেটিভস-এ ইমপিচমেন্টের পক্ষে ভোট পড়েছে ২৩০টি৷ বিপক্ষে ভোট পড়েছে ১৯৭টি৷ দ্বিতীয় অভিযোগের ক্ষেত্রেও প্রয়োজনীয় ২১৬ ভোটের বেশি সংখ্যক ভোট পড়েছে। দ্বিতীয় অভিযোগে ইমপিচমেন্টের পক্ষে ২২৯ ভোট ও বিপক্ষে ১৯৮। ট্রাম্পকে এ বার সেনেটে ট্রায়ালের সম্মুখীন হতে হবে৷ কিন্তু সেনেটে রিপাবলিকানরা সংখ্যাগরিষ্ঠ৷ সে ক্ষেত্রে ট্রাম্পের খানিক সুবিধা৷ তাই হয়তো প্রেসিডেন্ট পদ খোয়াতে হবে না ট্রাম্পকে৷ দ্বিতীয় অভিযোগটি হল, ইমপিচমেন্টের তদন্তে সহায়তা করতে অস্বীকার করে তিনি কংগ্রেসের কাজে বাধা সৃষ্টি করেছেন।

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ইমপিচমেন্ট প্রস্তাবে মূলত অভিযোগ, ভোটে ফায়দা তুলতে প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী জো বাইডেনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির তদন্ত করাতে ইউক্রেনকে চাপ দিয়েছেন ট্রাম্প৷ ফোনে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদোমির জেলেনস্কিকে ট্রাম্প ফোনে চাপ দেন, জো বাইডেনের বিরুদ্ধে তদন্ত না করলে, ইউক্রেন থেকে সেনা তুলে নেবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র৷ ট্রাম্পের ইমপিচমেন্ট প্রস্তাবে এই বিষয়টিতে তদন্তে সায় দিয়েছে হাউস অফ রিপ্রেজেন্টেটিভস৷ ট্যুইটারে ট্রাম্প রীতিমতো ডেমোক্র্যাটদের হুমকি দিয়ে লিখেছিলেন, 'খুব ভাল কথা। আগামী দিনে আসুন ডেমোক্র্যাট প্রেসিডেন্ট। হাউসের দখল তখন থাকবে রিপাবলিকানদের হাতে। তখন বুঝবেন, কত ধানে কত চাল! শুধু রাজনৈতিক ফায়দা নিতে ইমপিচ করতে চাইলে, ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি হবেই।'

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে এখনও পর্যন্ত দু জন প্রেসিডেন্টের ইমপিচমেন্ট হয়েছে৷ ১৮৬৮ সালে প্রেসিডেন্ট অ্যান্ড্রু জনসন ও ১৯৯৮ সালে ইমপিচমেন্ট হয় বিল ক্লিন্টনের৷ তবে তাঁরা অবশ্য পদ থেকে অপসারিত হননি৷ মার্কিন কংগ্রেসের উচ্চকক্ষে তাঁদের অপসারণের বিরুদ্ধে সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোট পড়ে৷ ১৯৭৪ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট রিচার্ড নিক্সন ইমপিচমেন্ট নিশ্চিত জেনে, নিজেই পদত্যাগ করেছিলেন৷ ডোনাল্ড ট্রাম্প মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তৃতীয় প্রেসিডেন্ট, যিনি ইমপিচমেন্টে কলঙ্কিত হলেন৷

First published: December 19, 2019, 8:54 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर