বিদেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

ফেলে দেওয়া টায়ার থেকে চোখ ধাঁধানো ভাস্কর্য ! করোনার মাঝেই নজর কাড়ল চিন

ফেলে দেওয়া টায়ার থেকে চোখ ধাঁধানো ভাস্কর্য ! করোনার মাঝেই নজর কাড়ল চিন

প্লাস্টিক ও রবারজাত বর্জ্য থেকে মুক্তি পেতে লড়ছে পুরো বিশ্ব। ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্টের একাধিক পন্থাও বের করা হচ্ছে। নানা দেশ এই লক্ষ্যে নানা ধরনের অভিনব পদক্ষেপ করছে।

  • Share this:

#বেজিং: প্লাস্টিক ও রবারজাত বর্জ্য থেকে মুক্তি পেতে লড়ছে পুরো বিশ্ব। ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্টের একাধিক পন্থাও বের করা হচ্ছে। নানা দেশ এই লক্ষ্যে নানা ধরনের অভিনব পদক্ষেপ করছে। তবে চিনের এই ভাস্কর্য-শিল্পীরা নজর কেড়েছেন বিশ্ববাসীর। রাস্তার পাশে পড়ে থাকা অব্যবহৃত টায়ার দিয়ে গড়ে তুলেছেন চোখধাঁধানো সব ভাস্কর্য। ড্রাগন, গরিলা থেকে একের পর এক প্রাণীর ভাস্কর্য গড়ে উঠেছে পরিত্যক্ত টায়ার থেকে। সম্প্রতি সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট-এর ট্যুইটারে (Twitter) একটি ভিডিও শেয়ার করা হয়েছে। ক্যাপশনে লেখা রয়েছে, পরিত্যক্ত টায়ারকে 'দ্বিতীয় জীবন' দান করেছেন সিচুয়ান প্রদেশের ভাস্কর্য-শিল্পীরা। ভিডিওটির প্রথমে দেখা যাচ্ছে, তিনজন শিল্পী মিলে একটি দৈত্যাকৃতি সোনালি রঙের ড্রাগন তৈরি করছেন। ৮ মিটার লম্বা এই ড্রাগন তৈরি করতে ১০০০-এরও বেশি টায়ার লেগেছে। ড্রাগনটি তৈরি করতে ২০ দিনের বেশি সময় নিয়েছেন তাঁরা। এর পর নজর যাবে একটি বৃহৎ আকারের গরিলার উপরে। কিং কং সিনেমা থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে টায়ার দিয়েই ৩.৫ মিটার লম্বা এই ভাস্কর্য তৈরি করা হয়েছে। ভাস্কর্যগুলির মূল কাঠামো বিভিন্ন ধরনের ধাতু ও কাঠ দিয়ে তৈরি করা হয়েছে। এর পর ওই টায়ারগুলিকে পরিস্কার করে, বিভিন্ন আকৃতিতে কাটা হয়েছে। এবার কাঠামো অনুযায়ী বসানো হয়েছে টায়ারের টুকরোগুলিকে। কিছু ক্ষেত্রে পালক-সহ ছোট ছোট বিষয়গুলিকে বোঝাতে টায়ারগুলিকে একদম সূক্ষ্ম ভাবে কাটা হয়েছে।

উল্লেখ্য, এই গ্রুপের এক সদস্য দীর্ঘ দিন ধরেই এই ধরনের কাজের সঙ্গে যুক্ত। এক দশকের বেশি সময় ধরে একের এক ভাস্কর্য নির্মাণ করে চলেছেন তিনি। গ্রুপের এক সদস্যের তরফে জানা গিয়েছে, চিনের ১২টি জোডিয়াক সাইনের কথা মাথায় রেখে একটা সামগ্রিক প্রদর্শনীর ব্যবস্থা করছেন তাঁরা। এক্ষেত্রে ফেলে দেওয়া টায়ার থেকেই ইঁদুর, ড্রাগন, কুকুর, বাঘ, ছাগল, সাপ, ষাঁড়, খরগোশ, শূকর, ঘোড়া-সহ মোট ১২টি প্রাণীর ভাস্কর্য নির্মাণ করা হবে। এক শিল্পী জানিয়েছেন, প্রায়শই শহরের রাস্তার আশেপাশে একাধিক টায়ার পড়ে থাকতে দেখেন তাঁরা। অনেকে জ্বালিয়ে দেন ওই টায়ারগুলো। কোথাও আবার মাসের পর মাস এমনিই পড়ে থাকে তা। তাই পরিত্যক্ত পুরনো টায়ারগুলিকে নতুন করে জীবন দেওয়ার একটা পরিকল্পনা মাথায় আসে। এতে রাস্তার ধারে এদিক-ওদিক আর বর্জ্যগুলি পড়ে থাকবে না। পাশাপাশি একটি ভাস্কর্যের নির্মাণও করা যাবে। ভিডিওতে দেখুন, কীভাবে অব্যবহৃত টায়ার থেকে তৈরি হচ্ছে কিং কং ও ড্রাগন- https://twitter.com/SCMPNews/status/1346844221542547456 তবে চিনে এ হেন উদ্যোগ প্রথমবার নজর কাড়ছে না। কয়েক বছর আগে পূর্ব চিনের শানডং প্রদেশের জাওজুয়াং শহরের জিয়ানটৌজিতে প্রায় ১০,০০০ অব্যবহৃত টায়ার দিয়ে একটি ভাস্কর্য গড়ে তোলা হয়েছিল।

Published by: Akash Misra
First published: January 11, 2021, 7:52 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर