Bizarre: অকল্পনীয়! মুরগি মারার পাপে কী ভাবে জনমানবশূন্য হয়ে গিয়েছে এই শহর, জানুন

অকল্পনীয়! মুরগি মারার পাপে কী ভাবে জনমানবশূন্য হয়ে গিয়েছে এই শহর, জানলে গায়ে কাঁটা দেবে!

ধীরে ধীরে তিনি উন্মোচিত করেছেন এই শহরের নাম বদলে যাওয়া এবং তার নেপথ্যে থাকা মানুষের পাপ-প্রবৃত্তিকে।

  • Share this:

#টেক্সাস: মানুষের নামের চেয়েও অনেক বেশি চিত্তাকর্ষক আর গুরুত্বপূর্ণ হয়ে থাকে কোনও জায়গার নাম। কেন না, মানুষের জীবনে দি উল্লেখ রার মতো কিছু থাকে, তাহলে সেটা হল সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির কীর্তি। কিন্তু এই ব্যাপারে স্থাননাম লোকনামের চেয়ে বেশ কয়েক কদম এগিয়ে থাকে। সংশ্লিষ্ট স্থান যেমন প্রথিতযশা ব্যক্তিদের কীর্তির জন্য প্রসিদ্ধ বা স্থানীয়দের অপকীর্তির জন্য কুখ্যাত হয়ে উঠতে পারে, তেমনই আবার স্রেফ অভিনব নাম আর সেই নামকরণের ঐতিহাসিক সূত্র ধরেও জায়গা করে নিতে পারে মানুষের মনে।

ইউনাইটেড স্টেটসের অন্তর্গত টেক্সাসের তেমনই এক শহরের নাম চিকেনফেদার (Chickenfeather)! নামটা শুনলেই চোখের সামনে ঠিক যেমন হাওয়ায় উড়তে থাকা মুরগির পালকের ছবি চোখের সামনে ভেসে ওঠে, এই নামকরণের নেপথ্যেও ছি তেমন ঘটনাই, তফাতের মধ্যে তা কল্পনার চেয়েও বেশি নৃশংস! যে ঘটনাকে এখনও পাপ হিসাবে আখ্যা দিয়ে থাকেন টেক্সাসের ওই শহরের প্রাক্তন অধিবাসীরা। প্রাক্তন, কেন না ওই শহরে বর্তমানে আর কেউ থাকেন না!

এই প্রসঙ্গে ওই শহরের এক প্রাক্তন অধিবাসী এবং পেশায় ঐতিহাসিক জন ডালিন (John Dulin) জানিয়েছেন যে এক সময়ে টেক্সাসের এই ছোট সুখী শহরটির নাম ছিল নিউ হোপ (New Hope)। ধীরে ধীরে তিনি উন্মোচিত করেছেন এই শহরের নাম বদলে যাওয়া এবং তার নেপথ্যে থাকা মানুষের পাপ-প্রবৃত্তিকে।

ডালিন জানিয়েছেন যে সময়টা ছিল ১৯১০ সাল। সেই সময়ে শহরের জনাকয়েক তরুণ গিয়েছিল শিকারে। রাতে তারা যখন শূন্য হাতে ফিরে আসে শহরে, তখন মজা করার জন্য এবং শিকারের রক্তপিপাসা শান্ত করার জন্য ধর্মযাজকের খামার থেকে সবক'টা মুরগি চুরি করে। কয়েকটা কেটে খায় তারা, বাকিগুলো ছিন্নভিন্ন করে ফেলে দেয় শহরের জলের একমাত্র উৎস এক কুয়োয়। ফলে, পরের দিন সকালে ধর্মযাজক যেমন শূন্য খামার দেখে ব্যথিত হয়েছিলেন, তার চেয়েও বেশি আতঙ্কিত হয়েছিল শহরের অধিবাসীরা জলের কল থেকে মুরগির পালক বেরিয়ে আসতে দেখে!

ওই কুয়োটার যে সংস্কারসাধন করা হয়েছিল, সে কথা জানিয়েছেন ডালিন। কিন্তু মৃত মুরগির দেহাবশেষ পড়ে থাকা ওই কুয়োর জল ব্যবহারে নারাজ হয়ে ঘটনার পরের দিন থেকেই দলে দলে লোকে শহর ছাড়তে শুরু করে। একসময়ে শহর পুরো ফাঁকা হয়ে যায়, এক খনননকার্য সংস্থা নিজেদের কাজের জন্য ওই অঞ্চল কিনে নেয়। আপাতত কেবল বছরে একটা দিনে কোনও কোনও প্রাক্তন অধিবাসী ওই শহরে গিয়ে নিজেদের অতীত জীবনের উদযাপন করেন। কিন্তু শহর আর তাঁদের মনে নতুন আশা জাগায় না, তা কেবল চিকেনফেদারের ভয়াবহ স্মৃতি বুকে নিয়ে শূন্যই পড়ে থাকে!

First published: