Home /News /international /
Covid 19: তিনজনের মধ্যে একজনের মৃত্যু! করোনার নতুন রূপ নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ চিনের

Covid 19: তিনজনের মধ্যে একজনের মৃত্যু! করোনার নতুন রূপ নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ চিনের

A woman receives a throat swab test at a street booth in China. (Image: Thomas Peter/Reuters)

A woman receives a throat swab test at a street booth in China. (Image: Thomas Peter/Reuters)

Covid 19: চিনের গবেষকরা বলছেন, এই নতুন রূপে দুটি ঘাতক বৈশিষ্ট্যের সমন্বর দেখা দিয়েছে। একটি হল মার্স কোভ রূপের মৃত্যু হার ও বর্তমান করোনার রূপের মতো সংক্রমণের ক্ষমতা।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: চিনের যে শহরের গবেষণাগারে প্রথমবার করোনা ভাইরাসের (Covid 19) উপস্থিতি জানা গিয়েছিল, চিনের সেই উহানের বিজ্ঞানীরা বলছেন, এসেছে করোনার (Covid 19) এক নতুন রূপ। যেটির উপস্থিতি লক্ষ্য করা গিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকায়। যেটির সংক্রমণের ক্ষমতা অত্যাধিক। এ ছাড়া এই রূপে আক্রান্তদের প্রতি তিনজনের মধ্যে একজনের মৃত্যুও হচ্ছে। রাশিয়ার সংবাদ সংস্থা দ্বারা প্রকাশিত একটি খবরে এই দাবি করা হয়েছে।

    আরও পড়ুন - দেশে করোনার গ্রাফ নিম্নমুখী, রাজ্যে কমল কোভিড পরীক্ষার খরচ

    যদি গবেষকদের তরফ থেকে বলা হয়েছে, এই নিয়ো কভ (Neo Cov) নামে নতুন রূপটি একেবারেই নতুন নয়। মার্স কোভ ভাইরাসের সঙ্গে যুক্ত এই রূপটি ২০১২ থেকে ২০১৫ সালে মধ্য-পশ্চিম বা এশিয়ার মধ্যাঞ্চলের দেশগুলির মধ্যে আগে দেখা গিয়েছিল। সেক্ষেত্রেও মানুষের শরীরে কোভিডের (Covid 19) উপস্থিতি লক্ষ্য করা গিয়েছিল। এ ক্ষেত্রে ভাইরাসের নতুন রূপটি পাওয়া গিয়েছিল শুধু মাত্র বাদুড়ের শরীরে। কিন্তু সাম্প্রতিক গবেষণা পত্রে দেখা গিয়েছে, শুধু বাদুড়ের শরীরে নয়, এটি মানুষের শরীরেও সংক্রমণ ঘটাতে পারে।

    আরও পড়ুন- দীর্ঘস্থায়ী কোভিডের লক্ষণ নিয়ে চিন্তিত? চিহ্নিত করার লক্ষণগুলি জেনে নিন

    চিনের গবেষকরা বলছেন, এই নতুন রূপে দুটি ঘাতক বৈশিষ্ট্যের সমন্বর দেখা দিয়েছে। একটি হল মার্স কোভ রূপের মৃত্যু হার ও বর্তমান করোনার রূপের মতো সংক্রমণের ক্ষমতা। স্বাভাবিক কারণে এটি নিয়ে যে চিন্তা করার যথেষ্ট কারণ রয়েছে, তা মনে করছেন গবেষকরা। কারণ, সংক্রমণের ক্ষমতা এতটাই থাকলে অনেক মানুষের মৃত্যু হতে পারে নতুন রূপের আক্রমণে। এই নিয়ে রাশিয়ার ভাইরোলজি সেন্টারের তরফ থেকে একটি বিবৃতিও জারি করা হয়েছে।

    Published by:Uddalak B
    First published:

    Tags: Coronavirus

    পরবর্তী খবর