বাজেট আলোচনাকে থোড়াই কে‌য়ার!‌ ফোনে হাঁ করে নোংরা ছবি দেখছেন সাংসদ

বাজেট আলোচনাকে থোড়াই কে‌য়ার!‌ ফোনে হাঁ করে নোংরা ছবি দেখছেন সাংসদ
আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সান–এর রিপোর্ট অনুসারে, দেখা গিয়েছে, ওই সাংসদ উত্তেজনায় নিজের মাস্ক সরিয়ে ফেলেছিলেন।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সান–এর রিপোর্ট অনুসারে, দেখা গিয়েছে, ওই সাংসদ উত্তেজনায় নিজের মাস্ক সরিয়ে ফেলেছিলেন।

  • Share this:

    দায়িত্বজ্ঞানহীনতার চরম পর্যায় বলা যায় একে। কোথায় মানুষ ভোট দিয়ে সাংসদ নির্বাচন করে পাঠিয়েছে কাজ করার জন্য। আইনসভায় বসে দেশের উন্নতির কাজে মন দেওয়ার জন্য। কিন্তু সেই উন্নতির কথা ভুলে থাইল্যান্ডের সাংসদ রোনথেপ অনুওয়াতের মন পড়ে আছে পর্নোগ্রাফিতে। তাই লোভ সামলাতে না পেরে সংসদ ভবনের মধ্যে, বাজেট অধিবেশন চলাকালীনই তিনি খুলে ফেলেছেন ফোন। সেখানেই মজা লুঠছেন তিনি। কিন্তু তাঁর এই কার্যকলাপ ধরা পড়ে যাবে ক্যামেরায়, আর রসিক সাংসদের শেষে মাথা কাটা যাবে লজ্জায়, তা আন্দাজ করতে না পেরেই টানা দশ মিনিট নোংরা ছবি দেখলেন তিনি। আর সেই ছবি ধরা পরে গেল সিসিটিভি ক্যামেরায়। সেই ভিডিও ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। বাধ্য হয়ে শেষে আসরে নেমে ক্ষমা চাইতে হল সাংসদকে।

    আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সান–এর রিপোর্ট অনুসারে, দেখা গিয়েছে, ওই সাংসদ উত্তেজনায় নিজের মাস্ক সরিয়ে ফেলেছিলেন। ফোনে তখন দেখা যাচ্ছিল, এক নারীর উর্ধাঙ্গ উন্মুক্ত। পাশে একেবারে নগ্ন অবস্থায় শুয়ে আছেন আরও এক নারী। সাংসদের এই ছবিই ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। তারপর বাধ্য হয়ে নিজের ভুলের কথা স্বীকার করেন তিনি। কিন্তু সঙ্গে এক অদ্ভুত যুক্তিও দেন। তিনি স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে বলেছেন, তখন এক মহিলা তার কাছ থেকে সাহায্যের আবেদন করেন। তিনি সেই সময়ে ছবিগুলো দেখে বুঝতে চেষ্টা করছিলেন, ওই মহিলাকে সত্যিই সাহায্য করা উচিত কি না। যদিও এইযুক্তি হাস্যকর । কাজেই তা ধোপে টেকেনি। এরপরেও প্রশ্ন করে গিয়েছেন সাংবাদিকেরা। তখন সাংসদ বলেছেন, তাঁরও একটা ব্যক্তিগত জীবন রয়েছে, সেখানে হস্তক্ষেপ করাটা একেবারে কাজের কথা নয়।

    Published by:Uddalak Bhattacharya
    First published:

    লেটেস্ট খবর