corona virus btn
corona virus btn
Loading

নাকের উপর ব্রন খুঁটে তোলার ফল হল মারাত্মক! এই মহিলা এখন মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন‌

নাকের উপর ব্রন খুঁটে তোলার ফল হল মারাত্মক! এই মহিলা এখন মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন‌

চিনের বাসিন্দা ১৯ বছরের ইয়ংয়ের কয়েকদিন ধরেই চোখের তলায় ব্যথা হচ্ছিল। সেই ব্যথার পাশাপাশি, নাকের উপরেও ব্যথা হতে থাকে তাঁর। তারপর একদিন ব্রণর মতো একটি জিনিস দেখে তিনি নিজে হাত দিয়ে তুলে দেন।

  • Share this:

#‌বেজিং:‌ অনেকেরই অভ্যাস আছে মুখের ব্রন খুঁটে তুলে দেওয়ার। তাতে সংক্রমণ হতে পারে জেনেও অনেকে নিজেক অজান্তেই যেন ব্রন খুঁটে তুলে দেন। কিন্তু সেই অভ্যাস মোটেই সুফল আনতে পারে না, সে কথা প্রমাণিত হয়েছে চিনের একটি ঘটনায়। চিনের বাসিন্দা ১৯ বছরের ইয়ংয়ের কয়েকদিন ধরেই চোখের তলায় ব্যথা হচ্ছিল। সেই ব্যথার পাশাপাশি, নাকের উপরেও ব্যথা হতে থাকে তাঁর। তারপর একদিন ব্রণর মতো একটি জিনিস দেখে তিনি নিজে হাত দিয়ে তুলে দেন। কিন্তু তার পরের দিনই হঠাৎ করে সকাল থেকে জ্বর আসতে শুরু করে। হঠাৎ করে তাঁর শরীর খারাপ হয়ে যায়। সেই কারণে তাঁকে সঙ্গে সঙ্গে নিয়ে যেতে হয় হাসপাতালে। তাঁর ডান চোখ লাল হয়ে যায়। সব মিলিয়ে এক কঠিন শারীরিক পরিস্থিতির মধ্যে পড়েন তিনি। স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম এমনই খবর জানিয়েছে।

কিন্তু কী হয়েছে ওই মহিলার? চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, সাইনাস থম্বোসিসের চিকিৎসা করতে হচ্ছে ওই মহিলার। সাইনাসে রক্ত জমে গেলে এই ধরনের চিকিৎসা করতে হয়। নাক, কান, দাঁতে সংক্রমণ হলে সেখান থেকে এই রোগ হতে পারে। এমনকী সঙ্গে সঙ্গী চিকিৎসা হলেও জীবনসংকট হতে পারে এই রোগে আক্রান্তের। চিকিৎসকরা আরও জানিয়েছে, নাকের উপর একটি ব্রন খুঁটে তুলে দেওয়ার জন্যই সেখান থেকে সংক্রমণ‌ ছড়িয়েছে ইয়ংয়ের মাথায়। যেখানে ওনার ব্রন হয়েছিল, সেটিকে ট্রায়াঙ্গল অফ ডেথ বলা হয়। তাই চিকিৎসকা বলছেন, সেখানে ব্রন হলে হাত দিয়ে কিছু না করাই ভাল। কারণ এই কারণেই যখন ইয়ংকে হাসপাতালে আনা হয়, তখন তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক ছিল। তারপর স্নায়ুর চিকিৎসকরা তাঁর চিকিৎসা শুরু করেন। তারপর দীর্ঘসময় ধরে অ্যান্টিবায়োটিক খেয়ে সামান্য সুস্থ হয়েছেন তিনি। কারণ এর প্রভাব সরাসরি পড়েছে মাথায়। চোখের থেকে একটি স্নায়ু যায় মাথায়। সেই স্নায়ুতে সরাসরি প্রভাব পড়ায় সমস্যা বেড়েছে।

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: September 9, 2020, 1:13 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर