বাড়িতে ছাত্রদের মাদক বানানো শেখাতেন ! কাঠগড়ায় খোদ শিক্ষক

representative image

  • Share this:

    #জাপান: শিক্ষকই যখন ভক্ষক! সম্প্রতি ছাত্রদের দিয়ে সিন্থেটিক ড্রাগ এমডিএমএ বানানোর অভিযোগ উঠল খোদ অধ্যাপকের বিরুদ্ধে। অবশ্য, এই অভিযোগকে অস্বীকার করে অধ্যাপকের পাল্টা দাবি, শিক্ষামূলক কাজের জন্যই ওই মাদক বানানো হচ্ছিল।

    এমডিএমএ স্নায়বিক উত্তেজকবর্ধক মাদক। বিভিন্ন রেভ পার্টিতে এর চাহিদা প্রচুর। জানা গিয়েছে, গোপন সূত্রে খবর পেয়েই জানাপনের ওই অধ্যাপকের গবেষণাগারে হানা দেন তদন্তকারীরা। কিন্তু সেখানে এমডিএমএ-র কোনও চিহ্ন না পাওয়া গেলেও অন্য মাদক মিলেছে বলে দাবি তদন্তকারীদের। তাঁরা জানিয়েছেন, মাত্সুয়ামা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মাসিউটিক্যাল সায়েন্স-এর অধ্যাপক তিনি, নাম তাতসুনোরি ইয়ামুরা।

    বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রের খবর, ২০১৩ থেকে ছাত্রদের দিয়ে ওই নিষিদ্ধ মাদক তৈরি করাচ্ছিলেন ইয়ামুরা। ১১ জন প্রাক্তন ছাত্রদের এই কাজে লাগানো হয়েছিল বলেও বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে দাবি করা হয়েছে। জাপানের আইন বলছে, শিক্ষামূলক কাজের জন্য যদি কোনও নিষিদ্ধ মাদক তৈরি করা হয়, তা হলে স্থানীয় প্রশাসনের কাছ থেকে অনুমতি নিতে হবে। তদন্তকারীরা বলছেন, ইয়ামুরা এ ব্যাপারে কোনও অনুমতিই নেননি। যদি প্রমাণিত হয় যে ইয়ামুরা শিক্ষামূলক নয়, অন্য উদ্দেশ্যে এই নিষিদ্ধ মাদক তৈরি করছিলেন, তা হলে তাঁর ১০ বছরের জেল হতে পারে!

    First published: