চিন, আরব, আমেরিকা; ২০২১-এ সবাই কেন ব্যস্ত মঙ্গল অভিযানে?

চিন, আরব, আমেরিকা; ২০২১-এ সবাই কেন ব্যস্ত মঙ্গল অভিযানে?

কে সবার আগে চাঁদে নিজের দেশের মহাকাশযান পাঠাবে, তা নিয়ে একটা রেষারেষি তো অনেক বছর হয়ে গেল বিশ্বের তাবড় তাবড় দেশগুলোর মধ্যে চলছে। এবার কি বিষয়টা চাঁদ থেকে সরে এসেছে মঙ্গল গ্রহ নিয়ে?

কে সবার আগে চাঁদে নিজের দেশের মহাকাশযান পাঠাবে, তা নিয়ে একটা রেষারেষি তো অনেক বছর হয়ে গেল বিশ্বের তাবড় তাবড় দেশগুলোর মধ্যে চলছে। এবার কি বিষয়টা চাঁদ থেকে সরে এসেছে মঙ্গল গ্রহ নিয়ে?

  • Share this:

#ওয়াশিংটন: কে সবার আগে চাঁদে নিজের দেশের মহাকাশযান পাঠাবে, তা নিয়ে একটা রেষারেষি তো অনেক বছর হয়ে গেল বিশ্বের তাবড় তাবড় দেশগুলোর মধ্যে চলছে। এবার কি বিষয়টা চাঁদ থেকে সরে এসেছে মঙ্গল গ্রহ নিয়ে?

২০২১ সাল এবং মঙ্গল গ্রহে অভিযান- এই দুই বিষয়কে যদি পাশাপাশি রাখা যায়, তা হলে এমন কথা বলা যেতেই পারে। কেন না খবর বলছে যে চলতি বছরে সংযুক্ত আরব আমিরশাহি, ইউনাইটেড স্টেটস আর চিন- এই তিন দেশই মঙ্গল গ্রহে নিজের নিজের মহাকাশযান পাঠাচ্ছে।

চিন: সবার প্রথমে আসা যায় চিনের কথায়। খবর মোতাবেকে, চিনের তরফ থেকে তিয়ানওয়েন ১ নামে একটি মহাকাশযান মঙ্গল গ্রহে যাচ্ছে। তিয়ানওয়েন শব্দটির মানে হল স্বর্গীয় সত্যের সন্ধান। স্বর্গীয় না হলেও লাল গ্রহ সম্পর্কিত মহাজাগতিত সত্য উদঘাটন করার লক্ষ্যে বদ্ধপরিকর চিন। জানা গিয়েছে যে এই মহাকাশযান মঙ্গল গ্রহের ইউটোপিয়া প্ল্যানেশিয়া নামের অংশে অবতরণ করবে। প্রসঙ্গত, ইউনাইটেড স্টেটসের পর চিন-ই হবে দ্বিতীয় দেশ যারা মঙ্গলের মাটিতে নামবে। বেশ কয়েক মাস মঙ্গল গ্রহের চার দিকে ঘুরপাক খেয়ে, সব দিক ভালো করে পর্যবেক্ষণ করে তবেই সেখানে অবতরণ করা হবে বলে সূত্রে জানা গিয়েছে।

সংযুক্ত আরব আমিরশাহি: চিন যেমন মঙ্গল গ্রহে নেমে তার মাটি, পাথর তুলে আনবে, সেখানে জল আছে কি না তা খুঁজবে, সংযুক্ত আরব আমিরশাহির মঙ্গলযান সেটা করবে না। তবে তাদের মঙ্গলযাত্রাও কিছু কম রোমাঞ্চকর নয়। মঙ্গল গ্রহের কক্ষপথে সব চেয়ে কম দূরত্ব রেখে প্রবেশ করবে হোপ প্রোব নামে মহাকাশযানটি, খবর মোতাবেকে মঙ্গলের পৃষ্ঠতল থেকে মাত্র ১০০০ কিলোমিটার উপরে অবস্থান করবে তারা। জানা যাচ্ছে যে এই কক্ষপথে প্রবেশের কাজটা চলতি বছরের ৯ ফেব্রুয়ারির মধ্যেই সম্পন্ন হয়ে যাবে। মঙ্গলের হিসেবে এক বছর অর্থাৎ পৃথিবীর হিসেবে ৬৮৭ দিন সেখানে অবস্থান করবে হোপ প্রোব।

ইউনাইটেড স্টেটস: মহাকাশ সম্পর্কিত যে কোনও কিছুর কথা বললেই এই দেশের ন্যাশনাল অ্যারোনটিকস অ্যান্ড স্পেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন ওরফে নাসা-র কথা সবার আগে মাথায় আসে। মঙ্গলে যাত্রার ব্যাপারে চলতি বছরে পিছিয়ে নেই নাসা-ও। এই সংস্থার প্রিজার্ভারেন্স নামের মঙ্গলযান লাল গ্রহে চলতি বছরের ১৮ ফেব্রুয়ারি নামতে চলেছে বলে শোনা যাচ্ছে। খবর মোতাবেকে, তারাই পৃথিবীতে সবার আগে মঙ্গল গ্রহের পাথর এবং মাটি নিয়ে ফিরে আসবে। যা পরীক্ষা করে দেখা হবে যে মঙ্গল গ্রহে কোনও অণুজীবেরও অস্তিত্ব রয়েছে কি না!

Published by:Piya Banerjee
First published: