• Home
  • »
  • News
  • »
  • international
  • »
  • TALIBAN TERROR FOUNDER OF GIRLS SCHOOL IN AFGHANISTAN BURNS RECORDS TO SHIELD STUDENTS WATCH SANJ

Taliban Terror : ছাত্রীদের যেন ছুঁতে না পারে ভয়ঙ্কর তালিবান! আফগান মেয়েদের স্কুলের প্রতিষ্ঠাতার নজিরবিহীন কীর্তি...

অগ্নিস্নানে শুচি হোক ধরা

Taliban Terror : ছাত্রীদের রক্ষা করতে মরিয়া হয়ে চরম সিদ্ধান্ত নিলেন আফগানিস্তানের (Afghanistan Crisis) একমাত্র মেয়েদের স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা।

  • Share this:

    #কাবুল : তালিবানদের হাত থেকে স্কুলের ছাত্রীদের রক্ষা করতে মরিয়া হয়ে চরম সিদ্ধান্ত নিলেন আফগানিস্তানের (Afghanistan Crisis) একমাত্র মেয়েদের স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা। তালিবানের (Taliban) ভয়ে পুড়িয়ে দিলেন স্কুলের সমস্ত ছাত্রীর রেকর্ড। আর সেই ভিডিও পোস্ট করলেন ট্যুইটারে (Twitter)। যা আরও একবার প্রকাশ করল তালিবান অধ্যুষিত আফগানিস্তানের আসল ছবিটা। নয়া তালিবান জমানায় সেদেশের মেয়েরা কত বড় অন্ধকারের সামনে দাঁড়িয়ে তা স্পষ্ট হয়ে উঠছে ভিডিওটির ভিতরে।

    গোটা আফগানিস্তানে ওই একটিই মেয়েদের স্কুল। আর সেই স্কুলের ভবিষ্যৎ কার্যত আগুনের শিখায় ছাই হয়ে গেল এদিন। স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা শাবানা বাসিজ-রসিক তাঁর সামাজিক মাধ্যম হ্যান্ডেলটিতে ছাত্রীদের রেকর্ড পোড়ানোর বিষয়ে লেখেন, ”আফগানিস্তানের একমাত্র মেয়েদের বোর্ডিং স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে আমি সমস্ত ছাত্রীর রেকর্ড পুড়িয়ে দিলাম। ছাত্রীদের মুছে ফেলতে নয়, তাদের ও তাদের পরিবারকে রক্ষা করতে। আমি এই বিবৃতি দিচ্ছি মূলত আমাদের ছাত্রীদের পরিবারকে এটা বোঝাতে যে, আমরা এই রেকর্ড পোড়ালাম আমাদের ছাত্রীদের ও আমাদের সমর্থকদের নিরাপত্তা দিতে।”

    আগুনে পোড়ানোর ভিডিওর পোস্টে তাঁকে আক্ষেপ করতে দেখা গিয়েছে, "২০০২ সালের মার্চে তালিবানের পতনের পরে হাজার হাজার আফগান মেয়েকে নিকটবর্তী স্কুলে ভরতি হতে পরীক্ষা দিতে হয়েছিল। কেননা তালিবান সমস্ত ছাত্রীর রেকর্ড পুড়িয়ে দিয়েছিল। তাদের মধ্যে আমিও ছিলাম।”

    গত সাতদিন ধরে আফগানিস্তানে চলছে তালিবানিরাজ। ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে ফতোয়া দেওয়া। শুরুতে তারা জানিয়েছিল, শরিয়তে মহিলাদেরও অধিকার আছে। তাদের নিরাপত্তায় তালিবান যথেষ্ট যত্নবান। বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত পড়াশোনা করতে পারবে দেশের মেয়েরা। কিন্তু দিন ঘুরতে না ঘুরতেই কথায় আর কাজে আকাশ-পাতাল তফাৎ দেখিয়ে দিল জঙ্গিবাহিনী। এবার তারা কো-এডুকেশন স্কুলে অর্থাৎ ছেলেমেয়ের একসঙ্গে পড়াশোনা বন্ধ করার ফতোয়া জারি করে ফেলেছে। এই পরিস্থিতিতে স্কুলে আসা মেয়েদের রেকর্ড পোড়ানোর পথে হাঁটতে হল শাবানাকে। তিনি বুঝতে পেরে গিয়েছেন আগামী দিন আরও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে চলেছে। মেয়েদের ওপর নেমে আসতে পারে ভয়াবহ নৃশংসতা। তাই সেই অন্ধকার গ্রাস করার আগেই আগুন জ্বালালেন শাবানা। স্কুলের মেয়েদের নিরাপত্তা দিতেই তাঁর এই কঠিন সিদ্ধান্ত এমনটাই জানিয়েছেন নারী শিক্ষার জাগরণের মশাল জ্বালানো এক নারী।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: