সংসদে ইমরান খানের বক্তৃতা বাতিল, জানাল শ্রীলঙ্কা সরকার

সংসদে ইমরান খানের বক্তৃতা বাতিল, জানাল শ্রীলঙ্কা সরকার
ইমরানের বক্তৃতার অনুমতি দিল না শ্রীলঙ্কা

পূর্ব নির্ধারিত সূচি হঠাৎ বদল জানিয়ে দিল লঙ্কা প্রশাসন। করোনা আবহের কারণে ইমরানকে বক্তৃতা দিতে দেওয়া হবে না পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছে শ্রীলঙ্কা

  • Share this:

    #কলম্বো: আগামী সোমবার শ্রীলঙ্কা সফরে যাওয়ার কথা ইমরান খানের। বুধবার সংসদ ভবনে বক্তব্য রাখার কথা পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর। কিন্তু পূর্ব নির্ধারিত সূচি হঠাৎ বদল জানিয়ে দিল লঙ্কা প্রশাসন। করোনা আবহের কারণে ইমরানকে বক্তৃতা দিতে দেওয়া হবে না পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছে শ্রীলঙ্কা।দ্বীপরাষ্ট্রটির পার্লামেন্টের স্পিকার মাহিন্দা অভয়বর্ধন বলেন, বিশেষ কারণে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর পার্লামেন্টে বক্তৃতা বাতিল করা হয়েছে। কিন্তু এই যুক্তি মানতে নারাজ কূটনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

    তাঁরা মনে করেন লঙ্কান সংসদে দাঁড়িয়ে কাশ্মীর প্রসঙ্গ উত্থাপন করতে পারেন ইমরান এমন সম্ভাবনা প্রবল। কদিন আগেই ইমরান জানিয়েছিলেন কাশ্মীরের মানুষ বেছে নিন তাঁরা কোন দেশের সঙ্গে থাকতে চান। এমনকি পাকিস্তানের সঙ্গে না থেকে আলাদা দেশ হতে চাইলেও পাকিস্তানের হাতে থাকা কাশ্মীরকে সেই ক্ষমতা দিয়ে দিতে চান তিনি। তবে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর এই কথার জবাব দেয়নি ভারত।

    ভারতের সঙ্গে সুসম্পর্ক থাকায় সেটা করতে দেবে না প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপক্ষের সরকার। আসলে কাশ্মীর নিয়ে বিশ্বের একটা জনমত গড়ে তোলাই লক্ষ্য পাকিস্তানের। এর পেছনে চিন এবং তুরস্ক সাহায্য করছে ইমরান খান প্রশাসনকে। এই মুহূর্তে চিনের প্রভাব থেকে বেরিয়ে ভারতের সঙ্গে বন্ধুত্বের সম্পর্ক আরও মজবুত করতে চায় দ্বীপরাষ্ট্রটি। রাজধানী কলম্বোয় সর্বদলীয় বৈঠক করার পর এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এমনিতে ভৌগলিক অবস্থানের জন্য শ্রীলঙ্কার সঙ্গে বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রয়োজন রয়েছে ভারতের।


    তাছাড়া দুই দেশের ঐতিহ্য এবং সাংস্কৃতিক মিল আছে। এমনিতেও ইমরান খানের সামনে কঠিন চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করছে। কদিনের ভেতরেই এফএটিএফ চূড়ান্ত রিপোর্ট প্রকাশ করবে। তাতে গ্রে থেকে ব্ল্যাক লিস্টে যেতে হয় কিনা সেটাই এখন পাকিস্তানের প্রধান চিন্তা। নতুন নিষেধাজ্ঞা জারি হলে ইমরান খানের রাতের ঘুম উড়ে যাবে সন্দেহ নেই। তার আগে শ্রীলঙ্কা সরকারের এই ঘোষণা ইমরানের লজ্জা বাড়াল।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: