বৃহদাকার কুমীরের উপরে চড়েছেন এক ব্যক্তি! ভাইরাল ছবিতে ছড়িয়ে পড়েছে ক্ষোভ!

এবারের ঘটনা একেবারে উল্টো- বাগে পেয়ে কুমিরকেই নাকাল করার ঘটনা উঠে এল প্রকাশ্যে!

এবারের ঘটনা একেবারে উল্টো- বাগে পেয়ে কুমিরকেই নাকাল করার ঘটনা উঠে এল প্রকাশ্যে!

  • Share this:

#মেলবোর্ন: প্রবাদে বলে- জলে বাস করে কুমিরের সঙ্গে বিবাদ করা উচিত নয় কখনই! কুমিরের হিংস্র স্বভাবের জন্যই এই প্রবাদের প্রচলন হয়েছে সন্দেহ নেই। তবে, শুধু জলেই নয়, ডাঙাতেও কিন্তু কুমির যথেষ্ট বিপজ্জনক! নাগালের মধ্যে পেলে সে যে শিকারকে পর্যুদস্ত করতে ছাড়ে না, তার প্রমাণ অহরহ মেলে বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকেই! কিন্তু এবারের ঘটনা একেবারে উল্টো- বাগে পেয়ে কুমিরকেই নাকাল করার ঘটনা উঠে এল প্রকাশ্যে!

সার্ফবোর্ডের মতো কুমীরের উপরে উঠে দাঁড়িয়েছেন এক ব্যক্তি। আর এই ভাইরাল ছবিটি নিয়ে রীতিমতো অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন । সরীসৃপ কিংবা যে কোনও বন্য প্রাণীদের সুরক্ষা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। আবার কিছু ক্ষেত্রে ছবিটি প্রশংসাও পেয়েছে।

ছবিতে আংশিক ভাবে অগভীর জলে ডুবে থাকা একটি কুমিরের উপরে এক ব্যক্তিকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। পেশায় ফটোগ্রাফার ওই ব্যক্তিকে অস্ট্রেলিয়ার অজ্ঞাত স্থানে সার্ফবোর্ডের মতো কুমিরের পিঠে উঠে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গিয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়া Reddit-এ প্রথম শেয়ার হওয়া এই ছবিটি ইতিমধ্যে ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। যদিও Reddit ব্যবহারকারীদের কাছ থেকে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়লে এটি মুছে ফেলা হয়। তবে বেশিরভাগ ব্যবহারকারী এই ব্যপারে লোকটির সমালোচনা করেছেন এবং সরীসৃপদের সুরক্ষা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। কিন্তু মজার বিষয় হল, এমন অনেক ব্যবহারকারীও রয়েছেন যাঁরা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে সমর্থন করেছেন। যেমন এই বিষয়ে একজন বলেছেন যে তিনি সঠিক কাজই করেছেন, যেহেতু ভিস (vis) স্কার্ট পড়েছেন, হাঁটু নিচু করেছেন এবং তিনি কী ভাবে দড়ি ধরতে হয়, সেটিও অত্যন্ত নিপুণতার সঙ্গে করেছেন। যে কোনও সেফটি ম্যানেজার এক্ষেত্রে গর্ব বোধ করবেন!

বন্যপ্রাণী সংক্রান্ত বিষয়ের জন্যই প্রায় প্রত্যেক সপ্তাহে আন্তর্জাতিক শিরোনামে আসে অস্ট্রেলিয়া। প্রসঙ্গত, সংশ্লিষ্ট দেশে সরীসৃপ সম্পর্কিত ঘটনা এত বেশি হয় যে, এখন আর কোনও প্রতিবেদনই মানুষকে অবাক করে না। অস্ট্রেলিয়ায় কারও উঠোনে দেখা দেওয়া কোনও কুমিরের ছবি যেন আজকাল স্বাভাবিক বলে মনে হয়। এদেশের কিছু মানুষ নিরাপদ পথ বেছে নিয়ে সরীসৃপ এবং অন্যান্য বন্য প্রাণীদের থেকে কিছুটা দূরত্ব বজায় রাখেন। আবার কিছু মানুষ নিজেদের সীমানা অতিক্রম করতে পছন্দ করেন, যেমনটা দেখা গেল এবারে!

First published: