Suez Canal- এ আটকে থাকা জাহাজ চলতে শুরু করল, বাকি জাহাজরাও এবার মুক্ত

Suez Canal- এ আটকে থাকা জাহাজ চলতে শুরু করল, বাকি জাহাজরাও এবার মুক্ত

Rescued ship, again transport normalize in Suez Canal- Photo- AP

Container Ship: ৪০০ মিটার লম্বা ও ৫৯ মিটার চওড়া ভেসেলটি চিন থেকে নেদারল্যান্ডসের রোটেরডম যাচ্ছিল৷

  • Share this:

    #কায়রো: সোমবার দিন সকালেই সুখবর এসেছিল৷ সুয়েজ ক্য্যানালে আটকে থাকা জাহাজটিকে মুক্ত করা গিয়েছিল আর এদিন সন্ধ্যাবেলায় জাহাজটি সেখান থেকে নিজের গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওনা দিল৷ সামুদ্রিক পরিষেবা দানকারী কোম্পানি নিজেদের বিবৃতিতে জানিয়েছে লেথ এজেন্সি সোমবার সকালে আটকে  থাকা নৌবহরকে উদ্ধার করার জন্য ১০ টি জাহাজের সাহায্য নেয়৷ সোমবার সন্ধ্যার মধ্যে যাতে সাফল্য আসে৷

    ফেঁসে থাকা জাহাজটির নাম এমবি এয়ার গিবেন৷ ৩৫০ টি জাহাজ যা আটকে ছিল তা এবার মুক্তি পেয়েছে৷ আটকে থাকা জাহাজটিকে পরীক্ষা করার জন্য গ্রেট বিটার জিলে নিয়ে যাওয়া হবে৷ আধিকারিকদের মতে গত বছর এই পথ দিয়ে ১৯.০০০ জাহাজ গেছে৷ দুনিয়ার প্রায় ১০ শতাংশ পণ্যবাহী জাহাজ এই পথ দিয়ে যায়৷

    গত মঙ্গলবার, তাইওয়ানের একটি মালবাহী কন্টেনার সুয়েজ খালে আড়াআড়িভাবে আটকে ছিল । যার জেরে বিপুল ট্রাফিক জ্যাম তৈরি হয়েছিল সমুদ্রে । অন্তত ৪৫০টি পণ্যবাহী জাহাজ ও তেল কন্টেনার আটকে ছিল এই এলাকায় । অবশেষে ভেসেলটিকে মুক্ত করা সম্ভব হয়েছে ।

    এশিয়া ও ইউরোপের মধ্যে পণ্য পরিবহণের কাজ করা তাইওয়ানের এম ভি এভারগ্রিন ভেসেলটি আটকে যাওয়ায় গোটা বিশ্বেই পণ্য ও তেল পরিবাহনে সমস্যা দেখা দিয়েছিল । তিন-চারটি ফুটবল মাঠের মতো বিশালাকার আয়তনের ওই জাহাজটিকে ফের মুক্ত করাটা খুব একটা সহজ কাজ ছিল না । ৪০০ মিটার লম্বা ও ৫৯ মিটার চওড়া ভেসেলটি থেকে ক্রু মেম্বারদের আগেই উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছিল । সুয়েজ খালে এই যানজটের কারণে প্রতি ঘণ্টায় ৪০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার পণ্য ও তেল পরিবহনে ব্যাঘাত ঘটছিল বলে জানা গিয়েছে ।

    এশিয়া থেকে ইউরোপে জলপথে পৌঁছনোর প্রধান সংযোগকারী রাস্তা এই সুয়েজ খাল । গোটা বিশ্বে পণ্য ও তেল আমদানি, রফতানি হয় এই খালের মাধ্যমে । ভূমধ্যসাগর ও লোহিত সাগর যোগ করে ১৯৩ কিলোমিটার দীর্ঘ এই খাল। মিশরের ব্যবসা বাণিজ্যও এই সুয়েজ খালের উপর সম্পূর্ণভাবে নির্ভরশীল। গত ৬ দিন ধরে ভেসেলটি এই খালে আটকে থাকায় মারাত্মক প্রভাব পড়ছিল গোটা বিশ্বের অর্থনীতি ও ব্যবসা-বাণিজ্যে ।

    Published by:Debalina Datta
    First published: