মাইনাস ১৭ ডিগ্রি, খালি গায়ে জলে ডুব দিচ্ছেন রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন! ব্যাপারটা কী?

মাইনাস ১৭ ডিগ্রি, খালি গায়ে জলে ডুব দিচ্ছেন রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন! ব্যাপারটা কী?

চারিদিকে বরফ, মাইনাস ১৭ ডিগ্রিতে খালি গায়ে জলে ডুব দিচ্ছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিন, ব্যাপারটা কী?

পুতিন ঠিক কতখানি ফিট, তা বোঝা গেল এইবার। রাশিয়ার অন্যতম পুরনো এক রীতি মেনে এপিফেনি ডুব দিলেন তিনি। গায়ে কোনও জামা ছাড়া, শুধুমাত্র একটি ট্রাঙ্ক পরে মাইনাস ১৭ ডিগ্রি তাপমাত্রায় বরফ জলে ডুব দিলেন এবং প্রতিবার বুকে ক্রস এঁকে ডুব দিয়েই চললেন তিনি!

  • Share this:

#মস্কো: এমনিতে শারীরিক অসুস্থতা তাঁর নেই বললেই চলে। কিন্তু গত বছর শুরুতে হঠাৎ খবর ছড়ায় রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন (Vladimir Putin) না কি খুবই অসুস্থ! শোনা যাচ্ছে পারকিনসনের সমস্যায় ভুগছেন পুতিন এবং ক্যানসারের অস্ত্রোপচারও হয়েছে তাঁর। তাই প্রেসিডেন্ট পদ ছেড়ে অন্য কোনও যোগ্য ব্যক্তির হাতে এই দায়িত্ব তুলে দিতে পারেন। যদিও তারপর থেকে বেশ কয়েকবার সংবাদমাধ্যমের সামনে এসেছেন পুতিন এবং তাঁর অফিসের তরফে শারীরিক সুস্থতার রিপোর্টও দেওয়া হয়।

কিন্তু তিনি ঠিক কতখানি ফিট, তা বোঝা গেল এইবার। রাশিয়ার অন্যতম পুরনো এক রীতি মেনে এপিফেনি ডুব দিলেন তিনি। গায়ে কোনও জামা ছাড়া, শুধুমাত্র একটি ট্রাঙ্ক পরে মাইনাস ১৭ ডিগ্রি তাপমাত্রায় বরফ জলে ডুব দিলেন এবং প্রতিবার বুকে ক্রস এঁকে ডুব দিয়েই চললেন তিনি!

https://youtu.be/uOkUJ0LgqaQ

পুতিনের চেহারা দেখে এবং শারীরিক গঠন দেখে বোঝাই যাচ্ছে, তিনি যথেষ্ট সুস্থ। এবং এমন কোনও সমস্যা নেই যাতে তাঁকে প্রেসিডেন্ট পদ ছাড়তে হতে পারে।

রাশিয়ায় প্রতি বছরই পুরনো রীতি মেনে, সংস্কৃতি মেনে এই এপিফেনি ডুব হয়ে থাকে। এতে অংশ নেন বহু মানুষ। চারিদিকে বরফ, মাঝে সামান্য জলের মধ্যে ডুবে স্নান করতে দেখা যায় মানুষজনকে। অনেকের দেখলে মনে হতেই পারে, নামলেই তো জমে যাবে, কিন্তু এটাই এখানকার প্রথা।

সম্প্রতি ক্রেমিন পুলের তরফে পুতিনের একটি ভিডিও প্রকাশ করা হয়, যাতে তাঁকে এই এপিফেনি ডুব দিতে দেখা যায়। চারিদিকে বরফ আর মাঝে জলে ডুব দিচ্ছেন তিনি। এ বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে প্রেসিডেন্টের মুখপত্র মিত্রি পেসকোভ জানান, এটা রাশিয়ার সংস্কৃতি এবং প্রেসিডেন্ট সংস্কৃতির অবমাননা করেন না।

এর আগে পুতিনকে ২০১৮ সালেও এমন কাজ করতে দেখা গিয়েছিল।কিন্তু ২০১৯-এর ফেব্রুয়ারি মাসে তাঁর না কি অস্ত্রোপচার হয়েছে! তাই তাঁকে এই অনুষ্ঠানে দেখা যায়নি। ২০২০ সালের নভেম্বরে প্রফেসর ভ্যালেরি সোলোভেই নামের এক সমালোচক জানান, পুতিনের পারকিনসনস হয়েছে। মস্কো ক্রেমলিনের তরফে বিষয়টি নাকচ করা হয়। জানানো হয়, রুশ প্রেসিডেন্টের কোনওরকম শারীরিক সমস্যা নেই। দিব্যি আছেন তিনি৷ প্রসঙ্গত, এর আগে রাশিয়ার প্রেসিডেন্টকে মাছ ধরতে, ঘোড়ায় চড়তেও দেখা যায়।

Published by:Subhapam Saha
First published:

লেটেস্ট খবর