কোনও হত্যা ভোলা হবে না, মানবাধিকারকে সম্মান করুন...! চিনকে কড়া বার্তা আমেরিকার

Protesters take part in a candlelight vigil to mark the 31st anniversary of the crackdown of pro-democracy protests at Beijing's Tiananmen Square in 1989, after police rejected a mass annual vigil on public health grounds, at Victoria Park, in Hong Kong, China June 4, 2020. REUTERS/Tyrone Siu

'অস্ত্রহীন সাধারণ চিনা নাগরিকদের যেভাবে হত্যা করেছিল চিনা কমিউনিস্ট পার্টি, তা ভোলার নয়', জানাল হোয়াইট হাউজ ৷

  • Share this:

    #ওয়াশিংটন:  কোনও হত্যা ভোলা হবে না, মানবাধিকারকে সম্মান করুন...! চিনের ‘Tiananmen Square massacre’-এর ৩১তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষ্যে এভাবেই বেজিংকে আর্জি জানাল আমেরিকা৷ স্পষ্ট জানানো হয়েছে যে মানবাধিকারকে সম্মান জানাক চিন৷ হংকং-এর প্রতি যে দায়িত্ব রয়েছে তা ঠিকভাবে পালন করা এবং জাত-পাতের ভিত্তিতে বা ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের উপর নীপিড়ন বন্ধ করুক চিন৷

    'অস্ত্রহীন সাধারণ চিনা নাগরিকদের যেভাবে হত্যা করেছিল চিনা কমিউনিস্ট পার্টি, তা ভোলার নয়', চিনকে একপ্রকার কড়া ভাষায় জানায় হোয়াইট হাউজ৷

    চিনা সংবিধান অনুযায়ী চিনের প্রতিটি নাগরিকের অধিকার ও স্বাধীনতাকে সম্মান জানানো হোক, বলছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র৷ ধর্ম ও জাতির ভিত্তিতে প্রচুর চিনাকে নিজেদের দেশেই অত্যাচারের শিকার হতে হয়, সেই সবের দিকে চিনকে নজর দিতে বলেছে হোয়াইট হাউজ৷ ইউনিভার্সাল ডিক্লারেশন অব হিউম্যান রাইটস এবং সিনো ব্রিটিশ জয়েন্ট ডিক্লারেশনের মাধ্যে হংকং-এ প্রতি যেভাবে দায়িত্ববদ্ধ চিন, তা সেভাবেই পালন করুক সেদেশের সরকার, আর্জি আমেরিকার৷

    ১৯৮৯-এ গণতন্ত্রের লড়াইয়ের জন্য রক্তাক্ত হয়েছিল চিন৷ ৪ জুন ছিল সেই ঘটনার বর্ষপূর্তি৷ কাকতালীয়ভাবে এই দিনটি উদযাপনের যখন হচ্ছে, তখন আমেরিকায়ও উত্তাল কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েডের হত্যার ঘটনায়৷ আমেরিকার বিভিন্ন জায়গায় চলছে বিক্ষোভ৷ যা ঠেকাতে সেনার ব্যবহার করার কথা বলেছেন ট্রাম্প৷ প্রেসিডেন্টের এই বক্তব্যের পর ক্ষতের ওপর প্রলেপ পড়া তো দূরের কথা, আরও উত্তপ্ত হয়েছে পরিস্থিতি৷

    চিনের তিয়ানানমেন স্কোয়ারের ঘটনার ৩১তম বর্ষপূর্তিতে সব চিনা নাগরিকদের পাশে দাঁড়িয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র৷ তাদের মৌলিক অধিকারের যে লড়াই, তার পাশে রয়েছে আমেরিকা, জানিয়েছে হোয়াইট হাউজ৷

    Published by:Pooja Basu
    First published: