বিদেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

লকডাউনে ৬৪ শতাংশ মানুষ সাত-পাঁচ না ভেবেই বেড়াতে গিয়েছেন, চমকে দিচ্ছে সমীক্ষা...

লকডাউনে ৬৪ শতাংশ মানুষ সাত-পাঁচ না ভেবেই বেড়াতে গিয়েছেন, চমকে দিচ্ছে সমীক্ষা...

আমেরিকার বিভিন্ন স্টেটে মে মাসে ঘোষিত 'স্টে সেফ স্টে হোম'র অন্তর্গত ৩২০০ মানুষের উপরে একটি অনলাইন সমীক্ষা করে দেখেছিল ভারমন্ট। দেখা গিয়েছে মহিলাদের মধ্যে এই সময় আউটডোর বা বাইরের প্রতি আকর্ষণ বেড়েছে।

  • Share this:

#ভারমন্ট: বিশ্ববিদ্যালয়ের সাম্প্রতিক গবেষণা বলছে যে কোভিড ১৯ (Covid 19)-র প্রকোপে প্রকৃতির সঙ্গে মানুষের সম্পর্ক আরও দৃঢ় হয়েছে। পুরুষ এবং বিশেষ করে নারীরা প্রকৃতির মধ্যেই শান্তির আশ্রয় খুঁজে পাচ্ছেন। পিএলওএস ওয়ান নামক জার্নালে এই গবেষণা প্রকাশিত হয়েছে। যেখানে বলা হয়েছে যে অতিমারী মানুষকে প্রকৃতি ও জীবজন্তুর গুরুত্ব বুঝতে শিখিয়েছে। এই সময়ে সবুজ গাছপালা মানুষকে একটু স্বস্তি দিয়েছে।

আমেরিকার বিভিন্ন স্টেটে মে মাসে ঘোষিত 'স্টে সেফ স্টে হোম'র অন্তর্গত ৩২০০ মানুষের উপরে একটি অনলাইন সমীক্ষা করে দেখেছিল ভারমন্ট। দেখা গিয়েছে মহিলাদের মধ্যে এই সময় আউটডোর বা বাইরের প্রতি আকর্ষণ বেড়েছে। ৭০% মানুষ এই সময় সামাজিক দূরত্ব মেনেছেন, আবার ৬৪% শতাংশ মানুষ শহুরে জীবন থেকে ছুটি নিয়ে জঙ্গলে হাঁটা, গাছের সঙ্গে কথা বলা বা জীবজন্তুকে পর্যবেক্ষণ করা বেশ উপভোগ করেছেন।

এর আগে হয়তো সে ভাবে জীবনে গাছপালা ও জঙ্গলের গুরুত্ব কতটা, তা অনুভব করা যায়নি। লকডাউনের ফলে আচমকা গৃহবন্দী হয়ে পড়ায় মানসিক অস্থিরতা দেখা গিয়েছে অনেকের মধ্যেই। সমীক্ষা জানাচ্ছে যে ৫৯% মানুষ অনুভব করেছেন যে প্রকৃতির কাছাকাছি থাকলে মানসিক স্বাস্থ্য ও সামগ্রিক ভাল থাকা অনেকটাই বেড়ে যায়। এক্সারসাইজ বা ব্যায়াম করেও ভাল থাকা যায় জানিয়েছেন ২৯% মানুষ। আবার শুধুই প্রকৃতির শোভার তারিফ করেই মনে শান্তি এসেছে বলে জানিয়েছেন ২৯% মানুষ। তবে প্রকৃতির সঙ্গে নিজেদের দৃঢ় বন্ধন গড়ে তোলায় পুরুষদের থেকে মহিলারা অনেক বেশি এগিয়ে আছেন। বাগান নিয়ে ব্যস্ত থাকায় এবং জঙ্গলে বা প্রকৃতির মধ্যে হাঁটাহাঁটি করায় পুরুষদের থেকে মহিলারা যথাক্রমে ১.৭ গুণ এবং ২.৯ গুণ এগিয়ে আছেন।

এই গবেষণার সিনিয়র গবেষক র‍্যাচেল গোড বলেছেন যে এই বিষয়ে আরও অনেক গবেষণা করা এখনও বাকি আছে। তবে প্রাথমিক গবেষণা বলছে যে মানসিক স্বাস্থ্য, সৌন্দর্য, এক্সারসাইজ, ভূপ্রকৃতির সঙ্গে মানিয়ে নেওয়া এবং আনন্দে থাকা এইগুলি নিয়ে পুরুষদের চেয়ে মহিলারা অনেক বেশি সচেতন। এই গবেষণার উপরে ভিত্তি করে আগামী দিনে এই রকম কোনও পরিস্থিতি হলে প্রকৃতির সঙ্গে মানুষের সম্পর্ক কেমন থাকবে তা ভাল করে বুঝতে চাইছেন গবেষকরা।

Published by: Shubhagata Dey
First published: December 18, 2020, 5:55 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर