corona virus btn
corona virus btn
Loading

'লকডাউনের নিয়ম মেনে চলা উচিৎ,না হলে ফল ভয়ানক' অক্সফোর্ডের বাঙালি বিজ্ঞানী যা বললেন...

'লকডাউনের নিয়ম মেনে চলা উচিৎ,না হলে ফল ভয়ানক' অক্সফোর্ডের বাঙালি বিজ্ঞানী যা বললেন...
অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বাঙালি বিজ্ঞানী ডঃ পুলক কর

এই দেশের কোন ভাইরাসের আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ার পিছনেও নির্দিষ্ট কিছু কারণ রয়েছে। যার মধ্যে অবশ্যই সোশ্যাল ডিসটেন্স কে গুরুত্ব না দেওয়া। এমনই সব অভিজ্ঞতার কথা অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকেই জানাচ্ছেন বাঙালি বিজ্ঞানী ডঃ পুলক কর।

  • Share this:

#লন্ডন: সোশ্যাল ডিস্ট্যান্স বা সামাজিক দূরত্ব বজায় না রাখলে করোনাভাইরাস এর চেহারা কতটা মারাত্মক আকার নিতে পারে তার ইঙ্গিত দিলেন ব্রিটেন এর অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বাঙালি বিজ্ঞানী ডঃ পুলক কর। এই মুহূর্তে গোটা বিশ্বে করোনা ভাইরাসের আক্রান্তের সংখ্যা নিরিখে পাল্লা দিয়ে এগিয়ে চলেছে ব্রিটেন। তবে এই দেশের কোন ভাইরাসের আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ার পিছনেও নির্দিষ্ট কিছু কারণ রয়েছে। যার মধ্যে অবশ্যই সোশ্যাল ডিসটেন্সকে গুরুত্ব না দেওয়া। এমনই সব অভিজ্ঞতার কথা অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকেই জানাচ্ছেন বাঙালি বিজ্ঞানী ডঃ পুলক কর। আদতে তিনি এ রাজ্যের মেদিনীপুরের ছেলে। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকেও এ রাজ্য করোনা মোকাবিলায় যে যে  ভূমিকা বা পদক্ষেপ নিয়েছে সে সম্পর্কেও  প্রশংসা করেছেন।

তিনি বলছেন " করোনাভাইরাস এমনই একটি ভাইরাস যা অতি জনঘনত্ব এর মধ্যে দ্রুত মিশে যেতে পারে। ব্রিটেনের  মত দেশেও এখনও পর্যন্ত এর মোকাবিলার করার জন্য কোন মেডিসিন বা ভ্যাকসিন তৈরি হয়নি। তাই বর্তমানে করোনাভাইরাসকে মোকাবিলা করার জন্য বাড়িতে থাকাই সবথেকে নিরাপদ। ব্রিটেন সরকারও করোনাভাইরাস মোকাবিলায়  একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে। বিশেষত যাতে তা ছড়িয়ে পড়তে না পারে। বর্তমানে ব্রিনেট পুরোপুরিভাবে লকডাউনের মধ্যে রয়েছে। যদিও আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যা ক্রমশই বেড়ে চলেছে এখানে। তবে অন্যান্য দেশের মতো এখানেও প্রথমদিকে কেউই সোশ্যাল ডিসটেন্সকে গুরুত্ব দেয়নি। যার জন্য অনেকটাই এখানে ছড়িয়ে পড়েছে এই ভাইরাস। তবে ব্রিটেনে যদি লকডাউন আরও এক সপ্তাহ বা দুই সপ্তাহ আগে করা হত তাহলে এখানকার ছবিটা অন্যরকম হত। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আমি এটা বুঝতে পেরেছি লকডাউনের সময় বাড়িতে থেকেই লকডাউন এর প্রত্যেকটা বিধি মেনে চললেই প্রাথমিকভাবে এই ভাইরাসকে মোকাবিলা করা সম্ভব। আমার মতে আমাদের দেশ তথা পশ্চিমবঙ্গ সঠিক সময় লকডাউন এর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ভারতবর্ষে এত জনঘনত্ব যে এখানে লকডাউন এর কার্যকারিতা বজায় রাখা অনেকটাই কঠিন। ভারতে তথা পশ্চিমবঙ্গেও যে পরিসংখ্যান করোনাভাইরাসে আক্রান্ত তথ্য হিসেবে পাওয়া যাচ্ছে তা অনেকটাই এখনো পর্যন্ত ইতিবাচক। আমার মতে লোকজনকে যদি এই ভাবেই নিময় বজায় রাখে তাহলেই এই পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে সম্ভব। পশ্চিমবঙ্গ যেভাবে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে যদি সেটা ধরে রাখতে পারে তাহলে আগামী দিনে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় মডেল হিসেবে উঠে আসবে। তাই আমাদের এখন সচেতন হওয়ার সময় এসেছে।"

মূলত টানা কয়েকদিন ধরেই গোটা রাজ্যজুড়ে চলছে লকডাউন। বারবার বাজারে জিনিস কেনার জন্য ভিড় করলেও প্রশাসনের তরফে সোশ্যাল ডিসটেন্স বা সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কথা বলা হচ্ছে। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই তা মানা হচ্ছে না বলে অভিযোগ। বিশেষত তা নিয়েই উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের  এই বাঙালি বিজ্ঞানী। এক্ষেত্রে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সামাজিক দূরত্ব বজায়  রাখা এবং লকডাউন এর সব নিয়ম মেনে চলাটাই গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করিয়ে দিয়েছেন এই বাঙালি বিজ্ঞানী।

 
Published by: Pooja Basu
First published: April 5, 2020, 11:08 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर