Lion in Birthday Party: পাকিস্তানি সুজানের শখ, জন্মদিনের পার্টিতে চেন দিয়ে বাঁধা নেশাচ্ছন্ন সিংহী! দেখুন

জন্মদিনের পার্টিতে বাঁধা সিংহী।

কারণ, নিজের জন্মদিনের পার্টিতে তিনি অবসন্ন এক সিংহীকে (Lion in Birthday Party) চেন দিয়ে বেঁধে রেখে অতিথিদের চমকে দিলেন।

  • Share this:

    #লাহোর: পাকিস্তানের এক উদ্বুদ্ধকারী সুজান খানের (Pakistani Influencer Susan Khan) ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করা ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। কেন? কারণ, নিজের জন্মদিনের পার্টিতে তিনি অবসন্ন এক সিংহীকে (Lion in Birthday Party) চেন দিয়ে বেঁধে রেখে অতিথিদের চমকে দিলেন। ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, অবসন্ন ওই সিংহীকে একটি সোফার উপর চেন দিয়ে বেঁধে বসিয়ে রাখা হয়েছে। চারপাশে প্রায় শতাধিক অতিথি ঘুরে বেড়াচ্ছেন। সিংহীকে ধরছেন তাঁরা।

    জানা গিয়েছে, সুজান খান নামের এই পাকিস্তানি উদ্বুদ্ধকারী সম্প্রতি লাহোরে একটি বিলাসবহুল জন্মদিনের পার্টির আয়োজন করা হয়েছিল। সেই পার্টিতে অতিথিদের চমক দিতেই এক সিংহীকে নেশায় আচ্ছন্ন করে চেন দিয়ে বেঁধে রাখা হয়। অতিথিদের বিনোদনের জন্যই এই ব্যবস্থা করেছিলেন সুজান খান। সুজান নিজের ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে সেই ভিডিও শেয়ারও করেছিলেন। কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়ায় তা সমালোচিত হতেই ইনস্টাগ্রাম থেকে তুলে নেন সেই ভিডিও। এভাবে একটি বন্যপ্রাণকে জন্মদিনের পার্টিতে বেঁধে রেখে ব্যবহার করা দেখে অনেকেই নিন্দা করেছেন।

    পশু উদ্ধারকারী এক সংস্থা এই ঘটনার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করে তীব্র নিন্দা করেছে। ইনস্টাগ্রামে তাদের বক্তব্য, 'জন্মদিনের বিরুদ্ধে আমি নই, তবে জন্মদিনের পার্টিতে একটি পশুকে নেশাচ্ছন্ন করে এভাবে বিনোদনের জন্য ব্যবহার করেন কী ভাবে তা ভাবছি। এবং সেটা হয়েছে মিস সুজানের জন্মদিনে। সিংহীটিকে যেমন খুশি ভাবে ব্যবহার করা হয়েছে যেন সে এক বিনোদনের বস্তু। কিন্তু অবশ্যই সেটা তারা নয়। তাদের নিজস্ব মতে, স্বাধীন ভাবে বেঁচে থাকার অধিকার রয়েছে।'

    ওই পশু উদ্ধারকারী সংস্থা প্রশ্ন তুলেছে, 'আপনাকে এভাবে নেশাচ্ছন্ন করে জোর মিউজিক ও মানুষের চিৎকারের মাঝে বেঁধে রাখলে আপনার কেমন লাগত? এটা মনুষ্যত্ব ভুলে যাওয়া ছাড়া আর কিছু নয়। নিজের সম্পত্তি ও বড়লোক হওয়ার উদাহরণ হিসেবে পশুদের এভাবে ব্যবহার করা যায় না।' নেটিজেনও এই ঘটনার তুমুল বিরোধিতা করে কমেন্ট করেছেন। কেউ লিখেছেন, ভয়াবহ খারাপ। কেউ আবার সুজানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেছেন। অনলাইনে পিটিশন দাখিল করার আবেদন করেছেন ওই পশু উদ্ধারকারী সংস্থার কর্ণধার।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: