অভিনন্দনের মুক্তি নিয়ে তথ্য ফাঁস, এই সাংসদকেই 'দেশদ্রোহী' বলছে পাকিস্তান

অভিনন্দনের মুক্তি নিয়ে তথ্য ফাঁস, এই সাংসদকেই 'দেশদ্রোহী' বলছে পাকিস্তান
পাকিস্তানের বিরোধী দল পিএমল-এন এর সাংসদ সর্দার আয়াজ সাদিক৷

পাকিস্তানের বিরোধী দল পিএমল-এন এর সাংসদ সর্দার আয়াজ সাদিক গত বুধবার পাকিস্তানের সংসদে দাঁড়িয়েই দাবি করেন, অভিনন্দন বর্তমানকে মুক্তি না দিলে ভারতের হামলার ভয়ে সিঁটিয়ে ছিলেন পাকিস্তানের তাবড় মন্ত্রী থেকে শুরু করে সেনা কর্তারা৷

  • Share this:

    #ইসলামাবাদ: ভারতের হামলার ভয় পেয়েই বায়ুসেনার পাইলট অভিনন্দন বর্তমানকে মুক্তি দিয়েছিল পাকিস্তান৷ এই তথ্য সামনে আনার জন্য এ বার বিরোধী দলের সাংসদের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার মামলা করতে চলেছে ইমরান খান সরকার৷

    পাকিস্তানের বিরোধী দল পিএমল-এন এর সাংসদ সর্দার আয়াজ সাদিক গত বুধবার পাকিস্তানের সংসদে দাঁড়িয়েই দাবি করেন, অভিনন্দন বর্তমানকে মুক্তি না দিলে ভারতের হামলার ভয়ে রীতিমতো সিঁটিয়ে ছিলেন পাকিস্তানের তাবড় মন্ত্রী থেকে শুরু করে সেনা কর্তারা৷ ওই সাংসদের কথা অনুযায়ী, একটি সরকারি বৈঠকে বিদেশমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি রীতিমতো আতঙ্কিত কণ্ঠে বলেন, 'ভগবানের দোহাই, অভিনন্দন বর্তমানকে মুক্তি দিন৷ নাহলে ভারত হামলা করবে৷' ওই বৈঠকে পাক সেনা প্রধান কোমর জাভেদ বাজওয়ার হাঁটু কাপছিল বলেও চাঞ্চল্যকর দাবি করেন পাকিস্তানের এই সাংসদ৷

    এই মন্তব্যে স্বভাবতই মুখ পুড়েছে পাকিস্তানের৷ কারণ এতদিন তাদের দাবি ছিল শান্তির বার্তা দিতেই উইং কম্যান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে মুক্তি দিয়েছিল তারা৷ বিরোধী দলের সাংসদ সাদিক অভিযোগ করেন, ভারতের হামলার কোনও পরিকল্পনা ছিল না৷ তা সত্ত্বেও মাথা ঝুঁকিয়ে অভিনন্দনকে ফেরত পাঠায় ইমরান খান সরকার৷


    যদিও এই মন্তব্যের মাশুল চোকাতে হতে পারে পাকিস্তানের বিরোধী দলের এই সাংসদকে৷ কারণ ইতিমধ্যেই দেশের অভ্যন্তরীণ মন্ত্রী ইজাজ শাহ জানিয়েছেন,সাদিকের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার মামলা করার কথা ভাবা হচ্ছে৷ কারণ পুলিশের কাছে তাঁর বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ দায়ের হয়েছে৷ তিনি আরও বলেন, যাঁরা ভারতের হয়ে ওকালতি করতে চান, তাঁদের অমৃতসরে চলে যাওয়াই ভাল৷ ইতিমধ্যেই সাদিককে বিশ্বাসঘাতক আখ্যা দিয়ে লাহোরে পোস্টার মারা হয়েছে৷

    যদিও ইমরান খান সরকার যেভাবে বিরোধীদের দেশদ্রোহী হিসেবে তুলে ধরছে, তার কড়া সমালোচনা করেছে সাদিকের দল পিএমএল-এন৷ তাদের পাল্টা দাবি, যারা সাদিকের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার অভিযোগ আনছে, তাদেরই অতীতে নানা অপরাধের সঙ্গে যুক্ত থাকার রেকর্ড রয়েছে৷

    পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার পর গত বছরের ২৬ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানের বালাকোটে বেশ কিছু জঙ্গি ঘাঁটি উড়িয়ে দেয় ভারতীয় বায়ুসেনা৷ এর পরের দিন আকাশে পাকিস্তানের যুদ্ধবিমানের সঙ্গে লড়াইয়ের সময় ভেঙে পড়ে উইং কম্যান্ডার অভিনন্দন বর্তমানের মিগ ২১৷ তার আগে অবশ্য পাক বায়ুসেনার একটি এফ ১৬ যুদ্ধবিমানকে ধ্বংস করেন তিনি৷ পাকিস্তানের হাতে বন্দি হওয়ার পর ১ মার্চ মুক্তি পান ৩৭ বছরের এই উইং কম্যান্ডার৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: