'নাথিং ক্যান স্টপ আস', গুলিতে মৃত্যুর আগে শেষ ট্যুইট উগ্র ট্রাম্প সমর্থকের

'নাথিং ক্যান স্টপ আস', গুলিতে মৃত্যুর আগে শেষ ট্যুইট উগ্র ট্রাম্প সমর্থকের

ক্যাপিটল বিল্ডিংয়ের সামনে ট্রাম্প সমর্থকদের হামলার ঘটনায় পুলিশের গুলিতে মৃত্যু হয় অ্যাশলি ব্যাবিটের৷ দীর্ঘদিন ধরেই আমেরিকার বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উগ্র সমর্থক অ্যাশলি৷

ক্যাপিটল বিল্ডিংয়ের সামনে ট্রাম্প সমর্থকদের হামলার ঘটনায় পুলিশের গুলিতে মৃত্যু হয় অ্যাশলি ব্যাবিটের৷ দীর্ঘদিন ধরেই আমেরিকার বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উগ্র সমর্থক অ্যাশলি৷

  • Share this:

    #ওয়াশিংটন: ক্যাপিটল বিল্ডিংয়ের সামনে ট্রাম্প সমর্থকদের হামলার ঘটনায় পুলিশের গুলিতে মৃত্যু হয় অ্যাশলি ব্যাবিটের৷ দীর্ঘদিন ধরেই আমেরিকার বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উগ্র সমর্থক অ্যাশলি৷ বৃহস্পতিবার মৃত্যুর কয়েক ঘণ্টা আগে তিনি ট্যুইটারে লেখেন,"কোনও কিছু আমাদের থামাতে পারবে না৷ ওরা শুধু চেষ্টার পর চেষ্টা করে যাবে৷ কিন্তু এখানে ঝড় উঠেছে৷ ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সেই ঝড় ওয়াশিংটন ডিসি-তে আছড়ে পড়বে৷ এবার অন্ধকার থেকে আলো আসবে৷"

    অ্যাশলি ব্যাবিটের শেষ ট্যুইট অ্যাশলি ব্যাবিটের শেষ ট্যুইট

    আমেরিকার বিমান বাহিনীর সঙ্গে দীর্ঘদিন কর্মরত ছিলেন অ্যাশলি৷ পুলিশের গুলিতে তাঁর মৃত্যুর খবরই সবার আগে সামনে আসে৷ অ্যাশলি সান দিয়েগো থেকে ওয়াশিংটনে এসেছিলেন ট্রাম্পের সমর্থনে স্লোগান তুলতে৷ ওয়াশিংটন পুলিশ অ্যাশলির মৃত্যু নিশ্চিত করলেও তাঁকে সনাক্ত করতে পারেনি৷ কিন্তু সান দিয়েগো টিভি স্টেশন কুশি তাঁর ব্যাপারে রিপোর্ট পেশ করে৷

    পুলিশ এখনও জানায়নি যে, অ্যাশলির ওপর কোন পরিস্থিতিতে গুলি চালানো হয়েছিল৷ বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে৷ তবে জানা যাচ্ছে ক্যাপিটল ভবনের ভিতররে বিশৃঙ্খল ও হিংসাত্মক পরিস্থিতির মাঝেই কয়েকজন নিরাপত্তা কর্মী বন্দুক বার করেন বিক্ষোভকারীদের থামাতে৷ হাজার হাজার সমর্থক ট্রাম্পের সমর্থনে স্লোগান তুলে ক্যাপিটল বিল্ডিংয়ে বলপূর্বক ঢুকে পড়ার চেষ্টায় কার্যত রণক্ষেত্রের চেহারা নিয়েছে আমেরিকা৷ উত্তাল ওয়াশিংটন

    বৃহস্পতিবার জয়ের শংসাপত্র পাওয়ার কথা ভাবী প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের। তারই আগে ক্যাপিটাল বিল্ডিংয়ে ট্রাম্প সমর্থকদের জোর করে ঢুকে পড়ার ঘটনা এককথায় বেনজির৷ গত কয়েক দশকে এই ঘটনার সাক্ষী থাকেনি আমেরিকা৷ ওয়াশিংটন ডিসিতে কার্যত লকডাউন জারি করতে বাধ্য হয়েছে মার্কিন পুলিশ।

    সকালে পুলিশের গুলিতে অ্যাশলির মৃত্যুর খবরই পাওয়া গিয়েছিল৷ কিন্তু বেলা গড়ানোর সঙ্গেই সংখ্যাটা বাড়ে৷ ট্রাম্পপন্থীরদের হিংসার জেরে অন্তত চারজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে দেখেই ওয়াশিংটনের মেয়র মুরিয়েল বউজার ১৫ দিনের জরুরি অবস্থা জারি করেছেন। অর্থাৎ জো বাইডেনের প্রেসিডেন্ট পদে অভিষেক হওয়ার আগে পর্যন্ত কড়া সামরিক পর্যবেক্ষণের অধীনে থাকবে মার্কিন রাজধানী। মুরিয়েলের ভয়, আবারও হামলা চালাতে পারেন ভোটের ফল মানতে না পারেন উগ্র ট্রাম্প সমর্থকরা৷

    Published by:Subhapam Saha
    First published:
    0