corona virus btn
corona virus btn
Loading

আত্মহত্যা করতে পারেন নীরব মোদি, ইংল্যান্ডের আদালতে দাবি তাঁর আইনজীবীর

আত্মহত্যা করতে পারেন নীরব মোদি, ইংল্যান্ডের আদালতে দাবি তাঁর আইনজীবীর
নীরব মোদি৷

মুম্বইয়ের ধনকুবের বলা চলে তাঁকে। হীরের গয়নার ব্যবসায়ী। দেশ বিদেশে খ্যাত তাঁর গয়নার ব্র্যান্ড। বলিউড থেকে হলিউড তাবড় সেলিব্রিটিরা নিজেদের সাজিয়ে তোলেন নীরব মোদির ডিজাইনার গয়নায়।

  • Share this:

বিজয় মালিয়ার পর নীরব মোদি। যাঁকে নিয়ে এখন তোলপাড় দেশ। মালিয়ার মতোই পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্কের সঙ্গে কয়েক ১১,৩০০ কোটি টাকার ঋণ খেলাপির অভিযোগ রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। পরিমাণে মালিয়াকেও ছাড়িয়ে গিয়েছেন তিনি।

মুম্বইয়ের ধনকুবের বলা চলে তাঁকে। হীরের গয়নার ব্যবসায়ী। দেশ বিদেশে খ্যাত তাঁর গয়নার ব্র্যান্ড। বলিউড থেকে হলিউড তাবড় সেলিব্রিটিরা নিজেদের সাজিয়ে তোলেন নীরব মোদির ডিজাইনার গয়নায়। ২০১০ সালে নিজের নামে ব্রান্ডেড জুয়েলারির ব্যবসা শুরু করেছিলেন তিনি। মাত্র ৪৬ বছর বয়সেই ফায়ারস্টার ইন্টার ন্যাশনালের চেয়ারম্যান নিযুক্ত হয়েছিলেন। মাত্র সাত বছরেই ফোর্বসের ৫৭ জন ধনীর তালিকায় চলে আসেন তিনি। আর এই নীরব মোদি জালিয়াতির দায়ে এখন জেলে।

ওয়েস্টমিনস্টার কোর্টে সোমবার থেকে শুরু হওয়া নীরব মোদির আবেদনের বিচার আরও তিনদিনের জন্য নির্ধারন করা হয়েছে। এদিন তার ভারতে ফেরার প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে তার উকিল বলেন, ভারতের জেলের পরিকাঠামো ভালো নয়, সেখানে চিকিৎসা ভালো হয় না। তাই নীরব মোদির সেখানে আত্মহত্যার আশঙ্কা রয়েছে। ভারতীয় রাজনীতির শিকার সে। তাই ভারতে না ফেরানোর আর্জি জানায়।

আদালতে মোদির পাঁচ দিনের প্রত্যর্পণের শুনানির দ্বিতীয় দিন বিচারপতি স্যামুয়েল গুজিকে মুম্বাইয়ের আর্থার রোড কারাগারে করোনভাইরাস মামলার পরিসংখ্যান সহ ভারতীয় সরকারী কারাগারের তথ্য দিয়ে দেওয়া হয়েছিল, যেখানে মোদি তাকে হস্তান্তরিত হলে তাকে রাখা হবে। মোদির আইনজীবী, মন্টগোমেরি আদালতকে বলেন, “ভারতে বিচার ব্যবস্থার অবনতি ঘটেছে এবং সেখানে এই বিষয়টি রাজনীতির পর্যায়ে চলে গেছে।” মন্টগোমেরি আরও বলেন ভারতে ন্যায় বিচার পাওয়ার কোনও সম্ভাবনা নেই। তাই হতাশায় ভুগছেন নীরব মোদি। এই অবস্থায় যদি তাকে ভারতে পাঠানো হয় তাহলে সে আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে পারে বলেও জানান তিনি।

তাঁর মামলার রাজনীতিকরণের কারণে নীরব মোদি ভারতে প্রত্যর্পণের বিরুদ্ধে লড়াই করছেন। তাঁর মত, সেখানে সুষ্ঠু বিচারের সম্ভাবনা নেই এবং ভারতীয় কারাগারে পর্যাপ্ত চিকিত্সা সুবিধার অভাবে তাঁকে "আত্মহত্যার মতো ঝুঁকির" মুখোমুখি হতে হচ্ছে, এমনই মনে করছে আইনজীবি দল । আদালতে মোদির পাঁচ দিনের প্রত্যর্পণের শুনানির দ্বিতীয় দিন বিচারপতি স্যামুয়েল গুজিকে মুম্বাইয়ের আর্থার রোড কারাগারে করোনভাইরাস মামলার পরিসংখ্যান সহ ভারতীয় সরকারী কারাগারের ডেটা দিয়ে নেওয়া হয়েছিল, যেখানে মোদিকে হস্তান্তরিত হলে তাকে রাখা হবে। মোদির আইনজীবী, ক্লেয়ার মন্টগোমেরিও সপ্তাহব্যাপী আরও সাক্ষী জমা দেওয়ার জন্য তাঁর পরিকল্পনার কথা জানিয়েছিলেন। মন্টগোমেরি আদালতকে বলেন, "ভারতে বিচার ব্যবস্থার অখণ্ডতায় উল্লেখযোগ্য অবনতি ঘটেছে এবং নিরব মোদি মামলাটিকে রাজনৈতিক ইস্যুতে পরিণত করা হয়েছে, দোষ নিয়ে কোনও ধারণা করা হয়নি, মন্টগোমেরি আদালতকে বলেছেন। তিনি দাবি আরও করেন যে নীরবকে রাজনৈতিক স্বার্থে ভারতে একটি "বিদ্বেষী ব্যক্তিত্ব" হিসাবে তৈরি করা হয়েছে। ভারতের সংস্থা সি বি আই ও ই ডি এর ব্যবহারের নিন্দা শোনা যায় মন্টগোমেরির মুখে।

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: September 9, 2020, 1:06 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर