• Home
  • »
  • News
  • »
  • international
  • »
  • স্কুল খুলতেই সংক্রামিত ৯৭ হাজার শিশু! স্বেচ্ছায় করোনার টীকা নিতে এগিয়ে এল ১৬ বছরের পড়ুয়া, শুনুন প্রতিক্রিয়া...

স্কুল খুলতেই সংক্রামিত ৯৭ হাজার শিশু! স্বেচ্ছায় করোনার টীকা নিতে এগিয়ে এল ১৬ বছরের পড়ুয়া, শুনুন প্রতিক্রিয়া...

এ বছরের অগাস্ট মাস নাগাদ স্কুল খুলে দেওয়ার পর মার্কিন মুলুকে ৯৭ হাজারের কাছাকাছি শিশুর কোভিড ১৯ সংক্রমণের পরিসংখ্যান মেলে।

এ বছরের অগাস্ট মাস নাগাদ স্কুল খুলে দেওয়ার পর মার্কিন মুলুকে ৯৭ হাজারের কাছাকাছি শিশুর কোভিড ১৯ সংক্রমণের পরিসংখ্যান মেলে।

এ বছরের অগাস্ট মাস নাগাদ স্কুল খুলে দেওয়ার পর মার্কিন মুলুকে ৯৭ হাজারের কাছাকাছি শিশুর কোভিড ১৯ সংক্রমণের পরিসংখ্যান মেলে।

  • Share this:

#বস্টন: কোভিড ১৯ যে ভাবে ছড়িয়ে পড়ে একজনের শরীর থেকে অন্যজনের শরীরে, তার ভিত্তিতে একটা শব্দের প্রচলন আছে ইংরেজি ভাষায়। শব্দটি হল সুপার স্প্রেডার। মানেটা সহজ- যার মাধ্যমে উল্লেখযোগ্য কম সময়ে কোভিড ১৯-এর জীবাণু ছড়িয়ে পড়ছে অনেকজনের দেহে!

সেই দিক থেকেই মার্কিন মুলুক এখন তৎপর হয়ে আছে শিশুদের শরীরে কোভিড ১৯-এর ভ্যাকসিন প্রয়োগ করার জন্য। অবশ্য শিশু বলতে এ ক্ষেত্রে ১২ বছর বয়স্কদের কথাই ধরতে হবে। কেন না, একজনের মাধ্যমে খুব সহজেই স্কুলের অন্য ছেলেমেয়েরা, তাদের থেকে আবার বাবা-মায়েরা- এই করে করে সংক্রমণ এক ভয়াবহ চেহারা নেয়।

তবে আমেরিকান অ্যাকাডেমি অফ পেডিয়াট্রিক্স যতই এ ব্যাপারে ছাড় দিয়ে রাখুক না কেন, ও দেশের চিকিৎসকরা কিন্তু পরিস্থিতি খুব একটা সুবিধের নয় বলেই মনে করছেন। তাঁরা প্রথম এক স্বেচ্ছাসেবী শিশুর শরীরে কোভিড ১৯-এর ভ্যাকসিন প্রয়োগ করবেন ঠিকই, কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা কাজে এল কি না, সেটা বুঝতেও তো কিছুটা সময় লেগে যাবেই! আর এ সবের মাঝেই দ্রুত ফুরিয়ে আসবে ছুটির মরশুম এবং বছর। তার পর যে-ই না নতুন করে স্কুল খুলবে, ফের মাথা চাড়া দিয়ে উঠবে শিশুদের মধ্যে ব্যাপক হারে এবং সেখান থেকে প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে কোভিড ১৯ সংক্রমণ।

সত্যি বলতে কী, এই সমস্যার মুখে তো চলতি বছরেই পড়েছে মার্কিন দেশ! এ বছরের অগস্ট মাস নাগাদ স্কুল খুলে দেওয়ার পর মার্কিন মুলুকে ৯৭ হাজারের কাছাকাছি শিশুর কোভিড ১৯ সংক্রমণের পরিসংখ্যান মেলে। এ ছিল স্রেফ খাতায়-কলমে হিসেব, কে জানে এর বাইরেও আরও শিশু আক্রান্ত ছিল কি না!

যাই হোক, এ সবের মাধ্যমেই যতটা সম্ভব তাড়াতাড়ি কাজ করার লক্ষ্যে কোমর বেঁধেছে Pfizer Inc। এই সংস্থাকে তাদের ভ্যাকসিন শিশু স্বেচ্ছাসেবীর শরীরে প্রয়োগের অনুমতি দিয়েছে প্রশাসন। এ কাজে এগিয়ে এসেছেন ১৬ বছরের ক্যাটেলিন ইভান্স।

উদ্যোগ নিয়ে অনেকেই টেস্ট করাচ্ছেন ঠিকই, তবে যত তাড়াতাড়ি ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা যাবে, ততই মঙ্গল, জানিয়েছেন ক্যাটেলিন! সাধে কী আর বলে- নতুন প্রজন্মের হাতেই রয়েছে সভ্যতাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার মশাল!

Published by:Shubhagata Dey
First published: