corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনার ওষুধ নিয়ে রিসার্চে ভুল! প্রকাশিত গবেষণা প্রত্যাহারের আর্জি

করোনার ওষুধ নিয়ে রিসার্চে ভুল! প্রকাশিত গবেষণা প্রত্যাহারের আর্জি
Representative Image

গবেষণাটি প্রায় ৯৬হাজার রোগীর ওপর চালানো হয়৷ এবং পরীক্ষার ভিত্তিতে জানানো হয় যে হাইড্রক্সিক্লোরকইন এবং ক্লোরকুইন আদতে কোনও সমাধান নয়৷ বরং এতে অসুস্থতার ঝুঁকি আরও বেড়ে যায়৷

  • Share this:

#ওয়াশিংটন: করোনার ওষুধ নিয়ে আন্তর্জাতিক Lancet পত্রিকায় প্রকাশিত একটি রিসার্চ পেপার প্রত্যাহার করে নিলেন তিন গবেষক৷ করোনার চিকিৎসার ক্ষেত্রে অ্যান্টি ম্যালেরিয়াল ড্রাগ ব্যবহারে যে ঝুঁকির ওপর তাঁরা পরীক্ষা চালিয়েছিলেন এবং তথ্য সামনে এনেছিলেন, তাতে গলদ রয়েছে বলে জানা যায়৷ এই গবেষণাটি করেন ৪জনের একটি দল৷ যার মধ্যে ৩জন তাঁদের প্রকাশিত পেপার প্রত্যাহার করে নিলেন৷ গবেষণার জন্য যে ডেটা বা তথ্য মিলেছিল, তাতে সমস্যা ছিল বলেই অভিযোগ গবেষকদের৷

'হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন এবং ক্লোরকুইন, কোনও ওষুধই করোনা ভাইরাসের সঙ্গে লড়তে সক্ষম নয়৷ উল্টে এতে সমস্যা আরও বাড়বে৷ বাড়বে প্রাণহানির ঝঁকি'৷ এমনই জানানো হয় গবেষণায়৷ প্রায় ৯৬হাজার মানুষের ওপর পরীক্ষা চালিয়ে ডেটা জোগার করা হয়৷ তার ভিত্তিতে হয় এই গবেষণা৷

এই তথ্য সামনে আসতেই এই ওষুধ দিয়ে ক্লিনিকাল ট্রায়ল বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়ে নেয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা৷ কিন্তু এরপরই বিশ্বজুড়ে গবেষক ও বিশেষজ্ঞরা সরব হন৷ যে তথ্যের ভিত্তিতে এই গবেষণা করা হয়েছে, তা ভুল বলে দাবি তোলেন তাঁরা৷

হাভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মন্দির মেহর এই গবেষণার প্রধান ছিলেন৷ তাঁর নেতৃত্বে কাজ করেন ফ্রাঙ্ক রুসছিটজকা (ইউনিভার্সিটি হসপিটাল জুরিখ), অমিত পটেল (ইউনিভার্সিটি উটাহ) বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানান যে তথ্য ওপর কাজ চলেছে, সেটা অন্য বিশেষজ্ঞ দল দিয়ে রিভিউ করানোর চেষ্টা চলছে৷

এই তথ্যগুলি জোগার করে শিকাগোর হেল্থ কেয়ার অ্যানালিটিক্স ফার্ম৷ নিজেদের তুলে ধরা তথ্য পুর্নমূল্যায়নের বিষয়ে একেবারে উদ্যোগী নয় এই সংস্থা৷

'যে যেভাবে বিশ্বজুড়ে করোনার ওষুধ নিয়ে কাজ হচ্ছে, তাতে আমাদের করা গবেষণার ওপর জোর দিতে পারছি না৷ প্রাথমিকভাবে যে তথ্যের ওপর গবেষণার কাজ এগিয়েছে সেটাকে পুরোপুরি ঠিক বলে দাবি করতে পারছি না৷ খুবই দুঃখজনক এই ঘটনা'৷ এমন বক্তব্য রেখে নিজেদের পেশ করা পেপার প্রত্যাহার করার আর্জি জানান গবেষকরা৷

ভাল কিছুর জন্য এই কাজ তাঁরা করেছিলেন, তবে তা না হওয়ায় পাঠক, এবং Lancet-এর এডিটারের কাছেও ক্ষমা চেয়েছেন তাঁরা৷

Published by: Pooja Basu
First published: June 5, 2020, 5:33 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर