দক্ষ কর্মী পাওয়ার চেষ্টা, ইন্টারভিউ দিতে গেলেই Mcdonald's দিচ্ছে ৫০ ডলার

দক্ষ কর্মী পাওয়ার চেষ্টা, ইন্টারভিউ দিতে গেলেই Mcdonald's দিচ্ছে ৫০ ডলার

দক্ষ কর্মী পাওয়ার চেষ্টা, ইন্টারভিউ দিতে গেলেই Mcdonald's দিচ্ছে ৫০ ডলার!

সোশ্যাল মিডিয়ায় এই বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পরই প্রশংসা কুড়োতে থাকে এই সংস্থা

  • Share this:

#ফ্লোরিডা: কলেজ শেষ, জোগার করতে হবে চাকরি। নেই ক্যাম্পাসিং, নেই হাতে টাকা। কিন্তু চাকরি করতে গেলে ইন্টারভিউ দিতেই হবে। ফলে বাবা-মায়ের থেকে টাকা নিয়েই একের পর এক অফিসের দরজায় পৌঁছে যাওয়া। পড়াশোনা একটা পর্যায় পর্যন্ত শেষ করার পর মধ্যবিত্তদের কাছে এই সময়টা খুবই স্ট্রাগলের। যেমন থাকে মানসিক চাপ তেমনই অনেকাংশে থাকে আর্থিক চাপও। ইন্টারভিউ দিতে এসে এই সব চাপই যাতে না থাকে, তাই বিশ্বের সবচেয়ে বড় ফুড চেইন Mcdonald's ইন্টারভিউ দিতে আসা সকলকে দিচ্ছে ৫০ ডলার করে অর্থ। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পরই প্রশংসা কুড়োতে থাকে এই সংস্থা।

ফ্লোরিডার টাম্পা এলাকার Mcdonald's-এক আউটলেটে এই সংক্রান্ত পোস্টার লাগানো রয়েছে। লেখা রয়েছে ইন্টারভিউ দিতে আসা প্রত্যেককে এই টাকা দেওয়া হবে টোকেন মানি হিসেবে। মহিলা পুরুষ নির্বিশেষে সংস্যার এই আউটলেটে এসে ইন্টারভিউ দিতে পারে।

আউটলেটের বাইরে লাগানো ওই পোস্টারের ছবিই দান নুন নামের একটি Twitter অ্যাকাউন্ট থেকে সম্প্রতি শেয়ার করা হয়। যা দেখা মাত্রই প্রশংসা করতে থাকে সকলে। ভাইরাল হয় পোস্টটি। অনেকেই বলেন এমন কাজ সত্যিই মহৎ।

আমেরিকার বেশ কয়েকটি জায়গায় করোনার জেরে লকডাউন হওয়ার ফলে ব্যবসায় সমস্যা হচ্ছে। খাবার দোকান বা প্রয়োজনীয় জিনিসের দোকানপাট খুললেও দক্ষ লোকজনের অভাব রয়েছে। করোনার ভয়ে অনেকেই বাড়ি থেকে বেরিয়ে কাজ করতে চাইছে না। দিনমজুরদেরও পাওয়া যাচ্ছে না কোথাও। ফলে বেশি টাকার মাইনে-সহ কর্মচারীদের জন্য একাধিক সুবিধা দিচ্ছে এখানকার সংস্থাগুলি।

তবে, Mcdonald's-এর এই শাখা যা করেছে তা একেবারেই ভিন্ন ধরনের এবং প্রশংসনীয় কাজ। যাঁর প্রোফাইল থেকে পোস্টটি ভাইরাল হয় তিনি অবশ্য ক্যাপশনে লেখেন, প্রত্যহ দেখা হচ্ছে শ্রমিকদের বাজার কেমন।

অনেকে প্রশংসা করলেও অনেকেই মনে করছেন এমন অফার যতই দিক, পরিস্থিতি মোকাবিলা করা ও শ্রমিকদের কাজে ফিরিয়ে আনা খুবই মুশকিল। তবুও সব সংস্থাই এদেশে চেষ্টা চালাচ্ছে যাতে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে অন্তত কাজ সঠিক ভাবে করা যায়।

Published by:Ananya Chakraborty
First published: