• Home
  • »
  • News
  • »
  • international
  • »
  • লন্ডনের গ্রেনফেল টাওয়ারে বিধ্বংসী আগুন !

লন্ডনের গ্রেনফেল টাওয়ারে বিধ্বংসী আগুন !

বিধ্বংসী আগুনের কবলে লন্ডনের বহুতল ৷ ল্যাকাস্টার ওয়েস্ট এস্টেট টাওয়ার ব্লকে ২৭ তলা বিল্ডিংয়ে আগুন লাগে ৷

বিধ্বংসী আগুনের কবলে লন্ডনের বহুতল ৷ ল্যাকাস্টার ওয়েস্ট এস্টেট টাওয়ার ব্লকে ২৭ তলা বিল্ডিংয়ে আগুন লাগে ৷

বিধ্বংসী আগুনের কবলে লন্ডনের বহুতল ৷ ল্যাকাস্টার ওয়েস্ট এস্টেট টাওয়ার ব্লকে ২৭ তলা বিল্ডিংয়ে আগুন লাগে ৷

  • Share this:

    #লন্ডন: বিধ্বংসী আগুনে পুড়ল পশ্চিম লন্ডনের গ্রেনফেল টাওয়ার। কয়েক ঘণ্টার আগুনে পুড়ে ছাড়খাড় সাতাশ তলার এই বহুতল। অগ্নিদগ্ধ হয়ে বেশ কয়েকজনের মৃত্যু হয়েছে। আহত বহু। দাবি লন্ডনের ফায়ার কমিশনারের। যেকোনও মুহূর্তে পুরো বিল্ডিং-ই ভেঙে পড়ার আশঙ্কা। বহুতলে ১২০ টি ফ্ল্যাট রয়েছে। সূত্রের খবর, এর আগে ওই বহুতলেই শর্ট সার্কিট হয়েছিল। দমকলের তরফে সেবার সতর্ক করা হলেও, তাতে কান দেয়নি বিল্ডিং কর্তৃপক্ষ।

    পশ্চিম লন্ডনের ল্যাটিমার রোডের গ্রেনফেল টাওয়ার। ২৭ তলার এই বহুতলের দোতলায় আচমকাই আগুন। সেই সময় অঘোরে ঘুমোচ্ছিলেন টাওয়ারের বাসিন্দারা। কেউ কিছু বুঝে ওঠার আগেই, আগুনের গ্রাসে গোটা বিল্ডিং। দাউদাউ করে জ্বলতে থাকে বহুতলটি। ধোঁয়ায় ঢেকে যায় চারপাশ। আগুনের ভয়াবহতায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েন বাসিন্দারা। শুরু হয়ে যায় হুড়োহুড়ি। প্রাণ বাঁচাতে ছোটাছুটি করতে থাকেন সকলে। পড়ি কি মরি করে অনেকেই বহুতল থেকে দেন মরণঝাঁপ। অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়েই দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছয় দমকল ও উদ্ধারকারী দল। কালবিলম্ব না করে শুরু হয় উদ্ধারকাজ। দমবন্ধ পরিস্থিতির মধ্যে একে একে সব বাসিন্দাকেই উদ্ধার করা হয়। তবে অগ্নিদগ্ধ হয়ে বেশ কয়েকজন আহত হন। তাঁদের হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে। আহত ও মৃতদের পরিবারের সাহায্যের জন্য চালু ইমার্জেন্সি নম্বর।

    বাসিন্দাদের উদ্ধারের পাশাপাশি আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা চালাতে থাকেন দমকলকর্মীরা। আগুন নেভাতে ব্যবহার করা হয় ল্যাডার। সাহায্য নেওয়া হয় হেলিকপ্টারেরও। তবে আগুন নেভাতে বেশ বেগ পেতে হয় দমকলকর্মীদের। সকালেও বহুতলের বিভিন্ন জায়গা থেকে আগুন ও ধোঁয়া বেরোতে দেখা যায়। বেশ কয়েক ঘণ্টার চেষ্টায় অবশেষে আগুন আয়ত্তে আনেন দমকলকর্মীরা। তবে আগুন নেভাতে গিয়ে দু’জন দমকলকর্মী আহত হয়েছেন।

    গ্রেনফেল টাওয়ারে দুর্ঘটনার খবর এবারই প্রথম নয়। ২০১৩ সালে গোটা বিল্ডিং-এ শর্টসার্কিট হয়। এরপরই বহুতলের কর্তৃপক্ষকে সতর্ক করা হয়েছিল। কিন্তু সেকথা কানে তোলেনি কেউ। কোনও ব্যবস্থা না নেওয়ায়, এবার এই ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি হয়েছে বলে আশঙ্কা।

    First published: