সূর্যের হাত থেকে পৃথিবীকে বাঁচিয়ে রাখা স্তরে বিশাল ফাটল! NASA-র রিপোর্টে আতঙ্ক

Massive dent in Earth's protective shield and it is getting wider, says NASA

পৃথীবিকে ঘিরে থাকা ম্যাগনেটিক ফিল্ড যা পৃথিবীকে যে স্তর রক্ষা করে সূর্যের রশ্মির থেকে তাতেই বড় ফাটল দেখা গিয়েছে৷ যা খুবই চিন্তার কারণ বলে জানানো হয়েছে৷

  • Share this:

    #হিউস্টন: পৃথিবীকে ঘিরে থাকে যে স্তর, সেটাই এখন বিপদের মুখে! স্তরের বিশাল জায়গা জুড়ে ফাটল ধরেছে৷ যার ফলে সেই স্তর ধীরে ধীরে পাতলা হয়ে পড়ছে এবং কমছে তার ক্ষমতাও৷ একে বলা হচ্ছে সাউথ অতলন্তিক অ্যানোমলি বা এসএসএ (South Atlantic Anomaly- SAA)৷ ভৌগলিক এই স্তরে বিশালভাবে ফাটলের কারণে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তা দুটি ভাগে ভাগ হয়ে যাচ্ছে৷ বিশেষ এই নামকরণ হয়েছে এর ভৌগলিক অবস্থানের কথা মাথায় রেখে৷ কারণ এই জায়গাটি পড়ছে দক্ষিণ আমেরিকা ও দক্ষিণ অতলন্তিক সাগরের ওপর৷

    এই চুম্বকীয় স্তরটি পৃথিবীকে ঘিরে রাখে এবং সূর্যের যে কণা পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসে সেগুলিকে দূরে সরিয়ে দিতে সাহায্য করে৷ ফলে সেই সব থেকে পৃথিবীকে রক্ষা করে এই স্তরটি৷ NASA জানাচ্ছে যে, এখনই এই বড় ফাটলটির প্রভাব সরাসরি জনজীবনে পড়ছে না, তবে সম্প্রতি যে সব রিপোর্ট সামনে এসেছে, তাতে দেখা গিয়েছে যে দিন দিন বিপদের আশঙ্কা বাড়ছে৷ কারণ দিন দিন আরও গভীর হচ্ছে এই ফাটল৷

    NASA-র বিজ্ঞানীদের গবেষণার জন্য এই ম্যাগনেটিক ফিল্ডটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ৷ এর ওপর নির্ভর করে বায়ুস্তরে কতটা পরিবর্তন ঘটবে৷ দেখা গেছে যে এই বিশেষ স্তরটির ফাটল এতটাই বড় যে স্তরটি প্রায় দুভাগে বিভক্ত৷ এরফলে স্তরের জোর কমছে৷

    এই ম্যাগনেটিক ফিল্ডে সমস্যা শুরু হয়েছে অনেক বছর আগেই৷ উত্তর থেকে হাল্কা নিজের পথ পরিবর্তন করেছে এই ফিল্ড৷ ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সি (ESA)জানিয়েছে গত ২০০ বছর ধরে ৯ শতাংশ ক্ষমতা কমেছে এই ম্যাগনেটিক ফিল্ডের৷ তবে সাউথ আটলান্টিক অ্যানোমলি বা এসএসএ-র ক্ষয় হচ্ছে আরও দ্রুত৷ ১৯৭০ থেকে প্রায় ৮ শতাংশ ক্ষয় হয়েছে এর৷

    এর জেরে কী সমস্যা হতে পারে? জানানো হয়েছে যে যখনই কোনও স্যাটেলাইট এই এসএসএ-র কাছ দিয়ে যাবে তখনই সূর্যের থেকে হাই এনার্জির প্রোটনে ধাক্কা খাওয়ার আশঙ্কা থাকছে৷ কারণ ম্যাগনেটিক ফিল্ডের দুর্বলতা বাড়ছে এবং তা সূর্যের থেকে আসা কোনও কিছু থেকে রক্ষা করতে পারবে না৷ এছাড়াও স্যাটালাই কম্পিউটারেও সমস্যা তৈরি হতে পারে৷ আর অন্যদিকে ধীরে ধীরে এই ফাটলটি আরও বড় হলে সূর্যরাশির বিচ্ছুরণ আরও বাড়বে ফলে সূর্যের তেজ আরও অনুভূত হবে৷

    Published by:Pooja Basu
    First published: