• Home
  • »
  • News
  • »
  • international
  • »
  • ৩০ ঘণ্টা পর ক্রেন দিয়ে গর্ত খুঁড়ে পোষ্যকে বাঁচালেন ব্যক্তি, কুর্নিশ নেটিজেনদের

৩০ ঘণ্টা পর ক্রেন দিয়ে গর্ত খুঁড়ে পোষ্যকে বাঁচালেন ব্যক্তি, কুর্নিশ নেটিজেনদের

৩০ ঘণ্টা পর ক্রেন দিয়ে গর্ত খুঁড়ে পোষ্যকে বাঁচালেন ব্যক্তি, কাঁদতে কাঁদতে বললেন আর কখনও চোখের আড়াল হতে দেবেন না...

৩০ ঘণ্টা পর ক্রেন দিয়ে গর্ত খুঁড়ে পোষ্যকে বাঁচালেন ব্যক্তি, কাঁদতে কাঁদতে বললেন আর কখনও চোখের আড়াল হতে দেবেন না...

৩০ ঘণ্টা পর ক্রেন দিয়ে গর্ত খুঁড়ে পোষ্যকে বাঁচালেন ব্যক্তি, কাঁদতে কাঁদতে বললেন আর কখনও চোখের আড়াল হতে দেবেন না...

  • Share this:

#ইংল্যান্ড: JCB বা আর্থ মুভিং মেশিনের ব্যবহার সকলেরই জানা। বাড়ি বানাতে, রাস্তা বানাতে বা কোনও কিছু খুঁড়তে সাহায্য করে এটি। কিন্তু এই JCB মেশিন দিয়ে অনেকেই অন্যান্য অনেক কাজ করে থাকে। যেমন ভারি কিছু তোলার প্রয়োজন পড়লে JCB কাজে আসে। আর এই মেশিনকে এবার এমনই এক কাজে লাগালেন ইংল্যান্ডের এক ব্যক্তি। JCB দিয়ে তিনি উদ্ধার করলেন তাঁর পোষ্যকে।

দ্য সান-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, ইংল্যান্ডের ৫৪ বছরের ব্যক্তি ডানকান ফ্লাওয়ার্স তাঁর পোষ্য ডিজিকে বাঁচাতে JCB-র ব্যবহার করেন।

ঘটনার সূত্রপাত ডিজিকে নিয়ে ঘুরতে বেরনো থেকে। একদিন বিকেলে পোষ্যর সঙ্গে হাঁটতে বেরিয়েছিলেন ডানকান। এদিক ওদিক ঘুরে যখন গাড়িতে উঠতে যাবেন, তার ঠিক আগে ডিজি নিজের মনে খেলতে খেলতে ডানকানের থেকে একটু দূরে চলে যায়। তিনি ভেবেছিলেন ডিজি হয় তো খেলছে। বা ইঁদুর দেখে, বিড়াল দেখে তাদের তাড়া করছে। কিন্তু বেশ কিছুক্ষণ হয়ে গেলেও ডিজি না ফেরায় খোঁজ লাগাতে শুরু করেন তিনি।

কিন্তু কয়েক ঘণ্টা পুরো এলাকা খোঁজের পরও তিনি ডিজির হদিশ পান না। এমনকি কোনও আওয়াজ পাওয়া যায় না তার। আশপাশের লোকজন তাঁকে সাহায্য করছিলেন, কিন্তু তাঁরাও ডিজিকে খুঁজে পেতে ব্যর্থ হন। এর পর বাড়ি ফিরে তিনি বন্ধুদের জানান বিষয়টি।

পরেরদিন ২৪ জন বন্ধুবান্ধব ও এক বন্ধুর JCB নিয়ে ওই এলাকায় হাজির হন তিনি। তাঁর সঙ্গে সঙ্গে আবারও ডিজিকে খোঁজা শুরু করেন বন্ধুরা। অনেক্ষণ পর একটি ইঁদুরের গর্ত খুঁজে পান তাঁদের মধ্যে একজন এবং বুঝে যান হয় তো এখানেই আটকে রয়েছে ডিজি। ডানকানের অনুমতি নিয়ে JCB দিয়ে গর্তের আশপাশ খোড়া শুরু হয়। প্রায় ২০ ফুট নিচে পর্যন্ত খোড়ার পর ডিজিকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়।

৩০ ঘণ্টা পর নিজের পোষ্যকে খুঁজে পেয়ে কেঁদে ফেলেন ডানকান। ধন্যবাদ জানান বন্ধুদের। JCB-কেও কার্যত ধন্যবাদই জানান।

এই বিষয়ে সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে ডানকান জানান, আমি খুবই খুশি ওকে ফিরে পেয়ে। আমি ভেবেছিলাম হয় তো ওকে আর কোনও দিনও ফিরে পাব না। পাশাপাশি জানান, আর কোনও দিন ডিজিকে চোখের আড়াল হতে দেবেন না তিনি!

Published by:Rukmini Mazumder
First published: