হোম /খবর /বিদেশ /
রাস্তায় স্ত্রীকে পিটিয়ে মারল স্বামী, দাঁড়িয়ে দেখল জনতা! চিনে চরম অমানবিকতা

ব্যস্ত রাস্তায় স্ত্রীকে পিটিয়ে মারলেন স্বামী, দাঁড়িয়ে দেখল জনতা! চিনে চরম অমানবিকতা

তিনজনকে গ্রেফতার করার পাশাপাশি খুনে ব্যবহৃত ছুরি এবং ইট উদ্ধার করেছে পুলিশ৷ নিহত ব্যবসায়ীর দেহ উদ্ধারের চেষ্টা চলছে৷ প্রতীকী ছবি৷

তিনজনকে গ্রেফতার করার পাশাপাশি খুনে ব্যবহৃত ছুরি এবং ইট উদ্ধার করেছে পুলিশ৷ নিহত ব্যবসায়ীর দেহ উদ্ধারের চেষ্টা চলছে৷ প্রতীকী ছবি৷

চিনের বিভিন্ন গণমাধ্যমেই এই ঘটনার ছবি ছড়িয়ে পড়ে৷ তার পর তা ভাইরাল হয়৷

  • Last Updated :
  • Share this:

#বেজিং: ব্যস্ত রাস্তার মধ্যেই নিজের স্ত্রীকে পেটাচ্ছেন স্বামী৷ মারের চোটে ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে ঢলে পড়ছেন মহিলা৷ অথচ রাস্তার ধারে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখলেও তাতে বাধা দিচ্ছেন না কেউ৷ চিনের শৌঝউ শহরের এই ঘটনার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই ভাইরাল হয়েছে৷ যে ভিডিও দেখে অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন, আশেপাশে অত মানুষ থাকলেও কেন কেউ এগিয়ে মারমুখী ওই ব্যক্তিকে আটকালেন না?

চিনের বিভিন্ন গণমাধ্যমেই এই ঘটনার ছবি ছড়িয়ে পড়ে৷ তার পর তা ভাইরাল হয়৷ জানা গিয়েছে শনিবার সকালে ওই ঘটনাটি ঘটে৷ ওই দম্পতি একটি ইলেক্ট্রিক স্কুটারে চড়ে যাওয়ার সময় একটি গাড়ির সঙ্গে তাদের ধাক্কা লাগে৷ এর পরই গন্ডগোলের সূত্রপাত৷ অভিযোগ, নিজের স্ত্রীর উপরে কোনও কারণে ক্ষুব্ধ হয়ে তাঁকে বেধড়ক মারধর করতে শুরু করে ওই ব্যক্তি৷

ভাইরাল হওয়া ছবিতে দেখা গিয়েছে, যেখানে এই ঘটনা ঘটছে তার চারপাশে পথচারী থেকে শুরু করে সাইকেল, মোটরসাইকেল আরোহী দাঁড়িয়ে রয়েছেন৷ অথচ মহিলাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসেননি কেউ৷ ভিডিও দেখে অনেকেই প্রশ্ন করেছেন, ওই ব্যক্তির কাছে কোনও অস্ত্র না থাকা সত্ত্বেও কেন কেউ মহিলার সাহায্যে এগিয়ে গেলেন না?

পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, অভিযুক্ত ব্যক্তিকে হেফাজতে নেওয়া হয়েছে৷ গোটা ঘটনার তদন্ত করা হচ্ছে৷ চিনের সমাজকর্মীদের অনেকেরই অভিযোগ, সেদেশে প্রায়শই পারিবারিক হিংসার ঘটনাকে উপেক্ষা করা হয়৷ পারিবারিক হিংসার ঘটনায় লাগাম পরাতে ২০১৫ সালে কড়া আইন নিয়ে এসেছিল চিন৷ এই আইন অনুযায়ী পারিবারিক হিংসাকে ফৌজদারি অপরাধ হিসেবে ঘোষণা করা হয়৷

Published by:Debamoy Ghosh
First published: