বাড়ির সামনে গভীর গর্ত! মাছ ধরে, স্নান করে সরকারি কর্তাদের ঘুম ওড়ালেন যুবক

তাঁর সেই মজার ভিডিয়োতেই লোকানো ছিল প্রতিবাদের বীজ।

তাঁর সেই মজার ভিডিয়োতেই লোকানো ছিল প্রতিবাদের বীজ।

  • Share this:

    #জাকার্তা: ঝা চকচকে বাড়ি চারপাশে। বলতে গেলে অভিজাত এলাকা। কিন্তু সেই আভিজাত্য মাটি করে দেয় এলাকার রাস্তা। গভীর গর্ত রাস্তার মাঝে। প্রায় রোজই সেই গর্তের জন্য ঘটছে দুর্ঘটনা। দুবছর ধরে রাস্তা মেরামত হয়নি। এলাকার মানুষ হাজারবার আবেদন করলেও প্রশাসনের ঘুম ভাঙেনি। শেষমেশ প্রতিবাদের অভিনব রাস্তা খুঁজে বের করলেন যুবক। বাড়ির সামনের রাস্তার গর্তে তিনি মগ হাতে নেমে পড়লেন। দিব্যি স্নান করলেন গর্তের জমা জলে। তার পর সেই গর্তে মাছ ধরার জন্য ছিপ হতে নেমে পড়লেন। তাঁর সেই কাণ্ডের ভিডিয়ো উঠল। সেই ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় উঠতেই সবাই হেসে কুটোপাটি খেলেন। তবে তাঁর সেই মজার ভিডিয়োতেই লোকানো ছিল প্রতিবাদের বীজ। সেই বীজই বড় হয়ে দেখা দিল।

    আমাক ওহান নামের সেই যুবক ইন্দোনেশিয়ার প্রায়া সিটির বাসিন্দা। সেখানে বছরের পর বছর ধরে ভাঙা রাস্তা সারাই হচ্ছে না। বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হয়েছে রাস্তার মাঝে। আমাক একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের কর্মী। সেই সংগঠন বহুদিন ধরে ইন্দোনেশিয়ায় মানুষের স্বার্থরক্ষার জন্য লড়াই করছে। আমাক তাই চেয়েছিলেন, ভাঙা রাস্তার জন্য মানুষের নিত্য দুর্ভোগের ছবিটা তুলে ধরতে। সেই উদ্দেশ্যে তিনি সফল। তাঁর সেই ভিডিয়ো ভাইরাল হতেই ঘুম উড়ল প্রশাসনিক কর্তাদের। তাঁরা তড়িঘড়ি ওই এলাকায় হাজির হলেন। তার পর যুদ্ধকালীন তত্পরতায় চলল রাস্তা মেরামত।

    বছর দুয়েক ধরেই ওই এলাকার রাস্তার বেহাল দশা। তবে সম্প্রতি ভারি বৃষ্টি হওয়ায় সেই রাস্তা আর চলাচলের যোগ্য ছিল না। আমাক তাই আর প্রশাসনিক কর্তাদের কাছে রাস্তা সারাইয়ের আবেদন জানাননি। তিনি এবার এমন কিছু করতে চেয়েছিলেন যাতে কর্তাদের ঘুম ভাঙে। প্রশাসনিক কর্তারা অবশ্য ভাঙলেও মচকালেন না। তাঁদের দাবি, বৃষ্টি থামলেই রাস্তা সারাইয়ের জন্য নামতেন তাঁরা। আমাক অবশ্য তাঁদের পাল্টা দিতে একটিও শব্দও খরচ করলেন না। কারণ, ততক্ষণে তাঁর অভিনব প্রতিবাদ আসল কাজ করেই দিয়েছিল।

    Published by:Suman Majumder
    First published: