Home /News /international /
মহাকাশে হেঁটেছিলেন, এবার ডুব দিলেন পৃথিবীর গভীরতম অংশে, চিনে নিন ৬৮ বছরের ক্যাথিকে

মহাকাশে হেঁটেছিলেন, এবার ডুব দিলেন পৃথিবীর গভীরতম অংশে, চিনে নিন ৬৮ বছরের ক্যাথিকে

Photo Courtesy- NYTimes

Photo Courtesy- NYTimes

সারা দুনিয়া কুর্নিশ করছে এই মহিলাকে

  • Share this:

    #নিউইয়র্ক: মার্কিন প্রৌঢ়ার নজিরবিহীন কৃতিত্ব ৷ প্রথম মহিলা হিসেবে মহাকাশে হাঁটার পর এবার গেলেন মহাসাগরের গভীরতম এলাকায় ৷ রবিবার দিন ৬৮ বছরের ক্যাথি সুলিভান ৩৫,৮১০ ফুট চ্যালেঞ্জারে ডিপে ডাইভ করেন ৷  EYOS Expeditions নামের একটি লজিস্টিক কোম্পানি তাঁকে এই মিশনে সহায়তা করেছিল ৷

    প্রথম মহিলা হিসেবে এই নজির গড়লেন তিনি ৷ যিনি মহাকাশেও হেঁটেছিলেন পাশাপাশি পৃথিবীর গভীরতম এলাকায় ডুব দিলেন ৷ রিসার্চ অনুযায়ী চ্যালেঞ্জার ট্রেঞ্চ পৃথিবীর গভীরতম এলাকা ৷

    সুলিভান ও ভিক্টর এ ভেসকোভো মহাসাগরের এই গভীরতম এলাকায় প্রায় দেড় ঘণ্টা সময় কাটান ৷ মারিয়ানা ট্রেঞ্চের ভিতর দিয়ে প্রায় ৭ মাইল গিয়েছিলেন এই দুই অভিযাত্রী ৷ এই এলাকা গুয়ামের ২০০ মাইল দক্ষিণ পূর্বে রয়েছে ৷

    In an image provided by NASA, Kathy Sullivan during a space walk from the shuttle Challenger in 1984. (NASA via The New York Times) In an image provided by NASA, Kathy Sullivan during a space walk from the shuttle Challenger in 1984. (NASA via The New York Times)

    একটি বিশেষ ধরণের ডুবো জলযানে থেকে এই এলাকার ছবিও তোলেন তাঁরা ৷ এই পর্বে মোট চার ঘণ্টা লেগেছে তাঁদের নামতে ৷ নিজেদের জাহাজে ফেরার সময় তাঁরা আন্তর্জাতিক স্পেস স্টেশনে থাকা মহাকাশচারীদের সঙ্গে কথা বলেন ৷ যাঁরা পৃথিবীর থেকে ২৫৪ মাইল দূরে ছিলেন ৷

    এদিনের শুরুতে সুলিভানকে অভিনন্দন জানান কারণ তিনিই প্রথম মহিলা যিনি মহাসাগরের গভীরতম অংশে গেলেন ৷ ১৯৭৮ সালে  NASA যোগ দেন তিনি৷ তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সেই গ্রুপ যেখানে কোনও মহিলা মহাকাশচারী ছিলেন ৷ ১৯৮৪ সালের ১১ অক্টোবর তিনি প্রথম মহিলা হিসেবে মহাকাশে হেঁটেছিলেন ৷

    সুলভিয়ান পৃথিবীর থেকে ১৪০ মাইল দূরে গিয়ে হেঁটেছিলেন ৷ ‘এটা একটা মেজর ইভেন্ট ছিল , পৃথিবীতে এই ধরনের রোমহর্ষক ইভেন্ট হলে অংশ নিতে দারুণ লাগে ৷ ’

    এদিকে সূত্রের খবর অনুযায়ী সমুদ্রে আরও কয়েকদিন কাটাবেন সুলিভান ৷ এপ্রিল ২০১৯ এ ভেসকোভো পার্টনার ছিলেন ৷ ২০১২ জেমস ক্যামেরন তাঁর সঙ্গে এই কাজ করতে অস্বীকার করেছিলেন ৷ এই ক্যালাডান ওশানিক নামের কোম্পানিও সুলিভানের এই প্রজেক্টে সহায়তা করেছে ৷

    Published by:Debalina Datta
    First published:

    Tags: America, Earth, NASA

    পরবর্তী খবর