Japanese Princess Mako|| কোনও রাজকুমারকে নয়, সাধারণ যুবককে বিয়ে করতে চান জাপানের রাজকুমারী! কেন জানেন?

জাপানের রাজকুমারী।

Japanese Princess Marriage: জাপানের রাজকুমারী মাকো খুব শীঘ্রই গাঁটছড়া বেঁধে আমেরিকা যাওয়ার পরিকল্পনা করছেন।

  • Share this:

#জাপান: রোমিও-জুলিয়েট হোক বা সেলিম আনারকালির গল্প। সব ক্ষেত্রেই এটাই দেখা গিয়েছে যে ভালোবাসার পথ কখনও মসৃণ হয় না। এবার সেই একই কথা প্রযোজ্য হল জাপানের (Japan) রাজকুমারী মাকোর (Princess Mako) ক্ষেত্রেও। শোনা যাচ্ছে, জাপানের রাজকুমারী মাকো খুব শীঘ্রই গাঁটছড়া বেঁধে আমেরিকা যাওয়ার পরিকল্পনা করছেন। জাপানের ক্রাউন প্রিন্স আকিশিনোর (Crown Prince Akishino) কন্যা ও সম্রাট নারুহিতোর (Emperor Naruhito) ভাইজি মাকো তাঁর প্রেমিক কেই কামুরোকে (Kei Komuro) বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আর এই সিদ্ধান্তের পর থেকেই শুরু হয়েছে উত্তেজনা। পাশাপাশি জাপানের পুরনো ঐতিহ্য বাদ রেখে বিয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন রাজকুমারী। একইসঙ্গে, রাজ পরিবারের বিবাহিত মহিলাদের যে উপহার দেওয়া হয় সেটিও নেওয়ার সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করেছেন রাজকুমারী মাকো। জাপানের সাম্রাজ্য উত্তরাধিকার বিধি মানে যদি ২৯ বছরের রাজকুমারী মাকো কোনও সাধারণ ব্যক্তিকে বিবাহ করেন তাহলে তিনি রাজ উপাধি হারিয়ে ফেলবেন।

অন্যদিকে, মাকোর প্রেমিক কামুরোর মায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে তাঁর প্রাক্তন বাগদত্তার কাছ থেকে নেওয়া টাকা এখনও শোধ না করার। এরপরই জাপানের একটি দৈনিক সংবাদপত্র খবর করে, এই অভিযোগ ফাঁস হওয়ার পরই হৈচৈ শুরু হয়ে গিয়েছে। উত্তেজনার ফলে মাকো ও কামুরো তাঁদের বিয়ের তারিখ পিছিয়ে ফেলেন এবং কামুরো এই নেতিবাচক বিষয় থেকে দূরে থাকবার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান। ক্রাউন প্রিন্স আকিসিনো তাঁর কন্যার সিদ্ধান্তকে সমর্থন করেন, কিন্তু তিনি বলেন তাঁর কন্যা মাকো যদি জনতার বোঝাপড়া জিততে পারেন তাহলে এই বিয়ে নিয়ে কোনও অসুবিধা থাকবে না। কিন্তু, মাকো রাজ পরিবারের কোনও সিদ্ধান্ত ও আচার অনুষ্ঠান ছাড়াই বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। এমনকী রাজকীয় অর্থ প্রদান বিষয়টিতেও অসম্মতি জানিয়েছেন। এই অর্থের পরিমাণ যদিও সঠিক কারও জানা নেই, তবে সূত্রের খবর এই অর্থের পরিমাণ প্রায় ১৩৭ মিলিয়ন ইয়েন বা তারও বেশি।

মাকো বিয়ের পর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে চলে যাওয়ার পরিকল্পনা করছেন বলে জানা গিয়েছে। মাকোর ১৪ বছর বয়সী একটি ভাই আছে। যাঁর নাম প্রিন্স হিশাহিতো (Prince Hisahito)। বর্তমানে মাকোর বাবা ছাড়া সিংহাসনের একমাত্র যোগ্য উত্তরাধিকারী তাঁর ভাই। কারণ, জাপানের ক্রিস্যান্থেমাম সিংহাসন কেবল পরিবারের পুরুষ সদস্যদের কাছেই যেতে পারে। রাজকুমারীর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়া নিয়ে যদিও এখনও কোনও সদুত্তর পাওয়া যায়নি। রাজকুমারীর এই বিয়ে নিয়ে বহু নেটিজেন তাঁদের মতামত শেয়ার করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। একজন জাপানি নেটাগরিক Twitter-এ লেখেন, “খুব কম মানুষ রাজকুমারীর বিয়ে হৃদয় থেকে উদযাপন করবেন। আমি চিন্তিত তাঁর বিয়ে নিয়ে”। অন্য আরেকজন লেখেন “দারুন ব্যাপার। এটা রাজকুমারীর নিজের সিদ্ধান্ত।” এখন ভবিষ্যতে রাজকুমারী মাকো তাঁর রাজ পরিবার ছেড়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে চলে যাবেন, নাকি অন্য কোনও সিদ্ধান্ত নেবেন তা সময় বলবে।

Published by:Shubhagata Dey
First published: