বিদেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

ট্রাম্প বিদায়ের আগেই সুলেমানি হত্যার বদলা,হুমকি ইরানের

ট্রাম্প বিদায়ের আগেই সুলেমানি হত্যার বদলা,হুমকি ইরানের

আগামী তিন জানুয়ারির ভেতর আমেরিকার ওপর চরম আঘাত হানতে পারে ইরান। ওইদিন কাসেম সুলেমানির মৃত্যুর এক বছর পূর্ণ হচ্ছে।

  • Share this:

# তেহরান : মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এখনও করোনা ভাইরাসের সঙ্গে লড়ে মাথা তুলে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে। পৃথিবীর সবচেয়ে শক্তিশালী দেশ ভাইরাসে এতটা ব্যাকফুটে চলে যাবে কে ভাবতে পেরেছিল? ডোনাল্ড ট্রাম্প বিদায় নেবেন। নতুন মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেবেন জো বাইডেন। তিনি আসার পর কিভাবে ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে লড়াই চালাবে আমেরিকা সবকিছুই বলা হয়ে গেছে সংবাদমাধ্যমে। কিন্তু শুধু ভাইরাস নয়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জন্য পরের দশ দিন খুব গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে।

আগামী তিন জানুয়ারির ভেতর আমেরিকার ওপর চরম আঘাত হানতে পারে ইরান। ওইদিন কাসেম সুলেমানির মৃত্যুর এক বছর পূর্ণ হচ্ছে। ইতিমধ্যেই ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ খামেনেই চ্যালেঞ্জ দিয়ে বলেছেন ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হিসেবে বিদায় নেওয়ার আগেই বদলা নেবে ইরান। তবে কবে,কোথায়, কীভাবে সেটা বলেননি সর্বোচ্চ নেতা। তবে ইরানের জনপ্রিয় কমান্ডারকে হত্যা করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কত বড় ভুল করেছে তা তাঁরা খুব তাড়াতাড়ি উপলব্ধি করতে পারবে বলে জানিয়েছেন আয়াতুল্লাহ।

উল্লেখ্য একদিন আগেই বাগদাদের মার্কিন দূতাবাস লক্ষ্য করে পরপর মিসাইল হামলা চালানো হয়। আমেরিকা জানিয়েছে সেই হামলায় কেউ নিহত না হলেও কিছু ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বিশেষজ্ঞদের ধারণা এই রকেট হামলা চালিয়ে ইরান বার্তা দিতে চেয়েছে প্রস্তুত থাক। এটা ট্রেলার। আসল সিনেমা বাকি রয়েছে। মার্কিন দূতাবাসে হামলা করার ক্ষমতা দেখিয়ে নিজেদের শক্তি জাহির করতে চেয়েছে ইরান। এদিকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে জানানো হয় ইরান যদি কোনও প্রতিশোধমূলক ব্যবস্থা নেয় তাহলে পাল্টা জবাব দিতে ওয়াশিংটন প্রস্তুত।

যুক্তরাষ্ট্রের সেন্ট্রাল কমান্ডারের (সেন্টকম) প্রধান জেনারেল ম্যাকেনজি এ কথা জানান। ম্যাকেনজি বলেন, 'আমরা নিজেদের এবং ওই অঞ্চলে আমাদের বন্ধু ও অংশীদারের রক্ষায় প্রস্তুত আছি। যদি দরকার হয় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে আমরা প্রস্তুত।'গোপন স্থান থেকে টেলিফোনে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, 'আমার মূল্যায়ন হচ্ছে আমরা খুব ভাল অবস্থানে আছি এবং ইরানি অথবা অন্য কেউ কোন ধরণের ব্যবস্থা নিতে গেলে তার জন্য আমরা প্রস্তুত থাকব'।

প্রসঙ্গত বাগদাদ বিমানবন্দরের বাইরে ইরানি কমান্ডার যখন গাড়ি করে যাচ্ছিলেন তখন ওপর থেকে ড্রোন দিয়ে হামলা চালিয়ে তাঁকে মেরেছিল আমেরিকা। ক্ষোভের আগুন জ্বলে উঠেছিল ইরানে। রাজধানী তেহরান সহ বিভিন্ন জায়গায় রাস্তায় নেমেছিল মানুষের ঢল। মাঝে একটা বছর কেটে গেলেও প্রতিশোধের আগুন কমেনি ইরানিদের। তাই এটা হুমকি না সত্যিই যুদ্ধের হুংকার তা আগামী কয়েক দিনের ভেতরেই পরিষ্কার হয়ে যাবে।

Published by: Rohan Chowdhury
First published: December 22, 2020, 7:21 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर