কাশ্মীরকে স্বাধীনতা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি ইমরানের, শুরু নতুন বিতর্ক

কাশ্মীরিদের স্বাধীনতা দিতে চান ইমরান photo/the dawn

ইমরান জানিয়েছেন কাশ্মীরের সাধারণ মানুষকে মুক্ত করতে চান তিনি। যদি বিতর্কিত হিমালয় অঞ্চলের মানুষ জাতিসংঘে গণভোটের সময় পাকিস্তানে যোগদানের জন্য ভোট দেয়।

  • Share this:

    #লাহোর: আবার নতুন বিতর্কে জড়ালেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এমনিতেই ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর চেয়ারে বসলে ও কথা রাখেননি ইমরান। বন্ধ হয়নি পাকিস্তানের চিরাচরিত ছায়া যুদ্ধ। জঙ্গি অনুপ্রবেশ থেকে শুরু করে সীমান্তে গোলাগুলি কিছুই বন্ধ করেনি পাকিস্তান। ভারতের দাবি মেনে কুলভূষণ যাদবকেও মুক্তি দেয়নি তাঁরা। এর ভেতর হঠাৎ করে ইমরান জানিয়েছেন কাশ্মীরের সাধারণ মানুষকে মুক্ত করতে চান তিনি। যদি বিতর্কিত হিমালয় অঞ্চলের মানুষ রাষ্ট্রসংঘে গণভোটের সময় পাকিস্তানে যোগদানের জন্য ভোট দেয়। যেটি কয়েক দশক ধরে ঝুলে রয়েছে।কাশ্মীরের সংহতি দিবসের এক সমাবেশে অংশ নিয়ে স্থানীয় সময় শুক্রবার ইমরান খান এসব কথা বলেন।

    কাতারের বিখ্যাত সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৯৪৭ সালে ব্রিটিশদের কাছ থেকে স্বাধীনতা পাওয়ার পর থেকেই ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে এই কাশ্মীর নিয়ে ঝামেলা লেগে রয়েছে। দুই দেশ এই ইস্যুতে দুই দফা যুদ্ধেও জড়িয়েছে। ভারত ও পাকিস্তান দুই দেশের পক্ষ থেকেই পুরো কাশ্মীরকে নিজেদের বলে দাবি করা হয়।পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের কোটলি শহরে অনুষ্ঠিত সমাবেশে ইমরান খান বলেন, তিনি এখানকার মানুষদের নিজেদের সিদ্ধান্ত নেওয়ার পুরো অধিকার দিতে চেয়েছিলেন। ইমরান খান বলেন, ‘আপনি যখন আপনার ভবিষ্যতের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন এবং কাশ্মীরের মানুষ আল্লাহর ইচ্ছায় পাকিস্তানের পক্ষে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়, আমি বলতে চাই এরপর পাকিস্তানের পক্ষ থেকে কাশ্মীরকে সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার দেবে যে তাঁরা পাকিস্তানের অংশ হয়ে থাকতে চান নাকি স্বাধীনতা চান।’ তিন আরও বলেন, এটি হবে আপনাদের অধিকার।আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, সমস্যা সমাধানে ভারতের সঙ্গে আলোচনার জন্য প্রস্তুত ছিল পাকিস্তান।

    এমনটি দাবি করে ইমরান খান বলেন, তাঁর সরকার ভারতের সঙ্গে আলোচনার জন্য প্রস্তুত ছিল। তবে কেবলমাত্র ভারত যদি কাশ্মীরের বিশেষ সাংবিধানিক মর্যাদা তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে। ভারত সরকারের পক্ষ থেকে এর জবাবে কিছু বিবৃতি দেওয়া হয়নি। আসলে ভারত ইমরানের এমন অযৌক্তিক কথার গুরুত্ব দিতে নারাজ।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: