আবারও লন্ডনে জঙ্গি হামলা, টিউবের মধ্যে বিস্ফোরণ

আবারও লন্ডনে জঙ্গি হামলা, টিউবের মধ্যে বিস্ফোরণ
Picture Courtesy Reuters

আবারও লন্ডনে জঙ্গি হামলা, টিউবের মধ্যে বিস্ফোরণ

  • Share this:

 #লন্ডন: ফের সন্ত্রাসের সফট টার্গেট লন্ডন। দক্ষিণ-পশ্চিম লন্ডনের টিউবের ভিতরে প্লাস্টিকের ব্যাগে বিস্ফোরণ রাখা ছিল। ভারতীয় সময় বেলা ১ টা ২০ টা নাগাদ বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে পার্সনস গ্রিন মেট্রো স্টেশন। বিস্ফোরণে আহত অন্তত ২২ জন। আইইডি ব্যবহার করেই বিস্ফোরণ ঘটানো হয় বলে নিশ্চিত পুলিশ। বিস্ফোরণের পরই বন্ধ করা হয় মেট্রো চলাচল। সিসিটিভি দেখে জঙ্গিদের শনাক্ত করার কাজ চালাচ্ছে অ্যান্টি টেররিস্ট স্কোয়াড।

গত ১১ মাসে ৫ বার। শুক্রবারও লন্ডনের ওপর থাবা বসাল সন্ত্রাস। এবার হামলা হল শহরের লাইফলাইন বলে পরিচিত টিউবে। ব্যস্ততম সময়ে সন্ত্রাসের জেরে নতুন করে আতঙ্কের আবহে লন্ডন।

বিস্ফোরণের কয়েকটি মিনিটের মধ্যে হামলাস্থলের ছবি ছড়িয়ে পড়ে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে। কোনও ছবিতে আহতদের মাটিতে পড়ে থাকতে দেখা গিয়েছে। কোথাও ঝলসানো মুখ নিয়েই প্রাণ বাঁচানোর চেষ্টা করছেন যাত্রীরা। স্কটল্যান্ড ইয়ার্ডের দাবি, আতঙ্ক ছড়াতেই কম ক্ষমতার আইইডি ব্যবহার করেছে জঙ্গিরা। যদিও বিস্ফোরণের প্রায় ২ ঘণ্টা পর সরকারিভাবে একে জঙ্গি হামলা বলে স্বীকার করে পুলিশ।

-

দুপুর ১. ২০

পার্সনস গ্রিন টিউব স্টেশনে প্রবল বিস্ফোরণের শব্দ

- ১.২৫

টিকিট কাউন্টারের পাশে একটি ব্যাগ থেকে ধোঁয়া বেরোতে দেখা যায়

-১.৩০

বন্ধ করা হয় মেট্রো চলাচল। আরও বিস্ফোরকের খোঁজে তল্লাশি

- ১.৩৫

আইইডি বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে বলে সংশয়

একটি শপিং মলের ব্যাগে ভরে আনা হয়েছিল বিস্ফোরক

- সরু তার ও টাইমারের মাধ্যমে বিস্ফোরণ ঘটান হয়

- ২.১০

তদন্তে নামল স্কটল্যান্ড ইয়ার্ড

- ৩.০০

বৈঠকে বসল দেশের শীর্ষ নিরাপত্তা কমিটি বা কোবরা

- ৪.৩০

ডিটোনেটার ফাটলেও মূল বিস্ফোরক অক্ষতই আছে, ঘোষণা বম্ব স্কোয়ার্ডের

যেভাবে টিউবের মতো এলাকাকে নিশানা করছে জঙ্গিরা, তা অভিনব। পারসনস গ্রিন স্টেশনের মতো হাই-প্রোফাইল স্টেশনে কিভাবে বিস্ফোরক নিয়ে ঢুকতে সক্ষম হল জঙ্গিরা? তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ। সিসিটিভির ফুটেজ দেখে জঙ্গিদের চিহ্নিত করার কাজ চলছে।

বিস্ফোরণে আহতদের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে টুইট করেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। কড়া নিন্দা করেছে আমেরিকা, ফ্রান্স সহ বিভিন্ন দেশ। এর মধ্যে আবার মার্কিন প্রেসিডেন্টের টুইটে তৈরি হয় বিতর্ক। বিস্ফোরণের পরের মুহুর্তের সিসিটিভি ফুটেজ টুইটারে পোস্ট করে দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যার জেরে তীব্র সমালোচনার মুখে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী সহ নিরাপত্তা সংস্থাগুলো।

First published: 07:08:11 PM Sep 15, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर