কেমন আছো ইতালি ? উত্তরে কলকাতার জন্য ভিডিও পোস্ট তুরিনবাসীর

সোশ্যাল নেটওয়ার্কে পরিচয় তুরিনের বাসিন্দা রবার্তো বাকোর সঙ্গে। টুকটাক কথা বলার ফাঁকেই এল করোনা প্রসঙ্গ। হোয়াটসঅ্যাপ কলে আর্তনাদ করে উঠলেন রবার্তো।

  • Share this:

কলকাতা: মিলান বা তুরিনের দিকে তাকালে ‘কোলকাত্তাইয়া’  হিসেবে ভাগ্যবান  মনে হতে পারে নিজেদের। করোনা ভাইরাসের প্রকোপে কার্যত লন্ডভন্ড ইতালি। বিশেষ করে ইতালির উত্তরাংশ। সরকারি মতে ইতালিতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা কোনভাবে ১৫ হাজারের কম নয়। আর বেসরকারি হিসেব ধরলে সংখ্যাটা এক লক্ষ ছাড়িয়েছে বলে দাবি আম ইতালিয়ানদের।

সোশ্যাল নেটওয়ার্কে পরিচয় তুরিনের বাসিন্দা রবার্তো বাকোর সঙ্গে। টুকটাক কথা বলার ফাঁকেই এল করোনা প্রসঙ্গ। হোয়াটসঅ্যাপ কলে আর্তনাদ করে উঠলেন রবার্তো। পেশায় ইমপোর্ট-এক্সপোর্টৈর ব্যবসায়ী যা হিসাব দিলেন তাতে চমকে উঠতে হয়। মঙ্গলবার পর্যন্ত ইতালিতে করোনার বলি হয়েছেন ২১৫৮ জন। বেসরকারি সূত্রে সেই সংখ্যাটা নাকি ৪০০০ ছাড়িয়েছে। ভাবা যায়! দেল পিয়েরো, পাউলো রোসিদের দেশ আজ বিপন্ন।

রাস্তাঘাট শুনশান। দোকানপাট বন্ধ। ঘরবন্দী রয়েছেন ইতালির মানুষজন। বন্ধু রবার্তো শোনাচ্ছিলেন তাদের দুর্দশা, দুর্গতির কাহিনী। ঘর থেকে বের হতে পারছেন না। আতঙ্কে দিন কাটছে পরিবার পরিজনদের। ভবিষ্যৎ জানা নেই। অন্ধকার চাপা বর্তমানে দিনগুজরান চলছে রবার্তোর মতো অসংখ্য ইতালিয়ানের। রবার্তো তবু ভাগ্যবান কিন্তু ওর মতে, মিলান, বারগামো, ব্রেসসিয়ায় যারা রয়েছেন প্রতি মুহূর্তে আতঙ্ককে সঙ্গী করে বেঁচে রয়েছেন। কিন্তু পরিস্থিতি এতটা নিয়ন্ত্রণের বাইরে গেল কিভাবে? রবার্তো বলছেন, প্রথম দিনের অসতর্কতা আর অসাবধানতা। কলকাতার খোঁজ খবর নেওয়ার ফাঁকেই নিজের আবাসনের ব্যালকনি থেকে ভিডিও তুলে পাঠালেন বন্ধু রবার্তো। মনটা খারাপ হয়ে গেল। রবার্তোর দেশের মানুষগুলোও আমাদের কলকাতার মতই ফুটবল-পাগল, খেলা-পাগল। আজ একটুও ভালো নেই ওরা।

PARADIP GHOSH 

First published: March 18, 2020, 8:42 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर