Horned Crocodile: অবশেষে মিলল ছাড়পত্র, কুমিরের যে শিং ছিল মেনে নিলেন জীববিদরা !

Horned Crocodile: অবশেষে মিলল ছাড়পত্র, কুমিরের যে শিং ছিল মেনে নিলেন জীববিদরা !

অবশেষে মিলল ছাড়পত্র, কুমিরের যে শিং ছিল মেনে নিলেন জীববিদরা!

দেখা গিয়েছে যে হর্নড ক্রোকোডাইল এবং কুমিরের জিনের গঠনে কোনও তফাত নেই

  • Share this:

#ওয়াশিংটন: প্রমাণ কিন্তু হাতের কাছে ছিল আমেরিকান মিউজিয়াম অফ ন্যাচারাল হিস্টরিতে। সেখানে অনেক বছর হয়ে গেল বেশ যত্নের সঙ্গে সংরক্ষণ করা আছে একটি হর্নড ক্রোকোডাইল বা শিংবিশিষ্ট কুমিরের নিদর্শন। কিন্তু হর্নড ক্রোকোডাইল নাম রাখা হলেও আদতে একে কুমির প্রজাতির তালিকাভুক্ত করা হবে কি না, সেই নিয়ে একমত ছিলেন না জীববিদরা। তাঁদের এই খটকার কারণটা কী, সেটা বুঝতে হলে নজর দিতে হবে এই হর্নড ক্রোকোডাইলের সময়সীমা এবং আজকের দিনে টিঁকে থাকা কুমিরের শারীরিক বিবর্তনের উপরে।

নিউ ইয়র্কের ফোর্ডহ্যাম ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক এবং গবেষণাপত্রের প্রধান লেখক এভন হেকালা (Evon Hekkala) জানিয়েছেন যে পৃথিবীতে যখন শিংওয়ালা কুমির ঘুরে বেড়াত, সেই সময়টাকে চিহ্নিত করা হয়েছে প্রথম দিকের জুরাসিক যুগ হিসেবে, সময়ের হিসেবে তা আজ থেকে প্রায় ২০০ মিলিয়ন বছর আগের কথা। সেই জন্যই ধন্দে ছিলেন জীববিদরা যে একে কুমির প্রজাতির অন্তর্গত করা ঠিক হবে কি না! জীববিদদের অনেকেরই দাবি ছিল যে জুরাসিক যুগের এই জলজন্তুর সঙ্গে কুমিরের মিল থাকলেও আদতে একে ডাইনোসর প্রজাতির অন্তর্ভুক্ত করাটাই ঠিক হবে!

এই জায়গায় এসে তাঁদের বক্তব্যকে কিছুটা হলেও সমর্থন করেছিল কুমিরের শারীরিক বিবর্তনের ইতিহাস। বলা হয় যে সেই জুরাসিক যুগ থেকেই না কি কুমিরদের শারীরিক গড়ন খুব একটা বদলায়নি, সেই জন্যই এদের জীবন্ত জীবাশ্ম বলে উল্লেখ করে থাকেন জীববিদরা। তা-ই যদি হবে, সেক্ষেত্রে শিং উধাও হয়ে যাওয়ার কোনও ব্যাখ্যা খুঁজে পাওয়া যায় না। তাই বিতর্ক চলছিল যে নাম যা-ই হোক না কেন, হর্নড ক্রোকোডাইলকে কুমির বলা হবে কি না!

এবার অবশ্য সব সন্দেহ দূর হয়েছে। ফোর্ডহ্যাম ইউনিভার্সিটির গবেষকরা আমেরিকান মিউজিয়াম অফ ন্যাচারাল হিস্টরিতে যে নিদর্শনটি সংগ্রহ করা ছিল, তার ডিএনএ টেস্ট করে দেখেছেন। দেখা গিয়েছে যে হর্নড ক্রোকোডাইল এবং কুমিরের জিনের গঠনে কোনও তফাত নেই। ফলে এবার আর এদের কুমিরের গোত্রভুক্ত করতে কোনও অসুবিধা থাকার কথা নয় বলেই দাবি করেছেন হেকালা।

সেই সঙ্গে তিনি এটাও জানিয়েছেন যে এই শিংওয়ালা কুমিরেরা খুব বেশি হলেও ৯০০০ বছর আগে পৃথিবী থেকে অবলুপ্ত হয়ে গিয়েছে। এদের দেখা মিলত মাদাগাস্কারে। সেখানে যখন মানুষের পা পড়ে, অর্থাৎ জলদস্যুদের আনাগোনা শুরু হয়, তখন এরা অবলুপ্তির পথে এগিয়ে যেতে থাকে। প্রসঙ্গ, আমেরিকান মিউজিয়াম অফ ন্যাচারাল হিস্টরিতে যে নিদর্শনটি সংরক্ষিত আছে, তা মাদাগাস্কারে একটি অভিযান চালানোর সময়ে ১৯২৭ থেকে ১৯৩০ সালের মধ্যে আবিষ্কৃত হয়েছিল।

First published:

লেটেস্ট খবর